দিল্লীতে মিটছে না অক্সিজেনের অভাব, ফের শ্বাস নিতে না পেরে মৃত ২৮ জন করোনা রোগী, অক্সিজেন ঘাটতি পাঞ্জাবেও, মৃত ৬

150
দিল্লীতে মিটছে না অক্সিজেনের অভাব, ফের শ্বাস নিতে না পেরে মৃত ২৮ জন করোনা রোগী, অক্সিজেন ঘাটতি পাঞ্জাবেও, মৃত ৬ 1

নিউজ ডেস্ক: ৩৬ ঘন্টা পার হয়নি রাজধানীর অক্সিজেন ঘাটতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বনাম প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বৈঠকের। ফের সেই অক্সিজেন ঘাটতিতেই মৃত্যু হল ২৮ জনের। আগে ২৫জনের মৃত্যুর পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অক্সিজেন চেয়েছিলেন কেজরিওয়াল। আশ্বাস মিলেছিল অক্সিজেন আসবে কিন্তু তা আসার আগেই শ্বাস নিতে পেরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন আরও ২৮জন। দিল্লীর এক বেসরকারি হাসপাতালে ঘটনাটি ঘটেছে। শুধু দিল্লীই নয়, অক্সিজেনের অভাবে পাঞ্জাবের অমৃতসরে ৫ করোনা রোগী-সহ ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

দিল্লীতে মিটছে না অক্সিজেনের অভাব, ফের শ্বাস নিতে না পেরে মৃত ২৮ জন করোনা রোগী, অক্সিজেন ঘাটতি পাঞ্জাবেও, মৃত ৬ 2

দিল্লীর বেসরকারি জয়পুর গোল্ডেন হাসপাতালে ছটফট করতে করতে প্রাণ হারালেন ২০ জন করোনা রোগী। হাসপাতালের অধিকর্তা ডি কে বালুজা জানিয়েছেন, সকলেই সঙ্কটাপন্ন রোগী ছিলেন, অক্সিজেন একেবারে নিঃশেষ না হলেও প্রেসার একদমই কম ছিল, অবশেষে মর্মান্তিক পরিণতি; অক্সিজেনের অভাবে শুক্রবার রাতে মৃত্যু হল ২০ জনের। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, শনিবার সকাল সোয়া ১০টার হিসেব অনুযায়ী, হাসপাতালে মাত্র ৪৫ মিনিটের অক্সিজেন রয়েছে। সেখানে রোগী রয়েছেন ২১০ জন, যাদের অবস্থাও স্থিতিশীল নয়। তিনি এও জানিয়েছেন, প্রায় ২৫ জন রোগী আইসিইউ ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন এই মুহূর্তে। এরপরেই আরও ৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। এছাড়াও, দিল্লীর এলএনজেপি, বাটরা হাসপাতালে অক্সিজেন সঙ্কট দেখা দিয়েছে। অক্সিজেনের জন্য হাহাকার শুরু হয়ে গিয়েছে। তবে শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী রোগী মৃত্যুর ঘটনার পরেই দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ অক্সিজেন ট্যাঙ্কার হাসপাতালে এসে পৌঁছেছে।

দিল্লীতে মিটছে না অক্সিজেনের অভাব, ফের শ্বাস নিতে না পেরে মৃত ২৮ জন করোনা রোগী, অক্সিজেন ঘাটতি পাঞ্জাবেও, মৃত ৬ 3

প্রসঙ্গত, একদিন আগেই অক্সিজেনের অভাবে ২৫ জন এইভাবেই মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়েন। এদিকে হাসাপাতালে তখনও ভর্তি রয়েছে ৬০ জন মুমূর্ষ রোগী রয়েছেন, ৫০০-র বেশি কোভিড রোগী চিকিৎসাধীন। গত তিন দিন ধরে অক্সিজেনের জন্য কাতর আর্জি জানাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

