পরস্পর দুই কর্মসূচিকে ঘিরে আসানসোলে অশান্তি, আগুন, গুলিবিদ্ধ ২জন! আক্রান্ত বিজেপি, অভিযুক্ত শাসকদল

344
পরস্পর দুই কর্মসূচিকে ঘিরে আসানসোলে অশান্তি, আগুন, গুলিবিদ্ধ ২জন! আক্রান্ত বিজেপি, অভিযুক্ত শাসকদল 1

অশ্লেষা চৌধুরী:  রাজনৈতিক আশান্তির আগুন ছড়ালো এবার আসানসোলে। আসানসোলের বারাবনির জামগ্রামে বিজেপির ‘আর নয় অন্যায়’ মিছিলে হামলার অভিযোগ উঠল শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। বোমাবাজি ও গুলি চলেছে বলেও অভিযোগ। ভাঙচুর হয় মোটরবাইক, ঘটনায় আহত বেশ কয়েকজন। যার মধ্যে বিজেপির দুই কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে দাবি করেছে বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপি কর্মীদের বেশ কয়েকটি মোটরবাইকও পুড়িয়ে দেওয়া হয় বলেও দাবি করা হয়েছে। গুলিতে আহত হন বিজেপি কর্মী স্বপন বাউড়ি ও সাধন রাউত, তাদের বিজেপির জেলা সভাপতি লক্ষণ ঘোড়ুইয়ের গাড়িতে করে জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। মিছিল শুরু হওয়ার আগেই এই হামলা। অভিযোগের তির তৃণমূল আশ্রতি দুষ্কৃতিদের বিরূদ্ধে। অভিযোগ অস্বীকার তৃণমূলের।

জানা যায়, এদিন বারাবনির জামগ্রাম থেকে কাপিসটা পর্যন্ত বিজেপির মিছিল কর্মসূচি ছিল। তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে ‘আর নয় অন্যায়’ নামে বিজেপি নেতৃত্বের কর্মসূচিতে হওয়ার কথা ছিল মিছিলটি। তার জন্য সকাল থেকে কর্মী, সমর্থকরা জমায়েত হয়েছিলেন জামাগ্রামে। কিন্তু মিছিল শুরুর আগেই বিজেপি কর্মী,সমর্থকদের উপর চলে দুষ্কৃতী হামলা। বিজেপির জেলা সভাপতির দাবী, এই হামলার পিছনে রয়েছে তৃণমূলের ইন্ধন রয়েছে। বিজেপি জেলা সভাপতি লক্ষ্মণ ঘোড়ুই বলেন, ‘আর নয় অন্যায়’কে সামনে রেখে আজকে বারাবনির জামগ্রামে মিছিল ও বাড়ী বাড়ী প্রচার শুরু হওয়ার আগেই তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনী লাঠি-বন্দুক নিয়ে তাড়া করে।’ এতে বিজেপির প্রায় ৭/৮জন কর্মী আহত হয়েছেন বলে বলেন বিজেপির জেলা সভাপতি লক্ষ্মন ঘোড়ুই।

পরস্পর দুই কর্মসূচিকে ঘিরে আসানসোলে অশান্তি, আগুন, গুলিবিদ্ধ ২জন! আক্রান্ত বিজেপি, অভিযুক্ত শাসকদল 2

অন্যদিকে, বারাবনি তৃণমূল নেতৃত্বের দাবী, জামগ্রাম এলাকায় ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচিতে শিবির করেছিলেন দলীয় কর্মীরা। স্থানীয়রা সকলে যাতে সরকারি পরিষেবা পান, তা নিশ্চিত করতে গ্রামবাসীদের নানা বিষয়ে সাহায্য করা হচ্ছিল শিবির থেকে। তা ভেস্তে দিতে হঠাৎ করেই মিছিলের নাম করে বিজেপি আগে হামলা চালায় তৃণমূলের উপর। ব্লক তৃণমূল সভাপতি অসিত সিংয়ের দাবী, তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলা চালিয়েছে বিজেপি। তারাই ঝাড়খণ্ড থেকে দুষ্কৃতিদের জড়ো করে বোমা-গুলি চালিয়েছে। আর যেসব গাড়ি পুড়েছে, তা তৃণমূল সমর্থকদেরই।

এই বিষয়ে বারাবনির বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় বলেন, ‘আমাদের গত কয়েকদিন থেকে ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্পের কর্মসূচি চলছে। আজকে এই কর্মসূচি জামগ্রাম পঞ্চায়েত ও পানুড়িয়া পঞ্চায়েত আছে। আর আজকে বিজেপি মিছিল করার নাম করে মানুষের উপর তান্ডব চালায়। এই ঘটনা নিন্দনীয়। বারাবনিকে অশান্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। বোমবাজি, গুলি চালিয়েছে। একজন দলের কর্মীর গুলি লেগেছে এবং আসানসোল জেলা হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন।’ এদিকে এই ঘটনার খবর পেতেই বারাবনি থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ছুটে এসে উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এলাকাতে বিরাজ করছে চাপা উত্তেজনা।