সরস্বতী পুজোর দিনেই রক্তাক্ত মুর্শিদাবাদ, নিহত কিশোর ও বৃদ্ধ ! এনআরসি ও ক্যা বিরোধী আন্দোলনে গুলি চালানোর অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

248
সরস্বতী পুজোর দিনেই রক্তাক্ত মুর্শিদাবাদ, নিহত কিশোর ও বৃদ্ধ ! এনআরসি ও ক্যা বিরোধী আন্দোলনে গুলি চালানোর অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে 1
সরস্বতী পুজোর দিনেই রক্তাক্ত মুর্শিদাবাদ, নিহত কিশোর ও বৃদ্ধ ! এনআরসি ও ক্যা বিরোধী আন্দোলনে গুলি চালানোর অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে 2
সানারুল বিশ্বাস ও সালাউদ্দিন শেখ  

নিজস্ব সংবাদদাতা: মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে গেল মুর্শিদাবাদ জেলার জলঙ্গিতে।  সংশোধিত নাগরিক আইন (ক্যা)এবং জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি)-র প্রতিবাদে ডাকা স্থানীয় বন‌্ধ ভাঙতে গিয়ে . আন্দোলনকারীদের ওপর গুলি চালিয়ে এক বৃদ্ধ ও এক কিশোরকে খুনের অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরূদ্ধে। ঘটনায় আরও একাধিক ব্যাক্তি গুলিবিদ্ধ হয়েছে।   অভিযোগ, বুধবার এনআরসি ও ক্যা র বিরুদ্ধে ডাকা বনধ ব্যর্থ করতেই শাসক দলের স্থানীয় নেতৃত্বের উপস্থিতিতে বন্‌ধ সমর্থনকারীদের উপর এলোপাথাড়ি গুলি চালিয়েছে দুষ্কৃতিরা। ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে এলাকায়।

সরস্বতী পুজোর দিনেই রক্তাক্ত মুর্শিদাবাদ, নিহত কিশোর ও বৃদ্ধ ! এনআরসি ও ক্যা বিরোধী আন্দোলনে গুলি চালানোর অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে 3

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
এখনও অবধি প্রাপ্ত সংবাদ অনুযায়ী, বুধবার  ‘নবজাগরণ’ নামে একটি অরাজনৈতিক সংগঠন এ দিন জলঙ্গি থানা এলাকার সাহেবনগরে সিএএ বাতিলের দাবিতে এবং এনআরসি-র বিরুদ্ধে  বন্‌ধের ডাক দেয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের দাবি, ওই সংগঠনে বিভিন্ন রাজনৈতির দলের কর্মীরা থাকলেও তাঁরা মূলত অরাজনৈতিক একটি আন্দোলন তৈরির চেষ্টা করেছিলেন। নুর ইসলাম নামে এক প্রত্যক্ষদর্শীর দাবি, এ দিন সকাল ৭টা থেকে সাহেবনগর বাজারে অবস্থানে বসেন বন্‌ধ সমর্থনকারীরা। তাঁর অভিযোগ, সাড়ে আটটা নাগাদ তিন-চারটি গাড়ি এসে থামে বাজারের সামনে। ওই গাড়িগুলোতে ছিলেন তৃনমূলের স্থানীয় নেতা ও কর্মীরাই ছিল বলে অভিযোগ বনধ সমর্থনকারীদের।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
প্রত্যক্ষদর্শীর দাবি করেছেন , ওই তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা লাঠিসোটা হাতে নিয়ে গাড়ি থেকে নেমে বন্‌ধ সমর্থনকারীদের সরে যেতে বলেন। এর পরেই তৃণমূল কর্মী-সমর্থক এবং বন্‌ধ সমর্থকদের মধ্যে শুরু হয়ে যায় বচসা এবং তা গড়ায় হাতাহাতিতে। অভিযোগ, অল্প সময়ের মধ্যেই সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায় দু’পক্ষের মধ্যে। বনধে অংশ নেওয়া এক ব্যাক্তি বলেন,

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
‘‘তৃণমূলের ব্লক সভাপতি তহিরুদ্দিন মণ্ডল নিজে ঘটনাস্থলে ছিলেন। তাঁর সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান। ওঁদের নির্দেশেই সঙ্গে থাকা তৃণমূলের লোকজন বাজারে থাকা জমায়েত লক্ষ্য করে বোমা মারতে থাকে। এলাকার মানুষ প্রতিরোধ করতেই তাঁরা ফিরে যাওয়ার পথে এলোপাথাড়ি গুলি চালায়। সেই গুলিতে মারা গিয়েছেন সানারুল বিশ্বাস (৬০) এবং সালাউদ্দি শেখ (১৭)।”

সরস্বতী পুজোর দিনেই রক্তাক্ত মুর্শিদাবাদ, নিহত কিশোর ও বৃদ্ধ ! এনআরসি ও ক্যা বিরোধী আন্দোলনে গুলি চালানোর অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে 4

এলাকাবাসীর দাবি, আরও অন্তত তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার পরেই সাহেবনগরে পৌঁছয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভও দেখান এলাকার বাসিন্দাদের একাংশ। রাস্তা অবরোধ করেন করেন বিক্ষোভকারীরা। বিষয়টি নিয়ে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি তৃনমূলের।

Previous articleযাত্রী সহ কুয়োর মধ্যে বাস ! ১২ঘন্টায় দুই বাস দুর্ঘটনায় মৃত ৩৫, আশংকায় আরও ২০জন
Next article‘ভাড়াটে’ প্রশান্ত কুমারকে দল থেকে তাড়িয়েই দিলেন নীতিশ