এখন খবররাজ্য

গালওয়ান উপত্যকায় শহিদ ২ বাঙালী জওয়ান, পরিবারদের আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস মমতার

ওয়েব ডেস্ক : রবিবার অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত আত্মঘাতী হওয়ার পর থেকেই আবেগে ভাসছে গোটা দেশ৷ সোমবার তাঁর শেষকৃত্য শেষ হওয়ার পরও যখন সুশান্তের আত্মহত্যার কারণ খুঁজতে সকলে মরিয়া, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরপাক খাচ্ছে অভিনেতার মিষ্টি হাসিমুখ খানি, সেই সময় গালওয়ানে ভারত-চিন সেনার সংঘর্ষে শহিদ হন ২০ জওয়ান। তাদের মধ্যে ২ এরাজ্যের ছেলে। একজন শিলিগুড়ি ও একজন বীরভূমের বাসিন্দা। বুধবার শহিদ জওয়ানদের পরিবার পিছু ৫ লক্ষ টাকা আর্থিক অনুদান দিকেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি শহিদদের পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়ার ঘোষণা করা হয়।

সোমবার রাতে ওই জওয়ানরা শহিদ হলেও তা সরকারিভাবে বুধবার দুপুরে জানানো হয়৷ সরকারিভাবে শহিদ জওয়ানদের নাম প্রকাশ করার কিছুক্ষণের মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী টুইট বলেন, “গালওয়ান উপত্যকায় শহিদ জওয়ানদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। আমি দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, তাঁদের মধ্যে আমাদের রাজ্যের দুই জওয়ান আছেন – একজন বীরভূমের মহম্মদবাজারের বেলগড়িয়ার বাসিন্দা সিপাহি রাজেশ ওরাওঁ এবং অপরজন আলিপুরদুয়ার শামুকতলা থানার বিন্দিপাড়া জেনারেল ডিউটিতে থাকা বিপুল রায়।”

প্রথমে জানা গিয়েছিল সোমবার রাতের সংঘর্ষে ৩ ভারতীয় জওয়ান মারা গিয়েছেন। কিন্তু পরে সেনার তরফে জানানো হয়, গুরুতর জখম জওয়ানদের মধ্যে প্রবল ঠান্ডায় ১৭ জন জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন এরাজ্যের রাজেশ ওরাং এবং বিপুল রায়। রাজেশ ওরাং বীরভূমের মহম্মদবাজারের বেলগড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা । বিপুল রায় আলিপুরদুয়ার শামুকতলা থানার বিন্দিপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তবে চাকরিসূত্রে উত্তরপ্রদেশের মীরাটে চল গিয়েছিলেন বিপুল রায়। এরপর বছরখানেক লাদাখে পোস্টিং পেয়েছিলেন। মীরাটের বাড়িতে তাঁর পাঁচ বছরের মেয়ে এবং স্ত্রী রয়েছেন।

এরপর বুধবার দুপুরে সেনার তরফে শহিদ জওয়ানদের নাম সরকারিভাবে প্রকাশ করা হয়। শহিদদের নাম প্রকাশ্যে আসার পর পরই ফের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটের মাধ্যমে শহিদ পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেন, “গালওয়ান উপত্যকায় শহিদ জওয়ানদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। আমি দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, তাঁদের মধ্যে আমাদের রাজ্যের দু’জন জওয়ান আছেন -বীরভূমের মহম্মদবাজারের বেলগড়িয়ার বাসিন্দা সিপাহি রাজেশ ওরাওঁ এবং আলিপুরদুয়ার শামুকতলা থানার বিন্দিপাড়ার বাসিন্দা জেনারেল বিপুল রায়। তাঁরা দেশের জন্য যে সর্বোচ্চ ত্যাগ করেছেন এবং তাঁদের পরিবারের যে ক্ষতি হয়েছে, তা কখনও পূরণ করা যাবে না। এই কঠিন পরিস্থিতিতে আমরা আমাদের মাটির ছেলেদের পাশে দাঁড়িয়ে আছি। এই বিষয়ে আমাদের তরফে মৃত পরিবারের একজন করে সদস্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের চাকরি এবং পাঁচ লাখ টাকা করে আর্থিক অনুদান দেওয়া হবে।”

বিজ্ঞাপন
Live Corona Update
error: Content is protected !!
Close
Close