উঠে আসছে আরেক দাদা! এবার রাজীবের নামে ব্যানার পোষ্টারে ছয়লাপ

284
উঠে আসছে আরেক দাদা! এবার রাজীবের নামে ব্যানার পোষ্টারে ছয়লাপ 1

নিজস্ব সংবাদদাতা : এক দাদাকে নিয়ে নাজেহাল শাসক দল। তার মধ্যে আর এক দাদার আবির্ভাব কে কেন্দ্র করে রীতিমতো তোলপাড় রাজ্য-রাজনীতি। পদত্যাগী মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী কে নিয়ে নিত্য নতুন জল্পনা আর সেই জল্পনা কে কেন্দ্র করে দলের ক্রমবর্ধমান অস্বস্তির মধ্যেই এবার যোগ হল রাজ্যের আর এক মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম। আরও একটু স্পষ্ট করে বললে, তৃণমূল -শুভেন্দু দ্বন্দ্বের পর এবার প্রকাশ্যে এলো তৃণমূল -রাজীব দ্বন্দ্ব।

ফলে বিধানসভা নির্বাচনের আগে ঘরে বাইরে উভয় দিক থেকে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের যে আরও কয়েকগুণ চাপ বাড়লো তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সোমবার মেদিনীপুর কলেজ মাঠের সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারী কে নিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো একটিও শব্দ খরচ না করে উল্টে যেভাবে ছত্রধর মাহাতোর প্রশংসা করেন তাতে রাজ্য রাজনীতিতে অন্য এক সমীকরণের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

উঠে আসছে আরেক দাদা! এবার রাজীবের নামে ব্যানার পোষ্টারে ছয়লাপ 2

তবে কি শুভেন্দু দলে আর থাকবে না ধরে নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জঙ্গলমহলে ছত্রধর মাহাতোর উপরই বেশি নির্ভরশীল হতে চাইছেন ? ছত্রধর মাহাতোকে ” তৃণমূলের চিরদিনের বন্ধু” বলেও এদিন উল্লেখ করেন মমতা। এদিকে তিনি যখন মেদিনীপুরের মাঠে বক্তৃতা করছেন তখন নন্দীগ্রামে দাদার অনুগামীদের রীতিমতো অফিস খুলে বসার খবর মিলেছে। যদিও নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু এদিন নন্দীগ্রামে ছিলেন না।

অন্যদিকে, রাজ্যের প্রশাসনিক ভবন নবান্নের সামনে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমর্থনে পোস্টার পড়ায় দলের অস্বস্তিও কয়েকগুণ বেড়েছে। খোদ নবান্নের সামনে অন্তর্দ্বন্দ্ব যেভাবে প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছে তাতে দলের ভাবমূর্তি যে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তা নিশ্চিত করেই বলা যায়। গত শনিবার টালিগঞ্জের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে দলীয় নেতৃত্বের প্রতি একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন রাজীব। সেই থেকে দলের সঙ্গে রাজীবের মনোমালিন্য প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছিল।

নবান্ন ছাড়াও হাওড়া ও কলকাতার বহু স্থানে তৃণমূলের প্রতীক ছাড়াই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুগামীরা রাজীবের ছবি দিয়ে পোস্টার ও ব্যানার টাঙিয়ে দিয়েছেন । ফলে শুভেন্দু কাঁটা গলায় বিঁধে থাকার মধ্যেই ফের রাজীব বিড়ম্বনায় শাসক দল। রাজীব অনুগামীদের লাগানো পোস্টারে পোস্টারে ছয়লাপ শহর কলকাতা। কোথাও লেখা — আমরা দাদার সেবক। কোথাও লেখা — আমরা রাজীব পন্থী। বাদ যায়নি শুভেন্দুর পোস্টারও। দক্ষিন বঙ্গ থেকে উত্তর বঙ্গ। প্রায় সর্বত্র।

সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার মেদিনীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভাস্থলের কাছেই। সভা শুরুর আগেই চোখে পড়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি লাগানো পোস্টারের কাছেই শুভেন্দু অধিকারীর পোস্টার সাঁটানো। যা নিয়ে রীতিমতো হৈচৈ পড়ে যায় সভাস্থলে হাজির শাসক দলের নেতা, কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে। সবমিলিয়ে তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব যে প্রকাশ্যে আরও বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে, তা আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না।