লকডাউনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মদ্যপানের আসর,শিলিগুড়ির পাব থেকে উদ্ধার একদল যুবক যুবতী

53
Advertisement

নিউজ ডেস্ক: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে জেরবার রাজ্য সহ দেশ। করোনার চেইন ব্রেক করতে আগামী ৩০ শে মে পর্যন্ত কার্যত লকডাউন দেশজুড়ে।

Advertisement

এইমুহুর্তে একদিকে করোনার সাথে লড়াই করতে হিমশিম খাচ্ছে দেশ। মৃত্যুর মিছিল অব্যাহত।আক্রান্ত সহস্রাধিক মানুষ। অক্সিজেনের সংকট চলছে। ঠিক সেই সময় মদ্যপানের আসর বসেছিল শিলিগুড়ি শহরে।

Advertisement
Advertisement

বৃহস্পতিবার রাতে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের ভক্তিনগর থানার পুলিশের কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে, কোভিডবিধি, লকডাউন, নাইট কারফিউ উপেক্ষা করে শিলিগুড়ি সেবক রোড এর একটি পাবের মধ্যে জমায়েত করে মদ্যপানের আসর বসিয়েছে বেশ কয়েকজন যুবক যুবতী, এই খবর পাওয়ার পর তৎক্ষণাৎ বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে সেবক রোডে একটি শপিং মলের ওই পাবে হানা দেয় পুলিশ, কোভিড বিধি না মানা, লকডাউন উপেক্ষা করার অভিযোগে মদের আসর থেকে ১৪ জন যুবক-যুবতীকে গ্রেপ্তার করে ভক্তিনগর থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই পাবে মদ্যপান ও নাচানাচি করছিল ৯ যুবক ও ৫ যুবতী।তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে মদের বোতল ও হুক্কা উদ্ধার হয়েছে। ভক্তিনগর থানার পুলিশসূত্রের খবর, ধৃতদের বিরুদ্ধে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে । ঘটনার পর থেকে মলের মালিক পলাতক। রাজ্যে আগামী ৩০ মে পর্যন্ত লকডাউনের বিধিনিষেধ বলবৎ রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সমস্ত রেস্টুরেন্ট বার পাব বন্ধ। কিন্তু কোভিডবিধি উপেক্ষা করে সেবক রোড এর ওই পাবটিতে জমায়েত করে মদ্যপান চলছিল বলেই অভিযোগ।

ধৃতদের শুক্রবার জলপাইগুড়ি আদালতে পাঠানো হয়। গোটা ঘটনায় স্তম্বিত শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের পাশাপাশি শহরবাসী। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি মূলক ব্যবস্থা দাবি তুলেছে শহরবাসী। পাশাপাশি ওই পাব এর মালিক এর বিরুদ্ধেও কঠোর শাস্তির দাবি তুলেছে শিলিগুড়ি বাসি।