দ্বিতীয় দফা ভোটের আগে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নজির বিহীন নির্দেশ কমিশনের! প্রয়োজনে গুলি চালাতে পারবে তারা

626
দ্বিতীয় দফা ভোটের আগে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নজির বিহীন নির্দেশ কমিশনের! প্রয়োজনে গুলি চালাতে পারবে তারা 1

নিউজ ডেস্ক: দরকার হলে দ্বিতীয় দফায় কেন্দ্রীয় বাহিনীকে গুলি চালানোর নির্দেশ কমিশনের। ভবিষ্যতে যদি কেন্দ্রীয় বাহিনীর ওপর হামলা হয়, তাহলে আত্মরক্ষার স্বার্থে যা ব্যবস্থা নেওয়ার বাহিনী নেবে। প্রয়োজনে গুলিও চালাতে পারে বাহিনী। এমনই কড়া

নির্দেশ দিল কমিশন।

দ্বিতীয় দফা ভোটের আগে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নজির বিহীন নির্দেশ কমিশনের! প্রয়োজনে গুলি চালাতে পারবে তারা 2

সূত্রের খবর, নির্বাচন কমিশনের তরফে স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে, কোনওভাবেই কোনও ধরনের ঝামেলা-অশান্তি সহ্য করা হবে না। কেন্দ্রীয় বাহিনীর ওপর হামলা হলে বাহিনীও চুপ করে বসে থাকবে না।

কমিশন পটাশপুরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর আহত হওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ। ২৬ মার্চ রাতে পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুরের আড়গোয়াল গ্রামে দুষ্কৃতিদের ছোঁড়া বোমায় আহত হন পটাশপুর থানার ওসি দীপক চক্রবর্তী। বোমার আঘাতে গুরুতর জখম হন কেন্দ্রীয় বাহিনীর এক জওয়ানও। সূত্রের খবর, সেই ঘটনার পরই নির্বাচন কমিশন কড়া নির্দেশ দিয়েছে। কোনও সমস্যা হলেই আত্মরক্ষার জন্য গুলি চালাতে পারে কেন্দ্রীয় বাহিনী। বাহিনীকে এমনই বেনজির অনুমতি দিল নির্বাচন কমিশন।

উল্লেখ্য, ১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফার ভোট। দ্বিতীয় দফায় গোসাবা, পাথরপ্রতিমা, কাকদ্বীপ, সাগর, তমলুক, পাঁশকুড়া পূর্ব, পাঁশকুড়া পশ্চিম, ময়না, নন্দকুমার, মহিষাদল, হলদিয়া, নন্দীগ্রাম, চণ্ডীপুর, খড়্গপুর সদর, নারায়ণগড়, সবং, পিংলা, ডেবরা, দাসপুর, ঘাটাল, চন্দ্রকোনা, কেশপুর, তালডাংরা, বাঁকুড়া, বড়জোড়া, ওন্দা, বিষ্ণুপুর, কোতলপুর, ইন্দাস, সোনামুখীতে ভোট রয়েছে।

এদিকে দ্বিতীয় দফার ভোটে মোতায়েন থাকবে ৬৫১ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। এরমধ্যে পশ্চিম মেদিনীপুরে ২১০ কোম্পানি।পূর্ব মেদিনীপুরে ১৯৯ কোম্পানি। বাঁকুড়ায় ১৭০ কোম্পানি। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৭২ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েন করা হচ্ছে। দ্বিতীয় দফার ভোটে সবচেয়ে নজরকাড়া কেন্দ্র পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম। এখান থেকেই লড়ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর শুভেন্দু অধিকারী। প্রতিদ্বন্দ্বিতায় লাইনে রয়েছেন বাম প্রার্থী মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়ও। এই হাইপ্রোফাইল কেন্দ্রের ৩৪১ টি বুথের নিরাপত্তায় থাকছে ২১ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। অশান্তি এড়াতে এখানে আরও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে পুলিশকে।

প্রসঙ্গত,পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুরে প্রথম দফার ভোটের আগের দিনের প্রবল বোমাবাজি হয়। স্পর্শকাতর এলাকায় টহলদারি চলাকালীন বোমাবাজিতে গুরুতর আহত হন পটাশপুর থানার ওসি। একইসঙ্গে গুরুতর জখম হন আধাসেনার এক জওয়ানও। অভিযোগ, টহল দেওয়ার সময় পুলিসের গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ে দুষ্কৃতিরা। যে ঘটনায় বিজেপি-তৃণমূল একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলে। কমিশন সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই এবার দ্বিতীয় দফার আগে কড়া নির্দেশ দিল।

তবে কমিশনের এই নজিরবিহীন নির্দেশে দ্বিতীর দফার ভোটের আগে একটা প্রশ্ন উঠছেই। এর ফলে সাধারণ ভোটাররা আরও আতঙ্কিত বোধ করবেন না তো? এমনিতেই রাজ্য রাজ্যনীতিতে প্রথম দফার ভোট শেষ হতেই আরও পারদ চড়তে শুরু করেছে। যদিও কোনও পক্ষই প্রথম দফায় বুথ দখল বা জাল ভোটের দাবী করেনি, নির্বিঘ্নেই সম্পন্ন হয়েছিল প্রথম পর্যায়ের ভোট। তবুও কয়েকটি বিক্ষিপ্ত ঘটনা ঘটেছিল শনিবার (২৭ মার্চ)। তারই পরিপ্রেক্ষিতে‌ দ্বিতীয় দফার ভোটের আগে নজিরবিহীন নির্দেশ দিল কমিশন তা বলাই যায়।