করোনা পরিস্থিতির অবনতি! এখুনি খুলছেনা স্কুল-কলেজ, আনলকের নতুন নির্দেশিকা রাজ্যের

1014
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: অবনতি হয়েছে করোনা পরিস্থিতি। সেই কথা মাথায় রেখেই রাজ্য জুড়ে নয়া নির্দেশিকা জারি করল নবান্ন। নবান্ন জানিয়ে দিয়েছে নতুন করে কোনো বিজ্ঞপ্তি জারি না করা অবধি আগামী ৩০শে নভেম্বর পর্যন্ত রাজ্য জুড়ে এই নির্দেশিকা জারি থাকবে। আরও জানা গেছে সাম্প্রতিক কালে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত বলে নবান্ন সূত্রে খবর। উল্লেখ্য দেশের মধ্যে আক্রান্ত ও মৃত্যুর হারে এই মুহূর্তে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসে রাজ্য। বিষয়টির ওপর কড়া নজর রেখেছিল কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। তারই ভিত্তিতে রাজ্যকে কিছু পরামর্শ ও নির্দেশিকা পাঠায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রক।

Advertisement

রাজ্য জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের দেওয়া গাইডলাইন মেনেই জারি থাকবে নিষেধাজ্ঞা। তবে সোমবার প্রকাশিত হওয়া এক সার্কুলারে বেশ কিছু নিয়ম ও নির্দেশিকার ঘোষণা করেছে নবান্ন। এই বিষয়ে বিবৃতি প্রকাশ করেছে রাজ্য যেখানে জানানো হয়েছে
১. সিনেমা হল, থিয়েটারে পঞ্চাশ শতাংশের বেশি দর্শক থাকতে পারবেন না।
২. তবে এখনই স্কুল-কলেজ খোলার খোলার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না।

Advertisement
Advertisement

৩. প্রশিক্ষণ ব্যতীত কোনও প্রতিযোগিতার জন্য কোনও সুইমিং পুল ব্যবহার করা যাবে না।
৪. কনটেনমেন্ট জোনের ভিতরে কোনও সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক অনুষ্ঠান করা যাবে না।
৫. যে ঘরে বা হলে ২০০জন লোক জমায়েত করতে পারেন, সেখানে ৫০ শতাংশ লোককে থাকার অনুমতি দেওয়া যেতে পারে।                                                                                ৬. যদি জমায়েত করার প্রয়োজন হয়, তবে তা খোলা জায়গায় অনুমতি সাপেক্ষে করা যেতে পারে। স্থানের আকারের ওপর নির্ভর করবে জমায়েত হওয়া মানুষের সংখ্যা।
যদিও আগের তুলনায় কিছুটা সংক্রমন কমেছে এদিনের রিপোর্টে। বাংলায় দৈনিক মৃতের সংখ্যা কমে ৫৭, আক্রান্তও চার হাজারের নিচে৷ তুলনামূলক একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন বেশি৷ ফলে ফের বেড়েছে সুস্থতার হার৷

সোমবার  স্বাস্থ্য ভবন বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ৩,৯৫৭ জন৷ রবিবার ছিল ৩,৯৮৭ জন৷ তুলনামূলক ফের সামান্য বাড়ল আক্রান্তের সংখ্যা৷ তবুও সংখ্যাটা চার হাজারের নিচেই আছে৷সব মিলিয়ে মোট আক্রান্ত ৩ লক্ষ ৮১ হাজার ৬০৮ জন৷ গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে ৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ রবিবার ছিল ৫৯ জন৷ মৃতের নিরিখেও সামান্য কমল দৈনিক মৃতের সংখ্যা৷ তবে সব মিলিয়ে এই পর্যন্ত রাজ্যে মোট মৃত্যু হয়েছে ৬,৯৫৭ জনের৷ প্রায় ৭ হাজার৷ রাজ্যে একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪,০৮৫ জন৷ রবিবার ছিল ৪,০৫৩ জন৷ সব মিলিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ লক্ষ ৩৮ হাজার ৭৫ জন৷ সুস্থতার হার বেড়ে ৮৮.৫৯ শতাংশ৷ রবিবার ছিল ৮৮.৪৪ শতাংশ৷

এরই মধ্যে সদ্য পুজো পেরিয়ে এসেছে বাংলা। ভিড়, লোক সমাগম ছিলই। সামনে রয়েছে কালীপূজা, দীপাবলি। সেই পরিস্থিতিতে জনতা যাতে লাগামহীন না হয়ে পড়েন তাই এই নির্দেশিকা বলে জানা গেছে। গতমাসে সরকারের যে ভাবনা ছিল তাতে নভেম্বরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলি খোলার কথাই ভাবা হচ্ছিল । সেই ভাবে প্রস্তুত হচ্ছিল স্কুল-কলেজ গুলিও। কিন্তু নতুন নির্দেশিকা থেকে বোঝা যাচ্ছে নভেম্বরেও স্কুল কলেজ খোলার সম্ভবনা রদ হয়ে গেল।