এখন খবর

জুলাইতেও খুলছে না স্কুল-কলেজ, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

ওয়েব ডেস্ক: কিছুদিন আগে কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছিল ১৫ আগষ্টের পর পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে স্কুল কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷ এবার সেই পথেই হাঁটলো রাজ্য। করোনা পরিস্থিতিতে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কায় ৩১ জুলাই পর্যন্ত স্কুল, কলেজ সহ সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার সিদ্ধান্ত নিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ ১লা আগষ্টের পর পরিস্থিতি বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী। এদিকে ২ জুলাই থেকে উচ্চমাধ্যমিকের বকেয়া পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা। মঙ্গলবার এনিয়েও গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে ঘোষণা করেন, “শুধু জুন মাস শেষ হলেই নয়, রাজ্যে ৩১ জুলাই পর্যন্ত কোনও স্কুল-কলেজ খুলবে না। তবে স্কুল,কলেজে শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীদের কাজ চলবে ৷ বিজ্ঞপ্তির ধারা অপরিবর্তিত থাকবে ৷”

এদিকে, আগামী ২রা জুলাই থেকে উচ্চমাধ্যমিকের বকেয়া পরীক্ষাগুলো শুরু হওয়ার কথা৷ কিন্তু এদিকে আইসিএসসি ও আইএসসি বোর্ডের তরফে পরীক্ষার বিষয়ে পরীক্ষার্থীদের মতামতের ওপরই গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। তারা না চাইলে পরীক্ষা নাও দিতে পারেন৷ এ পরিস্থিতিতে রাজ্যের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। এবিষয়ে মঙ্গলবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “উচ্চমাধ্যমিক নিয়ে আমাদের প্রস্তুতি আছে কিন্তু ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাস্থ্য দেখেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সুপ্রিম কোর্ট,অন্যান্য বোর্ড বা অন্যান্য রাজ্যগুলির ওপরেও আমরা নজর রাখছি। ২৬-২৭ জুন পরীক্ষা নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।”

এদিকে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে স্কুলে পরীক্ষা হলে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কায় আইসিএসই ও সিবিএসই পরীক্ষা বাতিলের দাবি নিয়ে অভিভাবকরা সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন। এবিষয়ে সিবিএসসি বোর্ডের তরফে মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে তাদের মতামত জানানোর কথা থাকলেও ২৫ জুন পর্যন্ত সময় নিয়েছে বোর্ড কর্তৃপক্ষ। তবে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা উক্ত দিনেই হচ্ছে ধরে নিয়েই ২৫ শে জুন সিবিএসসি বোর্ড কি সিদ্ধান্ত নেয় সেদিকে তাকিয়ে রাজ্য শিক্ষা দফতর। তবে আদৌ উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা হবে কিনা তা ২৬ শে জুন বৈঠকের পরই জানা যাবে।

প্রসঙ্গত, আইসিএসসি ও আইএসসি বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে, স্কুলগুলিকে আগামী ২ – ১২ জুলাইয়ের মধ্যে আইসিএসসি-র এবং ১ – ১৪ জুলাইয়ের মধ্যে আইএসসি-র বকেয়া পরীক্ষাগুলি নিয়ে নিতে হবে। তবে এক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা দেওয়ার জন্য জোর করা যাবে না৷ যদি কোনো পরীক্ষার্থী এই পরিস্থিতিতে স্কুলে গিয়ে পরীক্ষা দিতে না চায় সেক্ষেত্রে, ইন্টার্নাল অ্যাসাইনমেন্ট কিংবা টেস্টের নম্বরের ভিত্তিতে তার মার্কশিট তৈরি হবে। অন্যদিকে, আগামী ২, ৬ ও ৮ জুলাই উচ্চমাধ্যমিকের বকেয়া পরীক্ষা। রাজ্য শিক্ষা দফতরের নির্দেশ অনুসারে পরীক্ষার্থীর এলাকার ২-৪ কিমির মধ্যেই থাকতে হবে পরীক্ষাকেন্দ্র।

বিজ্ঞাপন
error: Content is protected !!
Close
Close