অন্যের পড়ে যাওয়া ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা তুলে ধৃত গৃহবধূ, লজ্জায় আত্মঘাতী স্বামী

90

নিজস্ব সংবাদদাতা: রাস্তায় একটি কুড়িয়ে পাওয়া ক্রেডিট কার্ড থেকে ৯৬ হাজার টাকা তুলে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন গৃহবধূ। আর সেই লজ্জায় আত্মঘাতী হলেন স্বামী।  বৃহস্পতিবার দুপুরে পুর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার থানার ভাতার গ্রামে বাড়ি থেকেই সুদেব মাজি(৪৭) ওরফে তনা নামে ওই ব্যক্তির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। দেহটি এদিনই ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। ভাতার বাজারের সারদাপল্লির বাসিন্দা এক ব্যক্তি কিছুদিন আগেই  ভাতার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে জানান যে, নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি তাঁর ক্রেডিট  কার্ডটি খোয়া গেছে। পরে অ্যাকাউন্ট পরীক্ষা করে তিনি জানতে পারেন দেখেন তার আ্যকাউন্ট থেকে ৯৬ হাজার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। ভাতার থানার অভিযোগ দায়ের করা হলে শুরু হয় তদন্ত।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পুলিশ ব্যাংকের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যে জানতে পারে যে , ভাতার বাজারের একটি এটিএম থেকে ওই টাকা তিনটি ধাপে তুলে নেওয়া হয়েছে গত ১৪ থেকে ১৬ নভেম্বরের মধ্যে। তারপর পুলিশ ওই এটিএমের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে। সেই ফুটেজ দেখে পুলিশ ভাতার বাজার সংলগ্ন কুলচন্ডা গ্রামের এক যুবককে চিহ্নিত করে। তাকে ওই নির্দিষ্ট সময়ে টাকা তুলতে দেখা যায়। সন্দেহভাজন যুবককে সোমবার রাতে পুলিশ ডেকে পাঠিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

আরও পড়ুন -  খড়গপুরে কাঁপিয়ে গরম, ঝাঁপিয়ে বৃষ্টি মেদিনীপুরে, এখনও উজ্জ্বল বৃষ্টির সম্ভবনা

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
যুবকটি জানায় তার বন্ধুর কাকিমা ভাতার গ্রামের বাসিন্দা পাপিয়া মাজি তাকে এটিএমের কার্ডটি দিয়ে টাকা তুলে দিতে অনুরোধ করাতে সে ওদিন টাকা তুলে দিয়েছে। পুলিশ পাপিয়া মাজিকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি স্বীকার করেন, কুড়িয়ে পাওয়া ওই এটিম থেকে তিনি তিন ধাপে ৯৬ হাজার টাকা তুলেছেন। তারপর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। আদালতে পাঠানো হলে ধৃত পাপিয়াদেবীকে তিনদিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন -  করোনার কাছে হেরে গেলেন ভারতের প্রথম কোভিড কমাডেন্ট অনিল কোহলি, ৫২ বছরেই থেমে গেল যুদ্ধ, আক্রান্ত স্ত্রী ও চালক

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পরে বুধবার ধৃত মহিলাকে নিয়ে তার বাড়িতে ওই এটিএম কার্ডটি উদ্ধারের জন্য যায় পুলিশ। তখন ধৃত মহিলা জানান, তিনি টাকা তুলে নেওয়ার পর কার্ডটি বাড়ির পাশে পুকুরে ফেলে দিয়েছেন। পুকুরে তল্লাশি চালায় পুলিশ। তা দেখতে ভিড় জমান স্থানীয়রা। পুলিশ বাড়িতে তল্লাশি চালানোর পর থেকেই ধৃতের স্বামী সুদেববাবু মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন।

আরও পড়ুন -  খড়গপুর ১০দিন পরে আক্রান্তহীন, বৃহস্পতিবার স্বস্তিতে শহর, দম নিলেন পুলিশ কর্মীরা

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
বৃহস্পতিবার দুপুরে পাশের এক প্রতিবেশীর নজরে পড়ে ঘরের মধ্যে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলছেন সুদেববাবু। তাঁকে উদ্ধার করে ভাতার গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, অপমানে আত্মঘাতী হয়েছেন ওই ব্যক্তি। সাধারনত শুধুই কার্ড দিয়ে টাকা তোলা যায়না কারন পিন কোডের দরকার হয়। তবে যদি ‘ভিসা’ কার্ড থাকে তবে পিনকোড প্রয়োজন হয়না। এক্ষেত্রে ঠিক তাই হয়েছে।