৫ সহকর্মীকে গুলি করে খুন করে আত্মঘাতী জওয়ান, ছত্তিশগড়ে রক্তাক্ত আইটিবিপি ক্যাম্প

159
Advertisement
                
নিজস্ব সংবাদদাতা: মাওবাদী দমনে নিযুক্ত এক ইন্দো টিবেটান বর্ডার পুলিশের কনস্টেবল তাঁর পাঁচ সহকর্মীকে গুলিতে ঝাঁঝরা করে দিয়ে নিজেও আত্মঘাতী হয়েছেন। ঘটনায় গুরুতর আহত আরও দুই জওয়ান। বুধবার সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে রায়পুর থেকে ৩৫০কিলোমিটার দুরে ছত্তিশগড়ের নারায়নপুর জেলাতে।

Advertisement

Advertisement
Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পুলিশ জানিয়েছে বস্তার রেঞ্জ এলাকার কাদেনার সংলগ্ন ইন্দো টিবেটিয়ান পুলিশের বি-৪৫নম্বর ব্যাটেলিয়ানের কনস্টেবল রহমান খান হঠাৎই তাঁর স্বয়ংক্রিয় রাইফেল থেকে অবিরাম গুলি বর্ষণ শুরু করে নিজেরই সহকর্মীদের ওপর। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন ৭জন জওয়ান । যাদের মধ্যে ৪জন ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে মারা যান আরও এক জওয়ান।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
আহত দুজনকে হেলিকপ্টারের রায়পুর হাসপাতালে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে চিকিৎসার জন্য।সহকর্মীদের ওপর গুলি চালানোর পর নিজের দিকে রাইফেলের নল তাক করে ট্রিগার টিপে দেন রহমান। ঘটনাস্থলে মারা যান তিনিও।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
বস্তার রেঞ্জের পুলিশের আইজি সুন্দররাজ পি জানিয়েছেন, ”এদিন বেলা ন’টা নাগাদ এক জওয়ান তার সহকর্মীদের দিকে গুলি চালিয়ে দেয়। পাঁচজন সেখানেই মারা যান। আরও দু’জন গুরুতর আহত হয়েছেন।”

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
ইন্দো টিবেটিয়ান বর্ডার পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল ডি এম অবস্তী জানিয়েছেন, ‘অত্যন্ত মর্মান্তিক এই ঘটনা কেন ঘটল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”  ঘটনাস্থলে রওনা দিয়েছেন নারায়নপুরের পুলিশ সুপার মোহিত গর্গ।  গুলি চালানোর নিশ্চিত কারন  জানা না গেলেও প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে, ওই  জওয়ান সম্ভবত ছুটি না পাওয়ার জন্য ক্ষুব্ধ ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলেন।