মেটায়নি ‘২০ লক্ষ টাকা’! অনুব্রতকে খুনের হুমকি দিয়ে গ্রেফতার তৃণমূল নেতা

128
মেটায়নি '২০ লক্ষ টাকা'! অনুব্রতকে খুনের হুমকি দিয়ে গ্রেফতার তৃণমূল নেতা 1

ওয়েব ডেস্ক : যার নামে গোটা বীরভূমে বাঘে গরুতে এক ঘাটে জল খায়, সেই প্রতাপশালী অনুব্রত মন্ডলকেই নাকি খুনের হুমকি দিলেন দলেরই আরেক প্রথম সারির নেতা। ঘটনার পর মঙ্গলবার দুপুরে গুসকরার স্কুলমোড় থেকে গুসকরা পুরসভার প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। যদিও অনুব্রত মন্ডলকে খুনের হুমকি দেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন নিত্যানন্দবাবু। ঘটনায় প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলরের অভিযোগ, অনুব্রতর স্ত্রীর অসুখের সময়ে তাঁর থেকে ২০ লক্ষ টাকা ধার নিয়েছিলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি। কিন্তু দীর্ঘদিন কেটে গেলেও সেই টাকা কিছুতেই ফেরৎ দিচ্ছেন না তিনি। এখন টাকা নেওয়ার কথা একেবারেই অস্বীকার করছেন অনুব্রত। সেই কারণেই পাওনা টাকা চেয়ে খুনের হুমকি দিয়েছেন ওই

আরও পড়ুন -  ট্রাম্পের সফরের মাঝেই সংশোধিত নাগরিক আইনের বিরোধী ও সমর্থকদের সংঘর্ষে আগুন জ্বলছে দিল্লিতে, পুলিশ কর্মী সহ মৃত ৫

তৃণমূলের প্রথমদিন থেকে তিনি এই দলে আছেন। দলের মধ্যে অনেক উত্থান-পতন দেখেছেন তিনি। নিজের এলাকায় বেশ জনপ্রিয় নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়।
গুসকরা পুরসভায় দীর্ঘদিন কাউন্সিলর ছিলেন তিনি। বর্তমানে তিনি কোনও পদে না থাকলেও গুসকরায় এই নেতার জনপ্রিয়তা প্রবল। এবিষয়ে অবশ্য নিত্যানন্দবাবুর স্পষ্ট জবাব দিয়েছেন। তিনি বলেন, ”কেষ্ট মণ্ডলকে স্ত্রীর অসুখের সময় ২০ লক্ষ টাকা ধার দিয়েছিলাম। বলেছিলেন, ৩, ৪ মাসের মধ্যে ফেরৎ দেবেন। বিশ্বাস করে ধার দিয়েছিলাম। কিন্তু এখন তা ফেরৎ দিতে অস্বীকার করছেন। আমার কাছে ধার নেওয়ার প্রমাণ আছে। তবু উনি দিচ্ছেন না। তাই হুমকি দিয়েছি। টাকা আমার ফেরৎ চাইই। পরেও টাকা চাইতে যাব।”

মেটায়নি '২০ লক্ষ টাকা'! অনুব্রতকে খুনের হুমকি দিয়ে গ্রেফতার তৃণমূল নেতা 2

জানা গিয়েছে, নিত্যানন্দবাবু অনুব্রত মন্ডলকে ফোনে পাওনা টাকা চেয়ে হুমকি দেওয়ার পর পরই আউসগ্রামের এক তৃণমূল কর্মী এবিষয়ে থানায় অভিযোগ করেন। এরপরেই মঙ্গলবার গুসকরা স্কুল মোড় থেকে নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। যদিও টাকা ধার নেওয়ার কথা একেবারেই অস্বীকার করেছেন অনুব্রত মণ্ডল। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেছেন, ”ওর কাজই হুমকি দিয়ে বেড়ানো। লাইসেন্স ও বিনা লাইসেন্সেও আগ্নেয়াস্ত্র আছে, আমি ওর থেকে কোনও টাকা ধার নিইনি।”