কাঁথিতে সৌমেন্দুর গাড়িতে হামলা; গুঁড়িয়ে দেওয়া হল গাড়ির কাঁচ, জখম গাড়ির চালক, বাঁচলেন সৌমেন্দু

384
কাঁথিতে সৌমেন্দুর গাড়িতে হামলা; গুঁড়িয়ে দেওয়া হল গাড়ির কাঁচ, জখম গাড়ির চালক, বাঁচলেন সৌমেন্দু 1

নিউজ ডেস্ক: পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে শুভেন্দু অধিকারীর ভাই সৌমেন্দু অধিকারীর গাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। আধলা ইঁট মেরে ভেঙে দেওয়া হল গাড়ির কাঁচ। ঘটনায় গুরুতর আহত সৌমেন্দুর গাড়ির চালক। তবে সেই সময় সৌমেন্দু গাড়িতে না থাকায় তিনি রক্ষা পেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে কাঁথির সাবাজপুরে।

সৌমেন্দুর গাড়ির সামনের কাঁচ ইট ছুড়ে ভেঙে দেওয়া হয়েছে। পেছনের কাঁচ সম্পূর্ণ ভেঙে গিয়েছে। গাড়ির একাধিক জায়গায় ইঁট-পাথর মারা হয়েছে বলে খবর। পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর তৎপরতায় দ্রুত সৌমেন্দু অধিকারীকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সাবাজপুর এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের কড়া নজরদারিতে চলছে ভোটগ্রহণ।

কাঁথিতে সৌমেন্দুর গাড়িতে হামলা; গুঁড়িয়ে দেওয়া হল গাড়ির কাঁচ, জখম গাড়ির চালক, বাঁচলেন সৌমেন্দু 2

সৌমেন্দু অধিকারীর অভিযোগ, সাবাজপুর বুথে রিগিং করছিল তৃণমূল। সে কারণেই আমি বুথের ভেতরে গিয়েছিলাম। সেখানে যেতেই গাড়িতে হামলা চালানো হয়। তিনি আরও বলেন, সাধারণ মানুষ যাতে শান্তিতে ভোট দিতে পারে সেই জন্য কমিশনকে জানিয়েছি গোটা বিষয়টি। আর সেই রাগ থেকেই আমার গাড়িতে হামলা চালায় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী–সমর্থকরা। সেখানকার স্থানীয় ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতির নেতৃত্বে হামলা চালানো হয় আমার গাড়িতে। গাড়ির চালকের চোখের আঘাত বেশ গুরুতর। রাজনৈতিক ভাবে লড়াই করতে না পেরে তৃণমূল এখন আমাদের উপর হামলা চালাচ্ছে।’

সৌমেন্দু আরও বলেন, ‘ভোটারদের প্রভাবিত করা হচ্ছে। ১৪৯ নম্বর বুথে ভোট প্রক্রিয়া বন্ধ করা হয়েছে। এছাড়া শান্তিপূর্ণ ভাবেই ভোট চলছে। কয়েকটি জায়গায় ইভিএম কাজ করছে না। নির্বাচন কমিশন গোটা বিষয়টি দেখছে।’ সৌমেন্দু বলেন, ‘সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের জন্য আমরা কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছি। তৃণমূল ভয় পেয়েছে।’

ঘটনায় সৌমেন্দুর গাড়ির চালকের আঘাত লেগেছে গুরুতর। চোখে আঘাত লেগেছে তার। গাড়ির চালকের অভিযোগ, গাড়িতে পাথর দিয়ে আঘাত করা হয়। তাঁকে মারধর করা হয়। তৃণমূলের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তিনি। গাড়ি থেকে নেমে সৌমেন্দু ভোট কেন্দ্রের দিকে যাওয়ার পরই হামলা চালানো হয় বলে তিনি অভিযোগ করেন।

প্রসঙ্গত, শনিবার রাজ্যে প্রথম দফার নির্বাচন শুরু হতেই সকাল থেকে একাধিক জায়গা থেকে অশান্তি ছড়িয়ে পড়ার খবর আসতে থাকে। কথায় বুথ জ্যাম, কোথাও ভোতদানে বাধা ইত্যাদিন। এদিন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মাজনা এলাকায় কাঁথি দেপাল রাজ্য সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন গ্রামবাসী। ১৭১ নং বুথে বিক্ষোভ। এখনও উত্তপ্ত এলাকা। ঘটনাস্থলে যায় বিশাল পুলিশ বাহিনী। গড়বেতার হেতোশোলে ২২৬ নম্বর বুথে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। ভগবানপুরের ভূপতিনগরে বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূল কর্মীদের মারধরের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ, তাঁদের মেরে বুথের বাইরে বের করে দেওয়া হয়েছে।