হাওড়ার শহরতলিতে প্রাণী স্বাস্থ্য সচেতনতা শিবির

226
হাওড়ার শহরতলিতে প্রাণী স্বাস্থ্য সচেতনতা শিবির 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: হাওড়া জেলার বালি-জগাছা ব্লকের চকপাড়া- আনন্দনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের মিলনী সমিতিতে ব্লক প্রাণীসম্পদ বিকাশ বিভাগের পক্ষ থেকে প্রাণী স্বাস্থ্য ও সচেতনতা শিবির চলছে। এটি শহরতলি। তবুও বেশ কিছু মানুষ প্রাণীপালন করেন। তাদের উৎসাহ ছিল চোখে পড়ার মতো। শিবিরে গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির বিভিন্নরকম ঔষধ দেওয়া হয়। এছাড়াও এলাকার সকল গো- মহিষের কানে দুল ( সনাক্তকরণের জন্য Tag) পড়ানো শুরু করা হয়। বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে প্রাণীপালনে সচেতনতার উদ্দেশ্যে পুস্তিকা ও লিফলেট বিলি করা হয়। উপস্থিত ব্লক প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন আধিকারিক ডাঃ দেবজ্যোতি ঘোষ জানান, এঁসো বা ক্ষুরাই ( FMD…Food and Mouth Disease) রোগ দূরীকরণের লক্ষ্যে প্রতিটি গো- মহিষের সনাক্তকরণে Tag পড়ানো হবে, গোপালকগন তাঁদের আধার নম্বর ও মোবাইল নম্বর এলাকার প্রাণীমিত্রা বা প্রাণীবন্ধুদের দেবেন। সমস্ত তথ্যই গোপন থাকবে। নভেম্বর মাসের ১৫ তারিখ থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত প্রথম পর্যায়ে FMD রোধে টীকাকরণ করা হবে এবং পর্যায়ক্রমে চলতে থাকবে। সরকারের লক্ষ্য আগামী ২০২৫ সালের মধ্যে সারা দেশ FMD মুক্ত করা। FMD রোগটি হলে গো- মহিষের উৎপাদন ও কর্ম ক্ষমতা কমে যায়, বাচ্চা মারা যায় এবং প্রাণীপালক আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হন।Tag পরালে গো-মহিষের কোনরকম অসুবিধা হওয়ার কথা নয়, বরঞ্চ হারিয়ে বা চুরি হলে Tag বারকোডের সাহায্যে পালক গবাদিপশু ফিরে পেতেও পারেন। সকলের সহযোগিতা উনি প্রার্থনা করেন।

আরও পড়ুন -  ফের কাটমানি ইস্যু সামনে আনছে বিজেপি অভিযোগ , বীরভূমে তৃনমূল নেতার বাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ

উপস্থিত চকপাড়া-আনন্দনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান শ্রীমতি মোনিকা দে জানান প্রাণীমিত্রারা বেশ কয়েকদিন ধরে প্রচার করেছিলেন। আজকের শিবির থেকে গবাদিপশুর কৃমির ঔষধ, ভিটামিন ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় ঔষধ দেওয়া হয়। এলাকার প্রাণীপালকগণ বি. এল.ডি.ও. সাহেবের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ গ্রহণ করে। উনি উপস্থিত মহিলাদের প্রাণীপালনে উৎসাহ প্রদান করেণ।

হাওড়ার শহরতলিতে প্রাণী স্বাস্থ্য সচেতনতা শিবির 2