ফের লকডাউনের সিদ্ধান্ত উত্তর ২৪ পরগণায়, দাবি উড়িয়ে গুজবে কান দিতে বারন জেলাশাসকের

199
ফের লকডাউনের সিদ্ধান্ত উত্তর ২৪ পরগণায়, দাবি উড়িয়ে গুজবে কান দিতে বারন জেলাশাসকের 1

ওয়েব ডেস্ক : রাজ্যে করোনা সংক্রমণে এই মূহুর্তে শিখরে উত্তর ২৪ পরগণা। যত দিন যাচ্ছে মারণ ভাইরাসের থাবা ক্রমশ চওড়া হচ্ছে। এর মধ্যেই দিন কয়েক ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি খবর ঘোরাফেরা করতে দেখা যাচ্ছে। তাতে লেখা উত্তর ২৪ পরগণায় ফের ১৪ দিনের লকডাউন শুরু হচ্ছে৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ধরণের পোস্ট দেখে স্বাভাবিকভাবেই নেটিজেনদের মধ্যে ফের লকডাউন নিয়ে জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে। এরি মাঝে মঙ্গলবার উওর ২৪ পরগণার জেলাশাসক চৈতালী চক্রবর্তী স্পষ্ট জানিয়ে দেন। সংক্রমণ রুখতে এই মূহুর্তে ফের লকডাউনের কোনও পরিকল্পনা নেই জেলা প্রশাসনের। তিনি সকলের উদ্দেশ্যে অযথা গুজবে কান না দেওয়ার অনুরোধ করেন। পাশাপাশি জেলা শাসক জানান, এই ধরণের ভিডিও প্রকাশ করে একধরণের অসাধু মানুষ মানুষজনকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে।

আরও পড়ুন -  করোনার মধ্যেই ভয়াবহ দুর্ঘটনা বিশাখাপত্তনমে গ্যাস কারখানার গ্যাস লিক করে মৃত অন্তত ৮,অসুস্থ ৫ হাজার

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ওই ভিডিয়োটিতে দাবি করা হয়েছে, যেহেতু এই মূহুর্তে উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হচ্ছে না৷ সেকারণে ফের এই জেলায় লকডাউন শুরুর ভাবনা চিন্তা করছে প্রশাসন। শীঘ্রই প্রশাসনের তরফে এই জেলায় ১৪ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করা হবে। এই ভিডিও নজরে আসার পর পরই মঙ্গলবার উত্তর ২৪ পরগনার জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী জানিয়েছেন, “প্রশাসনের কাছে এমন কোনও প্রস্তাব এখনো আসেনি। উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় লকডাউন জারির কোনও সম্ভাবনা নেই। কোনও অসাধু চক্র এই গুজব ছড়াচ্ছে। গুজবে কান দেবেন না।”

ফের লকডাউনের সিদ্ধান্ত উত্তর ২৪ পরগণায়, দাবি উড়িয়ে গুজবে কান দিতে বারন জেলাশাসকের 2

এদিকে এই ভিডিও-র পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষজ্ঞদের দাবি, অনলক ৪-এ রাজ্য সরকারের তরফে বর্তমানে শুধুমাত্র কনটেনমেন্ট জোনেই লকডাউন করার অধিকার রয়েছে। যদি কোনো জেলায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়, সেক্ষেত্রে গোটা জেলায় লকডাউন করতে গেলে লাগবে কেন্দ্রের অনুমতি নেওয়া বাধ্যতামূলক। ফলে রাজ্য সরকার কিংবা জেলা প্রশাসনের একার সিদ্ধান্তে কোনোভাবেই পুনরায় গোটা রাজ্যে কিংবা কোনও একটি জেলায় লকডাউন করা সম্ভব নয়। প্রসঙ্গত, বর্তমানে করোনা সংক্রমণ যে হারে বাড়ছে তাতে গোটা রাজ্যের মধ্যে কলকাতার পরেই উত্তর ২৪ পরগনার স্থান। তবে শুধু মাত্র সংক্রমণ নয়, একই সাথে পাল্লা দিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর হারও। কোনোভাবেই এই জেলার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না৷ ফলে স্বাভাবিকভাবেই এই জেলা নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন রাজ্য প্রশাসন।