কালো কাঁচের গাড়ি থেকে দেখা দিলেননা অভিষেক,হতাশা নিয়ে ঘরমুখী ক্ষুব্ধ দলীয় কর্মী

253
কালো কাঁচের গাড়ি থেকে দেখা দিলেননা অভিষেক,হতাশা নিয়ে ঘরমুখী ক্ষুব্ধ দলীয় কর্মী 1

নিউজ ডেস্ক:  যে উচ্ছাস ও আবেগ নিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কে দেখার জন্য কয়েক ঘন্টা দাঁড়িয়ে ছিলেন দলীয় কর্মী সহ অজস্র মানুষ,তাদের আর তেমন ভাবে সেই ইচ্ছে পূরণ হলোনা।গাড়ির গতি একটু ধীর হলে শুধুমাত্র উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি কানাইলাল আগারওয়াল প্রিয় নেতাকে একটা গোলাপ ফুল তুলে দিলেন চলন্ত গাড়িতে।উপচে পড়া ভিড়ে তাদের নেতাকে এক ঝলক দেখবারও সুযোগ হলোনা অনেকেরই।এমনকি ফুলের তোড়া হাতে নিয়ে নিরাশ হয়ে ফিরে যেতে হলো দলের মহিলা কর্মীদেরও।জনসংযোগের চিত্র এমন হলে কীভাবে গেরুয়া ঝড় আটকাবেন তৃণমুলের যুবরাজ?প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে রাজনৈতিক মহলে।

এদিন সকাল থেকেই তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্বাগত জানাতে কর্মী,সমর্থক ও নেতৃত্বদের ভিড় উপচে পড়লো ইসলামপুর পাওয়ার হাউস মোড়ে।একত্রিশ নম্বর জাতীয় সড়ক সংলগ্ন শহর তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ের সামনে ভিড় সামাল দিতে পুলিশকে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়।উত্তরবঙ্গ সফরে এসে বৃহস্পতিবার শিলিগুড়ি থেকে গঙ্গারামপুর যাওয়ার পথে ইসলামপুরে সাংসদকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানাবার সিদ্ধান্ত নেন ইসলামপুর তৃণমূল নেতৃত্ব।

কালো কাঁচের গাড়ি থেকে দেখা দিলেননা অভিষেক,হতাশা নিয়ে ঘরমুখী ক্ষুব্ধ দলীয় কর্মী 2

সেই মতো রীতিমতো সাজ সাজ রব পড়ে যায় কর্মীদের মধ্যে।গোটা শহরে প্ল্যাকার্ড ও ফেস্টুনে ছেয়ে ফেলা হয়। দলের টাউন পার্টি অফিসও সাজিয়ে ফেলা হয়।যদি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নামেন তবে তাকে কার্যালয়ে নিয়ে আসা হবে।আশাটা ছিল এমনই।এদিন সকাল আটটা থেকে কয়েক ঘন্টা ধরে রাজ্য নেতাকে দেখার জন্য ভিড় ক্রমশ বাড়তে থাকে।

প্রিয় নেতাকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত হন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি কানাইলাল আগারওয়াল,ইসলামপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি জাকির হোসেন,পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শ্যামল সরকার প্রমুখ।
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে চাক্ষুশ দেখতে না পেয়ে মনখারাপ হয় সকলের।