৩১ জানুয়ারি অমিত শাহের হাতেই তৃণমুলের অবসান! বললেন অর্জুন, বড় ফাটলের ইঙ্গিত মুকুল, শুভেন্দুর

1040
৩১ জানুয়ারি অমিত শাহের হাতেই তৃণমুলের অবসান! বললেন অর্জুন, বড় ফাটলের ইঙ্গিত মুকুল, শুভেন্দুর 1

নিউজ ডেস্ক: ধামাকা একটা হবেই কিন্তু সেটা কত বড় তাই নিয়ে দুশ্চিন্তা রয়েছে খোদ শাসক দলেও। বৃহস্পতিবার সেই দুশ্চিন্তা কিছুটা হলেও বাড়বে মুকুল রায় আর অর্জুন সিংহের দাবিতে। আগামী ৩০ তারিখ রাজ্য সফরে আসছেন অমিত শাহ আর অমিত শাহ মানেই ফের তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে কয়েকটি মাথার যোগদান।  অর্জুন সিং, মুকুল রায় আর শুভেন্দু অধিকারীর ইঙ্গিত এই পর্বে যে যোগদান হবে তাতে তৃনমূলের অবসান হবে। এর অর্থ দুটি হতে পারে প্রথমতঃ প্রচুর তৃনমূল বিধায়ক আর সাংসদ অমিত শাহের সভায় যোগ দেবেন। বাস্তবে এখুনি সেটা হবে বলে মনে হয়না। অন্তত ৩১তারিখে তো নয়ই। দ্বিতীয় যে সম্ভবনা থেকে যায় সেটা হল বড়সড় স্তরের এক বা একাধিক নেতার যোগদান যাঁদের কথা হয়ত তৃনমূল বা সাধারণ মানুষ ভাবতেই পারছেনা। তৃনমূলের দুশ্চিন্তার কারন হল তারা কারা?

৩১ জানুয়ারি অমিত শাহের হাতেই তৃণমুলের অবসান! বললেন অর্জুন, বড় ফাটলের ইঙ্গিত মুকুল, শুভেন্দুর 2

এখনও পর্যন্ত তৃনমূলের বা সাধারণ মানুষের ধারণার মধ্যে রয়েছে যে রাজীব ব্যানার্জী, প্রবীর ঘোষাল, বৈশালী ডালমিয়া, পার্থ সারথি চট্টোপাধ্যায়রা বিজেপিতে যাচ্ছেন। স্যোশাল মিডিয়ায় ঘুরছে সাংসদ প্রতিমা মন্ডল গেলেও যেতে পারেন। তালিকায় দক্ষিণ এবং উত্তর ২৪পরগনার তিন বিধায়কের নাম রয়েছে। কেউ কেউ একটু আগ বাড়িয়ে বলছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই কার্ত্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের যাওয়াটাও অসম্ভব নয়। কিন্ত এর বাইরে আর কারা কারা ৩১শে জানুয়ারি যেতে পারেন।

৩১ জানুয়ারি অমিত শাহের হাতেই তৃণমুলের অবসান! বললেন অর্জুন, বড় ফাটলের ইঙ্গিত মুকুল, শুভেন্দুর 3

বৃহস্পতিবার অর্জুন সিং সাংবাদিকদের বলেন, আগামী ৩১ জানুয়ারী অমিত শাহের সভায় তৃণমূলের অবসান ঘটবে। কিন্তু কারা কারা যোগ দেবেন তা নিয়ে কিছু বলেননি। ওইদিন হাওড়ার ডুমুরজলায় অমিত শাহের সভায় হাই প্রোফাইল কিছু তৃনমূল নেতা যোগ দিচ্ছে এটুকুই ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। বৃহস্পতিবার হাওড়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে দলের এক আহত কর্মীকে দেখতে এসেছিলেন অর্জুন।

গত ২৩ জানুয়ারি বেলুড়ের জি টি রোডে বিজেপি’র অবরোধ চলাকালীন যে হামলা হয়েছিল সেই হামলায় গুলিতে জখম প্রমোদ দুবেকে দেখতে হাওড়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে আসেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। এই হামলা প্রসঙ্গে অর্জুন বলেন, আমাদের কর্মীর যেভাবে গুলি লেগেছে, একটু শরীরের উপরে লাগলে কঠিন ছিল বাঁচানোর। সারা বাংলায় বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি। অপরাধীরা ঘুরছে। পুলিশ নিস্ক্রিয়। অর্জুন বলেছেন, এটা ঘটনা যে, “৩৪ বছরের হিংসাকে ছাপিয়ে গিয়েছে সাড়ে ৯ বছরের হিংসা।”

শুধু অর্জুন সিংহ নয়। জল্পনা বেড়েছে মুকুল রায় আর শুভেন্দু অধিকারীর মন্তব্য নিয়েও। এদিকে অমিত শাহের সফরে বিজেপিতে যোগদান নিয়ে মুকুল রায় ও শুভেন্দু অধিকারীর মন্তব্যে জল্পনা তৈরি হয়েছে। এদিন মুকুল রায় বলেছেন, আগামী ৩০-৩১ তারিখে একাধিক প্রতিষ্ঠিত নেতা বিজেপিতে যোগ দেবেন। কারা যোগ দেবেন, সেব্যাপারে কিছুই বলেননি তিনি। অন্যদিকে শুভেন্দু অধিকারী এদিন হুগলির কর্মসূচিতে গিয়ে বলেছেন, পরীক্ষিত এবং বিশ্বস্ত মুখ বিজেপি পতাকা হাতে নেবেন। তিনিও এব্যাপারে কোনও নাম বলতে রাজি হননি। তবে সেই দিনের দলবদলে একাধিক নাম এখন ঘুরপাক খাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Previous articleদলবিরোধী কথা বলতেই পুরষ্কার পেলেন উত্তরপাড়ার তৃণমূল নেতা, রাতারাতি দাদার অনুগামী পোস্টারে ছেয়ে গেল কোন্নগর
Next articleশেষ হল ২দিন ব্যাপী বালি-জগাছায় দু’দিনের প্রাণীসম্পদ বিকাশ মেলা