দিনভর ভারি বৃষ্টির মধ্যেই বড় বিপত্তি; মুম্বাইয়ে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ল চারতলা ভবন, ৮ শিশু সহ ১১ জনের মৃত্যু

115
Advertisement

নিউজ ডেস্ক: ভারি বৃষ্টিপাতের মধ্যেই মুম্বইয়ের মালবনি এলাকার মালাডে চারতলা ভবন ভেঙে বিপত্তি। ধ্বংসস্তুপে চাপা পড়ে এখনও পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৮ জন শিশু রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সেইসঙ্গে মহিলা ও শিশুসহ ১৭ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অনেকেই। এদের মধ্যে ৭ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে। বুধবার দিনভর ভারী বৃষ্টি হয়েছে মুম্বাইয়ে। এই এলাকার একাধিক বাড়িকে আগেই ‘বিপজ্জনক’ হিসেবে ঘোষণা করেছিল পৌরসভা, এই বহুতলটিও বেশ পুরনো। একটানা ভারি বৃষ্টির জেরে হঠাৎই ভেঙে পড়ে এটি, বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

Advertisement

বিএমসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মালাডের একটি চারতলা ভবন ধসে পড়ায় ভয়ানক রূপ দুর্ঘটনা ঘটেছে। যার পরে এই বিল্ডিংয়ের বিপরীতে আরও দুটি বিল্ডিং ভেঙে দেওয়া হয় এবং সেখান থেকে ২ শিশুকে উদ্ধার করা হয়। বিএমসি বলছে যে, ভবনটি জরাজীর্ণ অবস্থায় ছিল এবং ভারী বৃষ্টির কারণে এটি দুর্ঘটনার শিকার হয়। বর্তমানে উদ্ধার অভিযান চলছে এবং আহতদের সন্ধান চলছে।

Advertisement
Advertisement

জানা গিয়েছে, বুধবার রাত ১১.১০ নাগাদ পশ্চিম মুম্বইয়ের মালবনির মালাডে ভেঙে পড়ে এই চার তলা ভবন। বাড়িটি ভেঙে পড়ার সময় অধিকাংশ আবাসিক ঘরের ভিতরেই ছিলেন। বাড়ি লাগোয়া আরও তিনটি বাড়ি ছিল তারই একটিতে সেই বাড়িটি ভেঙে পড়ে। খবর দেওয়া হয় বৃহনমুম্বাই কর্পোরেশনে। কিছুক্ষণের মধ্যে ছুটে আসে দমকল বাহিনী। ঘটনাস্থলে পৌঁছায় স্থানীয় পুলিশ ও জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী।  বেশ কয়েকজন শিশুও ছিল বহুতলটিতে। দুর্ঘটনার জেরে ৮ শিশু সহ এখনও পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। দুর্ঘটনায় আহত আরও ৭ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আহতদের বিডিবিএ মিউনিসিপ্যাল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মৃতের সংখ্যা বারার আশঙ্কাও করা হচ্ছে।

মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী আসলাম শেখ বলেন, ভারী বৃষ্টির কারণে ভবনটি ধসে পড়েছে, উদ্ধার কাজ চলছে। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকা পড়া বাকি ব্যক্তিদের খোঁজে উদ্ধারকার্য চলছে।

ভারতীয় আবহাওয়া অধিদফতর (আইএমডি) বুধবার মুম্বাই এবং এর আশেপাশের অঞ্চলে বর্ষা শুরু হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। অন্যদিকে, বর্ষার কারণে এদিন সকালে ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে দেশের অর্থনৈতিক রাজধানী এবং এর শহরতলিতে প্রচুর পরিমাণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় এবং লোকাল ট্রেন পরিষেবাও ব্যাহত হয়। আইএমডি অনুসারে, শহরতলির সান্তা ক্রুজে সকাল ৮ টা থেকে দুপুর ২.৩০ টা পর্যন্ত ছয় ঘন্টার মধ্যে ১৬৪.৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।