বিরোধ বাড়ছে তৃণমূলে, দুই ‘অনুগামী’র চাপা দ্বন্দ্বে তপ্ত হচ্ছে শাসকদল, শুভেন্দুর ছবি ছেঁড়ার প্রতিবাদে বেলদায় মৌন মিছিলে ধিক্কার

466
বিরোধ বাড়ছে তৃণমূলে, দুই 'অনুগামী'র চাপা দ্বন্দ্বে তপ্ত হচ্ছে শাসকদল, শুভেন্দুর ছবি ছেঁড়ার প্রতিবাদে বেলদায় মৌন মিছিলে ধিক্কার 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: রাজনীতিতে ওয়ার্ম আপ সারা বছর ধরেই কমবেশি চলে বটে কিন্তু ভোট যত কাছে আসে ‘বডি টাচের’ খেলা তত বেড়ে ওঠে। খুব কাছাকাছি চলে আসে পরস্পর বিরুদ্ধ দুটি রাজনৈতিক দল। আবার দলের মধ্যে থাকা দুটি পারস্পরিক বিরুদ্ধ মতবাদও এই সময় সক্রিয় হয়ে ওঠে। সোজা কথায় গোষ্ঠী রাজনীতিও সক্রিয় হয় বিশেষ করে দক্ষিনপন্থী দলগুলোতে। বোধহয় সেই জিনিসটাই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে শাসকদল তৃণমূলের অন্দরে।বিরোধ বাড়ছে তৃণমূলে, দুই 'অনুগামী'র চাপা দ্বন্দ্বে তপ্ত হচ্ছে শাসকদল, শুভেন্দুর ছবি ছেঁড়ার প্রতিবাদে বেলদায় মৌন মিছিলে ধিক্কার 2

গত কয়েক মাস ধরেই কয়েকটি জেলায় সক্রিয় হতে দেখা গেছিল মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী অনুরক্তদের সংগঠন ‘দাদার অনুগামী’দের। বিভিন্ন সেবা মূলক কাজে ঝাঁপিয়ে পড়তে দেখা গিয়েছে তাঁদের। মাঠে নামার পাশাপাশি ফেসবুক আর হোয়াটস্যাপেও সক্রিয় হয়ে উঠেছেন তাঁরা। অন্যদিকে শুভেন্দু অধিকারীকেও দেখা গেছে সরকারি অনুষ্ঠানের বাইরে ‘অরাজনৈতিক’ ভাবে সক্রিয় থাকতে। এ নিয়ে যেমন শুভেন্দুর বিরুদ্ধে রাজ্য নেতৃত্ব সরাসরি মুখ খোলেনি তেমনই নিচু তলায় ‘দাদার অনুগামী’দের বিরুদ্ধেও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বকে কিছু বলতে শোনা যায়নি।

বিরোধ বাড়ছে তৃণমূলে, দুই 'অনুগামী'র চাপা দ্বন্দ্বে তপ্ত হচ্ছে শাসকদল, শুভেন্দুর ছবি ছেঁড়ার প্রতিবাদে বেলদায় মৌন মিছিলে ধিক্কার 3

কিন্তু গোল বেধেছে সম্প্রতি। পুজোর সময় পূর্ব পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামে উৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়ে শুভেন্দু অধিকারীর ছবি সম্মিলিত কিছু ফ্লেক্স টাঙানো হয়। পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলদায় তৈরি করা হয় একটি তোরনও। অভিযোগ ওঠে বেশ কয়েকটি জায়গায় রাতের অন্ধকারে ফ্লেক্স নামিয়ে দিয়েছে কেউ বা কারা। অন্যদিকে বেলদায় তোরণ থেকে ছিঁড়ে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে মন্ত্রীর ছবি। উলেখ্য বেলদাতেই কয়েকদিন আগে ‘দাদার অনুগামীদের স্টাইলে বুকে অভিষেক ব্যানার্জীর ছবি, প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিছিল হয়েছে কয়েক হাজার তৃণমূল সমর্থকের।

