মৃত্যুর ৫ দিন পর কুয়ো থেকে মিলল কাটা মুণ্ডু, পুরুলিয়ার আদিবাসী দম্পতির মৃত্যু তদন্তে দায়সারা পুলিশ

176
মৃত্যুর ৫ দিন পর কুয়ো থেকে মিলল কাটা মুণ্ডু, পুরুলিয়ার আদিবাসী দম্পতির মৃত্যু তদন্তে দায়সারা পুলিশ 1

ওয়েব ডেস্ক : গত শুক্রবার পুরুলিয়ায় তানাসি গ্রামে এক আদিবাসী দম্পতির গলা কাটা দেহ উদ্ধার করেছিল পুলিশ। সেই ঘটনার ৫ দিন কেটে গেলেও এখনও পর্যন্ত কোনো হেলদোলই নেই পুলিশের। এর মাঝেই বুধবার বিকেলে এলাকারই একটি মাঠের পরিত্যক্ত কুয়ো থেকে দুর্গন্ধ ছড়াতে শুরু করে। আসা যাওয়ার পথে অনেকে দুর্গন্ধ অনুভব করলেও কেউ বিষয়টিকে সেভাবে গুরুত্ব দেননি। এরপর কয়েকজন গ্রামবাসী কুঁয়োয় উঁকি দিতেই মৃত আদিবাসী দম্পতির কাটা মুন্ডু দেখতে পান। বিষয়টি দেখা মাত্রই দ্রুত পুলিশকে খবর দেওয়া হলে ঘটনাস্থলে আরশি থানার পুলিশ পৌঁছে কাটা মুণ্ডু দুটি উদ্ধার করে । তবে ঘটনার পর প্রায় ৫ দিন কেটে গেলেও পুলিশের তরফে এখনও পর্যন্ত এই খুনের কিনারা করা সম্ভব হয়নি। এখানেই প্রশ্ন উঠছে। কেন এতদিন পরেও খুনের কারণ বুঝতে দেরি হচ্ছে পুলিশের? কেনই বা এখনও পর্যন্ত ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারলো না? এই ধরণের একাধিক বিষয় নিয়ে ইতিমধ্যেই গ্রামবাসীদের মধ্যে পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভের সৃষ্টি হতে শুরু করেছে৷

আরও পড়ুন -  মহাঅষ্টমীর সকালে বঙ্গবাসীকে শুভেচ্ছাবার্তা প্রধানমন্ত্রীর

গত শুক্রবার সকালে পুরুলিয়ার অযোধ্যা পাহাড় লাগোয়া তানাসি গ্রামে পাতাই মাঝি (৬৫) ও লোশকি মাঝি (৫৫) নামে এক আদিবাসী দম্পতির গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়। ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই পাশের গ্রাম থেকে ছুটে আসে মাঝি দম্পতির ছোটো ছেলে। সে সময় ছোট ছেলের বয়ান অনুযায়ী জানা গিয়েছিল, আপাতত তাদের কোনো শত্রু না থাকলেও অনেক বছর আগে তাদের জীবনে বেশ কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিল। তবে সেই ঘটনার সাথে তার বাবা মায়ের খুনের কোনো সম্পর্ক আছে কিনা তা সে না বুঝলেও পুলিশ কিন্তু এই খুনের নেপথ্যে অতীতের দুই ঘটনাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে।

মৃত্যুর ৫ দিন পর কুয়ো থেকে মিলল কাটা মুণ্ডু, পুরুলিয়ার আদিবাসী দম্পতির মৃত্যু তদন্তে দায়সারা পুলিশ 2

এবিষয়ে দম্পতির ছোট ছেলে মুকুন্দ মাঝি জানিয়েছে, “আমরা যখন ছোট ছিলাম সেই সময় আমার মাকে ডাইন-জুগিন বলত প্রতিবেশীরা। এই নিয়ে ঝামেলাও হয় প্রতিবেশীদের সঙ্গে। নিজেদের চাষের গরু বিক্রি করে জরিমানা দিতে হয়েছিল আমার বাবা-মাকে। আবার কিছু দিন আগে জমি সংক্রান্ত বিবাদ হয়েছিল গ্রামবাসীদের সঙ্গে।“ তবে কি পুরনো বিবাদের জেরেই খুন হতে হল ওই আদিবাসী দম্পতিকে? এই ধরণের একাধিক প্রশ্ন গ্রামবাসীর মনে থাকলেও পুলিশের তরফে এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত সেভাবে তদন্ত শুরু হয়নি বলেই মনে করা হচ্ছে।