এখন খবর

নভেম্বর পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের, আগামী বছর জুন অবধি রেশন দেওয়ার পাল্টা ঘোষণা রাজ্যের

ওয়েব ডেস্ক : করোনা সংক্রমণের জেরে গত একমাস যাবত গোটা দেশে আনলক ১ পরিস্থিতি চলার ১লা জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে আনলক ২৷ এর আগে মঙ্গলবার জনসাধারণের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এদিন তিনি ঘোষণা করেন, করোনা পরিস্থিতিতে আগামী নভেম্বর মাস পর্যন্ত দেশের ৮০ কোটি মানুষকে প্রতি মাসে বিনামূল্যে ৫ কেজি চাল বা গম এবং পরিবার পিছু ১ কেজি ডাল দেওয়ার ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। এর কয়েকঘন্টার মধ্যেই রেশন নিয়ে পাল্টা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সামনেই ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচন সে কথা মাথায় রেখে জন সমাজে দলের ভাবমূর্তি প্রকাশ করতেই মুখ্যমন্ত্রীর এমন সিদ্ধান্ত বলেই মনে করছেন অনেকে।

মঙ্গলবার নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, “আগামী বছর জুন পর্যন্ত রাজ্যের মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেবে রাজ্য সরকার। কেন্দ্রকে বলছি বাংলার একশো শতাংশ মানুষকে রেশন দিতে হবে। পাশাপাশি দেশের ১৩০ কোটি মানুষ যাতে রেশন পান তার ব্যবস্থা করতে হবে।” এদিন কেন্দ্রকে খোঁচা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ওনারা নভেম্বর পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা বলছেন। আমরা আগামী বছর জুন মাস পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেব। ওঁরা আজ বলছেন দেবেন কাল দেবে না হয়তো। কেন্দ্রে যে রেশন দেয় তা রাজ্যের ৬০% মানুষ পায়, ৪০% মানুষ পায় না। এই ডিসক্রিমিনেশন কেন! এটা একশো শতাংশ করতে হবে। সেই সাথে দেশের ১৩০ কোটি মানুষের রেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।”

পাশাপাশি আনলক ২ এ মুখ্যমন্ত্রী বেশ কিছু ছাড় ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, ” আনলকের এই সময়ে প্রাতঃভ্রমণের জন্য মানুষকে সকাল সাড়ে পাঁচটা থেকে সাড়ে আটটা পর্যন্ত সময় দেওয়া হল। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। বিয়ের অনুষ্ঠানে ৫০ জন পর্যন্ত যোগ দিতে পারবেন। আগে এই সংখ্যা ছিল ২৫। শেষকৃত্য ২৫ জন যোগ দিতে পারবেন।”

তবে এদিন মুখ্যমন্ত্রীর এমন ঘোষণার পর কার্যত উপহাসের সুরে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্ত্তী বলেন, “উনি কেন এসব বলছেন! আাগামী বছর জুন মাস পর্যন্ত উনি থাকবেন না। লকডাউনের সময়ে গরিব মানুষের খাবারের দায়িত্ব রাষ্ট্রকে নিতে হবে। এটা আইন।” তবে মঙ্গলবার রেশন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরই তৃণমূল নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ভেবেছিলাম দেশের এই আর্থিক মন্দা কাটাতে প্রধানমন্ত্রী নতুন কিছু ঘোষণা করবেন। পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধিতে মানুষ নাজেহাল, বহু মানুষ মাইনে পাচ্ছেন না। সেসবের কোনও কথাই নেই প্রধানমন্ত্রীর মুখে।”

বিজ্ঞাপন
error: Content is protected !!
Close
Close