আরও পড়ুন -  শীঘ্রই গ্রেফতার করা হতে পারে রিয়া চক্রবর্তীকে, বাড়ছে জল্পনা

বৃহস্পতিবার নাম না করেই মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর ছবি ছেঁড়ার পেছনে তৃণমূলের অভিষেকপন্থীদেরই দায়ী করা হয়েছে শুভেন্দু অনুগামীদের তরফে। প্রতিবাদে মিছিল দাদার অনুগামীরা। ঘটনা হল এতদিন যাবৎ গলায় শুভেন্দু অধিকারীর ছবি লাগিয়ে তৃণমূল কর্মীদের একাংশ বিভিন্ন সামাজিক কাজ কর্মসূচী পালন করলেও কোথাও এভাবে মিছিল করতে দেখা যায়নি। যা বৃহস্পতিবার বেলদায় দেখা গেল।
উল্লেখ্য শারদীয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে বেলদায় তোরণ তৈরি করেছিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। সেই তোরণের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশপাশি শুভেন্দু অধিকারীর ছবিও ছিল। কেউ বা কারা তোরণ থেকে শুভেন্দু অধিকারীর ছবি গুলি ছিঁড়ে দেয়। তারই প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বেলদাতে কয়েকশো যুবক যুবতী ‘আমরা দাদার অনুগামী’ ব্যানারে মৌন মিছিল করেন।

আরও পড়ুন -  চলে গেলেন খড়গপুরের সঙ্গীত জগতের নক্ষত্র অজাতশত্রু বিশ্বনাথ মিশ্র

দাদার অনুগামীদের দাবি এই মিছিল না করার জন্য বারংবার চাপ এসেছে ‘বিভিন্ন মহল’ থেকে।
মিছিলের উদ্যোক্তা দাঁতনের রুদ্রাংশু বেরা বলেন, ‘আমরা তৃণমূল কংগ্রেস করি। আমাদের লড়াই তৃণমূলের বিরুদ্ধে নয়। আমাদের লড়াই বঞ্চনার বিরুদ্ধে। যে ভাবে শুভেন্দু অধিকারীকে বঞ্চনা করা হচ্ছে আমরা তার প্রতিবাদ করছি। বেলদায় এই মিছিল বানচাল করতে বিভিন্ন জায়গা থেকে চাপ এসেছিল। দলের নেতৃত্বরা অনেকে হুমকি দিয়েছিলেন। আমরা সবকিছু উপেক্ষা করে মিছিল করেছি।’

ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, ‘আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল করি। আমাদের যে কোনো কর্মসূচী হবে সংগঠনের ব্যানারে।’ নারায়ণগড় ব্লক তৃণমূলের সভাপতি মিহির চন্দ্র বলেন, ‘ছবি ছেঁড়ার বিষয়টি পুলিশকে দেখতে বলা হয়েছে। মিছিল করার কোনো খবর আমাদের কাছে ছিলনা। কারা মিছিল করেছে আমরা কিছু জানিও না।’

আরও পড়ুন -  গভীর নিম্নচাপ বলয়ে খড়গপুর মেদিনীপুর, আজ সন্ধ্যের পর থেকেই বাড়বে বৃষ্টি, বুধবার বড়সড় দুর্যোগের আশঙ্কা

ঘটনা শুধু এখানেই থেমে থাকেনি। এতদিন দাদার অনুগামীদের বিরুদ্ধে কিছু বলা না হলেও এবার দেখা যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গেছে তৃণমূলের স্থানীয় নেতৃত্ব থেকে শুরু করে সমর্থকদের মধ্যে। তীব্র কটাক্ষ করে ‘দাদার অনুগামী’র বদলে শুধু ‘অনুগামী’ বলে তাঁদের কে বিজেপির দালাল অবধি বলে দাবি করা হয়েছে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে সুবিধা করে দিতেই কাজ করছে এরা। পাল্টা শুভেন্দু অনুগামীরাও সোশ্যাল মিডিয়ায় বলেছেন, শুভেন্দু অধিকারীর সাথে যারা বেইমানি করেছে তাঁদের নাম লেখা থাকবে। সব মিলিয়ে পরিবেশ ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে এটা বলার অপেক্ষা রাখেনা।