আমফান মোকাবিলায় পশ্চিমবঙ্গে এসে করোনায় সংক্রমিত হলেন ৪৯ জন এনডিআরএফ জওয়ান

95

ওয়েব ডেস্ক : গত ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আমফানের তান্ডবে তছনছ হয়ে গিয়েছিল গোটা রাজ্যে। গাছ পড়ে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল রাস্তা। ছিঁড়ে গিয়েছিল অসংখ্য বিদ্যুতের তার। ফলে প্রায় সপ্তাহ খানেক বিদ্যুতহীন ছিল কলকাতা সহ বেশ কয়েকটি জেলা। সেই সময় রাজ্য পুলিশের পাশাপাশি রাজ্যকে সচল করতে ঝাপিয়ে পড়েছিল এনডিআরএফ এর সদস্যরা। উদ্ধারকার্যে এসে করোনায় আক্রান্ত হলেন ৪৯ জন এনডিআরএফ জওয়ান।

জানা গিয়েছে, আক্রান্ত জওয়ানরা সকলেই তৃতীয় ব্যাটেলিয়নের সদস্য। জানা গিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গে উদ্ধারকার্যের পর পরই ওই জওয়ানরা ওড়িশার কটকে উদ্ধারকার্যে গিয়েছিলেন। গত ৫ জুন তাদের মধ্যেই একজনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

সূত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গ থেকে ওড়িশায় যাওয়ার পরই বেশ কয়েকজন জওয়ানের সর্দি-জ্বর জাতীয় লক্ষণ দেখা যায়। এরপরই কটকের এসসিবি হাসপাতালে প্রথমে এনডিআরএফ সদস্যদের মধ্যে ৬ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। তাদের মধ্যে ১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এই ঘটনার পর তড়িঘড়ি এনডিআরএফ এর যে টিমটি পশ্চিমবঙ্গে এসেছিলেন তাদের প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা করানো হয়। তাদের মধ্যে ৪৯ জন সদস্যই সংক্রমিত। এরপরই তাদের চিকিৎসার জন্য দ্রুত কটকের করোনা হাসপাতালে ভরতি করা হয়।

আরও পড়ুন -  অধিবেশন শুরুর আগেই ৮ জন করোনায় আক্রান্ত, একদিনেই শেষ হবে বিধানসভার বাদল অধিবেশন

ইতিমধ্যে গোটা পশ্চিমবঙ্গে সংক্রমণের হার প্রত্যেকদিন বাড়ছে। তার মধ্যে সবচেয়ে বেহাল অবস্থা কলকাতায়। গোটা রাজ্যে আক্রান্ত ও মৃত্যুর নিরিখে এগিয়ে রয়েছে কলকাতা। কয়েকঘন্টা উদ্ধারকাজের ফলে যদি কলকাতা থেকে ৪৯ জন এনডিআরএফ কর্মী সংক্রমিত হয় তবে গোটা কলকাতার অবস্থা যে কতটা ভয়াবহ তা চোখের সামনেই স্পষ্ট। তার ওপর ইতিমধ্যেই ১০০% কর্মী নিয়ে খুলে গিয়েছে রাজ্যের বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী অফিস, খুলেছে বিভিন্ন রেস্তোরাঁ-শপিং মল। ফলে শিকেয় স্বাস্থ্যবিধি!! দেদারে রাস্তাঘাটে বেরোচ্ছেন মানুষজন। এর জেরে আগামী কয়েকদিনেই মধ্যেই রাজ্যের পাশাপাশি কলকাতাতেও যে রেকর্ড সংক্রমণ হতে চলেছে তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে মাত্র কয়েকঘন্টার জন্য কোলকাতায় উদ্ধারকার্যে আসা করোনা আক্রান্ত এনডিআরএফ কর্মীরা।

আমফান মোকাবিলায় পশ্চিমবঙ্গে এসে করোনায় সংক্রমিত হলেন ৪৯ জন এনডিআরএফ জওয়ান 1