বীরভূমে সমর্থকরা আক্রান্তের দিনই মুর্শিদাবাদে হামলা দিলীপ ঘোষের কনভয়ে, অভিযোগ তৃণমূলের দিকেই

235
Advertisement

অশ্লেষা চৌধুরী: বীরভূম জেলার সিউড়িতে দিলীপ ঘোষের জনসভায় যেতে সমর্থকদের বাধা দিতে তাদের ওপর হামলার পর এবার বহরমপুর যাওয়ার পথে আক্রান্ত স্বয়ং দিলীপ। অভিযোগ এবারও তৃণমূল দুষ্কৃতিদের হামলার শিকার হলেন দিলীপ ঘোষ। এর আগে বহুবার তাঁর উপর হামলা করার চেষ্টা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। এবার তাঁর কনভয়ের উপর প্রাণঘাতী হামলা চালালো তৃণমূলের দুষ্কৃতিরা।

Advertisement

জানা যায়, বুধবার মুর্শিদাবাদের কান্দি থেকে তিনি বহরমপুর যাচ্ছিলেন সাংগঠনিক কাজে। রাস্তায় পুরন্দরপুরে তাঁর কনভয়ের উপর হামলা করে তৃণমূল দুষ্কৃতীরা। তিনি শারীরিকভাবে অক্ষত থাকলেও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে দিলীপ ঘোষের কনভয়ে থাকা গাড়িগুলির। গাড়িগুলির কাঁচ ভেঙে দেওয়া হয় ও ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। ধারালো লোহার অস্ত্র দিয়ে এই হামলা চালানো হয় বলেই জানা গিয়েছে। পুলিশের সামনেই চলে এই হামলা। যদিও হামলা চলাকালীন নিষ্ক্রিয় ভূমিকা পালন করে পুলিশ, বলেই অভিযোগ।

Advertisement
Advertisement

উল্লেখ্য, আজ পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী বুধবার বীরভূম সফরে এসে হাজির হন বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সকাল সকাল প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে জনসংযোগ কর্মসূচিও সারেন তিনি। তারপরেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজ্য সরকার সহ বিরোধী দলগুলোকে নিশানা করেন দিলীপ বাবু। এরপর সিউড়িতে জেলা স্কুল মাঠে রাজনৈতিক সভা ছিল বঙ্গ বিজেপি সভাপতির। ছিল আরও নানান কর্মসূচি। সেখানেই যোগ দিতে যাচ্ছিলেন অভিজিৎ মণ্ডল নামে এক বিজেপি কর্মী। বোলপুর থানা বাহিরী পাঁচশোয়া পঞ্চায়েতের শিমুলিয়া মোড়ে এই ঘটনাটি ঘটেছে। গুলিবিদ্ধ দুইজন বর্তমানে স্থানীয় সিয়ান হাসপাতালে ভর্তি, তাদের পাজরে গুলি লেগেছে। স্থানীয়রা উদ্ধার করে নিয়ে যান হাসপাতালে। এছাড়া খয়রাশোল-শিমুলিয়ায় রাস্তার উপর বিজেপি কর্মীদের বেশ কয়েকটি বাস আটকে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ।

অভিযোগের তীর স্থানীয় তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের দিকে। অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় বোলপুর থানার পুলিশ। তুমুল অশান্তি ছড়ায় এই ঘটনা ঘিরে। দিলীপ ঘোষ নিজে এ বিষয়ে জানিয়েছেন, ”সিউড়িতে এই বাধা স্বাভাবিকই ছিল। তবে এখান থেকেই শুরু হবে ঘুরে দাঁড়ানো। তৃণমূলকে বাংলা থেকে হঠিয়ে বিজেপিই ক্ষমতায় আসবে।” বিজেপির আনা অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে জেলা তৃণমূলের কো-অর্ডিনেটর অভিজিৎ সিংহ জানান, ”এর সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই। গোটাটাই বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। পুলিশ তদন্ত করুক। অভিযুক্তরা ধরা পড়লেই সবটা স্পষ্ট হবে।”

তবে এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই স্বয়ং দিলীপ ঘোষের কনভয় লক্ষ্য করে করা হল আক্রমণ। তিনি অক্ষত থাকলেও বেশ কয়েকটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।