এবার নকশালবাড়িতে থামবে বালুরঘাট-শিলিগুড়ি ইন্টারসিটি, উদ্বোধন হল রাজুর হাত ধরেই

194
Advertisement

নিউজ ডেস্ক; শিলিগুড়ি, ১৬ ফেব্রুয়ারি: সরস্বতী পুজোর দিন চালু হল নতুন রেল পরিষেবা। মঙ্গলবার নকশালবাড়িতে বালুরঘাট-শিলিগুড়ি ইন্টারসিটি স্পেশাল ট্রেন স্টপেজের উদ্বোধন করলেন দার্জিলিং লোকসভা (বিজেপি) সাংসদ রাজু বিস্ট।

Advertisement

মূলত, নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনে যানজট ও ভিড় এড়াত এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি বাগডোগরা স্টেশনে কাঞ্চনকন্যা এক্সপ্রেসের স্টপেজও এদিন ঘোষণা করা হয়। এদিন সাংসদ রাজু বিস্ট বলেন, ‘এই উদ্যোগে আমায় সাহায্য করেছেন রেলমন্ত্রী পীযুষ গোয়েল। এই দুটি স্টপেজ উদ্বোধন করার উদ্দেশ্য, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বন্ধন আরও মজবুত করা। এছাড়া নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনে রোজকার যানজট এড়ানো। এতে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবেন।’

Advertisement
Advertisement

উল্লেখ্য এর আগেই রেল বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে ৪ জোড়া ট্রেন শিলিগুড়ি জংশন-নকশালবাড়ি-ঠাকুরগঞ্জ-আলুয়াবাড়ি রুট হয়ে যাবে। এই ট্রেন দুটি হল They are 13149/50 কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস, 13145/46 নিউজলপাইগুড়ি-রাজেন্দ্র নগর টার্মিনাল(পাটনা) ক্যাপিটেল এক্সপ্রেস, 13247/48 কামাখ্যা-রাজেন্দ্র নগর টার্মিনাল(পাটনা) ক্যাপিটেল এক্সপ্রেস এবং 15483/84 আলিপুর দুয়ার –দিল্লি মহানন্দা এক্সপ্রেস। নকশালবাড়ির পাশাপাশি এই ৪ জোড়া ট্রেন বাগডোগরা এবং বিহারের ঠাকুরগঞ্জেও স্টপেজ দেবে।

এরফলে শিলিগুড়ির বাসিন্দাদের এবার থেকে উত্তরপূর্ব ভারত কিংবা কলকাতা, দিল্লি, পাটনা যাওয়ার জন্য নিউ জলপাইগুড়ি, আলুয়াবাড়ি কিংবা ববিহারের কিষানগঞ্জে যেতে হবেনা। সাংসদের দাবি, এলাকার মানুষের দাবি অনুযায়ী তিনি বারংবার বিষয়টি সংসদ ও রেলমন্ত্রীর কাছে দরবার করেছিলেন। এই স্টপেজ চালু হয়ে যাওয়ায় এখানকার মানুষদের সময় ও টাকার সাশ্রয় হবে।

বিস্টা বলেন, ‘আমি রেলমন্ত্রীকে জানিয়েছিলাম যে বাগডোগরা এবং তার আশেপাশের এলাকা যেমন শিবমন্দির, নকশালবাড়ি, ফাঁসিদেওয়া, বিধাননগর এমনকি বিহারের ঠাকুরগঞ্জের লোকেরা প্রচন্ড সমস্যার মধ্যে ছিলেন কারন তাঁদের নিউ জলপাইগুড়ি অথবা কিষানগঞ্জ দৌড়াতে হয়। এতে শুধু টাকা খরচ করে অনর্থক দূরের যাত্রা করতে হয় তাই নয় যানজট ও দূষণের মাত্রাও যথেষ্ট বাড়ছিল। I

ভারতীয় রেলের একটি সূত্র বলছে শুধুই যাত্রী পরিষেবার জন্য নয় তাঁদের লক্ষ্য এই রুটে পণ্য পরিবহন বাড়িয়ে লকডাউনের সময় যে লোকসান হয়েছে তা পূরণ করার লক্ষ্যেও এই স্টপেজ গুলি চালু করা হয়েছে। শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস অবশ্য বিষয়টির পেছনে ভোটের রাজনীতির গন্ধ পাচ্ছে।

.