‘গত ২৪ ঘণ্টায় ইতিমধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ২৫ জন গুরুতর অসুস্থ। হাসপাতালে আর মাত্র ২ঘণ্টা চালানোর মতো অক্সিজেন বাকি রয়েছে। সঠিকভাবে কাজ করছে না ভেন্টিলেটর-বাইপ্যাপগুলো। জরুরী ভিত্তিতে অক্সিজেনের ব্যবস্থা না করা হলে বাঁচানো যাবে না আরও ৬০জন মুমূর্ষুকে।’ কাতর আর্জি দিল্লীর গঙ্গারাম হাসপাতালের ডিরেক্টর জেনারেলের। এই নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দ্বিতীয়বার আপদকালীন পরিস্থিতিতে অক্সিজেন চেয়ে বার্তা দেয় দিল্লী গঙ্গারাম হাসপাতাল। আর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এমন আর্তনাদের সুর্ব অক্সিজেনের আবেদন সেখানকার চিকিৎসা ব্যবস্থার ভয়াবহ সঙ্কটজনক পরিস্থিতির কথাই মনে করিয়ে দিচ্ছে, যা দেখে আঁতকে উঠছে আমজনতাও।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশজুড়ে অক্সিজেনের সঙ্কট। এই অবস্থায় দ্রুত অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে ভারতীয় রেল। ঝাড়খণ্ডের বোকারো থেকে বারাণসী ও লখনউতে পৌঁছল অক্সিজেনের তিনটি ট্যাঙ্কার। দ্বিতীয় ট্রেনে আরও চারটি অক্সিজেন ট্যাঙ্কার বোকারোয় পৌঁছেছে। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় বায়ু সেনাও। বায়ু সেনার বিমান C-17 এবং IL-76 ক্রিওজেনিক অক্সিজেন কন্টেইনার নিয়ে হিন্দন এয়ার ফোর্স স্টেশন থেকে পানাগড় এসে পৌঁছেছে।

দেশ জুড়ে করোনা সঙ্কট প্রত্যেকের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে। চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়ছে। দেখা দিচ্ছে অক্সিজেন সঙ্কট। এই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে হাল ধরেছে ভারতীয় বায়ু সেনা। বায়ু সেনার বিমান প্রতিটি প্রান্তে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছে, যাতে করে দ্রুত গতিতে অক্সিজেন পৌঁছে যায় প্রয়োজনীয় জায়গায়। বায়ু সেনার বিমান C-17 এবং IL-76 দেশ জুড়ে অক্সিজেন পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার নিজেদের মিশন শুরু করে দিয়েছে।

দেশ জুড়ে করোনা গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার পাশাপাশি অক্সিজেনের জন্য হাহাকার সকলের মনেই আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। কেন্দ্র সরকারও যথেষ্ট উদ্বিগ্ন এই নিয়ে। এমতাবস্থায় মঙ্গলবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং দেশব্যাপী জনগণকে সাহায্য করার জন্যে সমস্ত প্রতিরক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অনুরোধ করেছেন। আর পরিস্থিতি মোকাবেলায় তাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় বায়ু সেনা। ভারতীয় বিমানবাহিনী ট্যুইট করে জানিয়েছে, কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বায়ু সেনা সব রকম সাহায্য করবে। অক্সিজেন কন্টেইনার, সিলিন্ডার, প্রয়োজনীয় ওষুধ, সরঞ্জাম ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বায়ু সেনা।

Previous articleদেশ জুড়ে করোনার নতুন রেকর্ড; একদিনেই আক্রান্ত প্রায় সাড়ে ৩ লক্ষ, বাংলতেও জারি করোনার তাণ্ডব, শেষ ২৪ ঘন্টায় বাংলাতেও রেকর্ড সংক্রমণ 
Next articleক্রমশই দৃঢ় হচ্ছে করোনার রক্তচক্ষু; বাতিল ছুটিও, পুলিশ স্টেশনেই গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান কনস্টেবল ‘আশা’র