টলিপাড়ায় কোভিড রুখতে বেঁধে দেওয়া হল একগুচ্ছ নিয়ম

51
টলিপাড়ায় কোভিড রুখতে বেঁধে দেওয়া হল একগুচ্ছ নিয়ম 1

নিউজ ডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গে ক্রমাগত বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। টলিপাড়ায় অনেকই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তবে এমন পরিস্থিতিতেও বন্ধ হচ্ছে না টলিপাড়ার শ্যুটিং। তবে কোভিড রুখতে মেনে চলতে হবে একগুচ্ছ নিয়ম। সম্প্রতি নিজেদের মধ্যে বৈঠকে এমনটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছে আর্টিস্ট ফোরাম, প্রোডিউসারস গিল্ড সহ সংগঠনগুলি।

টলিপাড়ায় কোভিড রুখতে বেঁধে দেওয়া হল একগুচ্ছ নিয়ম 2

এর আগে ফেডারেশনের সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস জানিয়েছিলেন, টেকনিশিয়ানদের ফ্লোরে কী কী নিয়ম মেনে চলতে হবে, জানিয়েছিলেন র‍্যাপিড টেস্ট এবং টেকনিশিয়ানদের করোনার টিকাকরণের ব্যবস্থার কথা। এ বার আর্টিস্ট ফোরামের তরফে এক নির্দেশিকা জারি করে তাতে জানান হয়, কীভাবে কোন কোন নিয়ম মেনে চলবে শ্যুটিং।

টলিপাড়ায় কোভিড রুখতে বেঁধে দেওয়া হল একগুচ্ছ নিয়ম 3

সেই নিয়মে বলা হয়েছে-

১. একমাত্র শিল্পী বাদে মাস্ক ছাড়া কাউকে শুটিং ফ্লোরে অ্যালাও করা হবে না।

২. মাত্র একজন শিল্পী একটি ঘরে খাবার খেতে পারবেন। সেই সময় ঘরে যদি অন্য কেউ উপস্থিত থাকেন সেক্ষেত্রে তাঁকে মাস্ক পরতে হবে।

৩. মেকআপের যাবতীয় সরঞ্জাম স্যানিটাইজ করা হবে। যে সমস্ত শিল্পী নিজেদের মেকআপ বহন করতে চান তাঁদের স্বাগত। প্রত্যেক শিল্পী ব্যবহারের আগে গহনা, উইগস স্যানিটাইজ করা হবে।

৪. লেপেলের ব্যবহার করা যাবে না। এই মুহূর্তে বুমে মাইক্রোফোনেই কাজ চালাতে হবে।

৫. কেন্দ্রীয় বা রাজ্য সরকারের কোনও নির্দেশ না আসা পর্যন্ত চলবে শ্যুটিং।

৬. যদিও এই পরিস্থিতিতে ইচ্ছের বিরুদ্ধে কোনও অভিনেতাকে শ্যুটে যোগদানের জন্য জোর দেওয়া যাবে না, তবে প্রত্যেক শনিবার ৪ টের মধ্যে শিল্পীকে পরের সপ্তাহে তিনি কাজ করতে পারবেন কিনা তা জানাতে হবে।

৮. যে সমস্ত অভিনেতা-অভিনেত্রীকে কাজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হনই, এই মুহূর্তে তাদের শ্যুট থেকে বাদ দেওয়া একেবারেই যাবে না। যদি তিনি এই মুহূর্তে শ্যুটিং করতে নাও চান, তা মেনে নেওয়া হবে কিন্তু একই সঙ্গে তিনি অন্য কোনও প্রজেক্টেরও অংশ হতে পারবেন না। আর্টিস্ট ফোরাম অন্যথায় সেই শিল্পীর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে।

Previous articleভাইরাসের বাড়বাড়ন্তের নেপথ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের দূরদর্শিতার নেতৃত্বের অভাবকেই দায়ী করলেন রঘুরাম
Next articleরাজনৈতিক সংঘর্ষে অশান্ত আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে নিহত ২! হিংসা থামাতে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন এলাকায়