দুয়ারে সিবিআই যাওয়ার আগেই ভাইপোর দুয়ারে মুখ্যমন্ত্রী! আট পাতার প্রশ্ন তালিকা নিয়ে রুজিরাকে জেরা করতে হাজির কেন্দ্রীয় তদন্ত আধিকারিক

758
দুয়ারে সিবিআই যাওয়ার আগেই ভাইপোর দুয়ারে মুখ্যমন্ত্রী! আট পাতার প্রশ্ন তালিকা নিয়ে রুজিরাকে জেরা করতে হাজির কেন্দ্রীয় তদন্ত আধিকারিক 1
দুয়ারে সিবিআই যাওয়ার আগেই ভাইপোর দুয়ারে মুখ্যমন্ত্রী! আট পাতার প্রশ্ন তালিকা নিয়ে রুজিরাকে জেরা করতে হাজির কেন্দ্রীয় তদন্ত আধিকারিক 2

অশ্লেষা চৌধুরী: ভাইপো অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) বাড়ির দুয়ারে সিবিআইয়ের তদন্তকারী আধিকারিকরা পৌঁছানোর আগেই তাঁর দুয়ারে পৌঁছে গেলেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা অভিষেক জায়ার পিসিশাশুড়ি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সব মিলিয়ে এক টানটান উত্তেজনা শান্তিনিকেতনের সামনে হরিশ মুখার্জী রোডে। এদিন আচমকাই অভিষেকের বাড়ীতে উপস্থিত হন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন ১১টা ২৪ মিনিটে ঢুকে ১১ টা ৩৩ মিনিটে বেরিয়ে যান মমতা। ৯ মিনিট তিনি সেখানেই থাকেন। আর মমতা বেরোনোর ঠিক ৩ মিনিট পরেই অভিষেকের বাড়ীতে পৌঁছে যান সিবিআই কর্তারা। শুরু হয়েছে অভিষেক পত্নী রুজিরাকে জিজ্ঞাসাবাদ পর্ব।

 

দুয়ারে সিবিআই যাওয়ার আগেই ভাইপোর দুয়ারে মুখ্যমন্ত্রী! আট পাতার প্রশ্ন তালিকা নিয়ে রুজিরাকে জেরা করতে হাজির কেন্দ্রীয় তদন্ত আধিকারিক 3

সিবিআই সূত্রে খবর, রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৮ সদস্যের দল গঠন করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তৈরি করা হয়েছে ৮ পাতার প্রশ্ন তালিকা। মূলত ব্যাঙ্ককের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত তথ্য জানতে চাওয়া হবে রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের লেনদেন সংক্রান্ত কপি দেখিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও, জানতে চাওয়া হবে রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাগরিকত্ব নিয়ে। তাঁর কটি পাসপোর্ট রয়েছে, অভিষেক-পত্নী কোনও রেজিস্টার্ড সংস্থার সঙ্গে যুক্ত কিনা, কোনও সংস্থার পদাধিকারী কিনা এও জানতে চাওয়া হবে।

 

রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিবিআইয়ের ৮ সদস্যের তদন্তকারী দলের নেতৃত্বে থাকছেন এসপি পদমর্যাদার অফিসার বিশ্বজিৎ দাস। এছাড়াও অ্যাডিশনাল এসপি পদমর্যাদার তদন্তকারী অফিসার উমেশ কুমার সহ এই দলে থাকছেন ডিএসপি পদমর্যাদার দুই মহিলা অফিসার।

 

রবিবাসরীয় দুপুরে অভিষেকের কালীঘাটের বাড়ীতে পৌঁছে যায় সিবিআই টিম। কয়লা কাণ্ডে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চেয়ে নোটিশ দেয় সিবিআই। সিবিআই সূত্রে খবর, রুজিরার অ্যাকাউন্টে একাধিক সন্দেহজনক লেনদেন করা হয় এবং এদিনই অভিষেকের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় সিবিআই। কিন্তু বাড়ী থেকে জানানো হয় রুজিরা বাড়ীতে নেই। ফোন নম্বর দিয়ে রুজিরাকে যোগাযোগ করতে বলা হয় সেই সময়। এরপর সোমবার সিবিআই আধিকারিক দের তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে ৩টে পর্যন্ত রুজিরা নারুলা সময় দিয়েছেন বলে সিবিআই সূত্রে খবর। জানা গিয়েছে, তদন্তকারী অফিসার উমেশ কুমারকে উদ্দেশ্য করে রুজিরা লিখেছেন, কেন তাঁকে নোটিস দেওয়া হল তা তাঁর জানা নেই। তবে, সকাল ১১ থেকে ৩টের মধ্যে বাড়ীতে এসে বয়ান রেকর্ড করা যেতে পারে।

 

সেই মতই এদিন ১১টা ৪০ নাগাদ সিবিআই আধিকারিকেরা পৌঁছে যান অভিষেকের শান্তিঙ্কেতনের বাড়ীতে। শুরু হয়ে গিয়েছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ, খুব শীঘ্রই মূল পর্বে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হবে বলে সূত্রের খবর। কিন্তু এদিন সবচেয়ে বেশি চমক ছিল সিবিআই আসার ঠিক আগ মুহূর্তে অভিষেকের বাড়ীতে মুখ্যমন্ত্রী মমতার আগমন। সেই ক্ষণ যেন কোনও হিন্দি সিনেমার টানটান উত্তেজনা পূর্ণ অনুভূতি সৃষ্টি করে, কারণ রাজ্য রাজনীতিতে এমন দৃশ্য প্রায় বিরল। তবে অভিষেকের বাড়ীতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কী কথা হয়েছে, সে ব্যাপারে জানা যায়নি সঠিক ভাবে। মনে করা হচ্ছে আশ্বাস দেওয়ার জন্যই তাঁর এই হঠাৎ আগমন। পূর্বে রাজীব কুমারের সময় দেখা গিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী ধর্নায় বসে গিয়েছিলেন, এবারের পরিস্থিতি কোন দিকে মোড় নেয়, এখন সেটাই দেখার।