ভারতীয় উপমহাদেশের বাজারে প্রথম মিনি-বাইক MSX125 আনছে HONDA

903
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভারতীয় উপমহাদেশের বাজারে মাস তিনেকের মধ্যেই আসতে চলেছে হোন্ডার নতুন মিনি বাইক MSX125। ভারতের পাশাপাশি বাংলাদেশের বাজারেও এই বাইক মিলতে পারে সূত্রের খবর। সম্পূর্ন নতুন লুক, নতুন হেডল্যাম্প আর নতুন বডিলাইন নিয়ে দৃশ্যমান হবে এই নয়নাভিরাম বাইক যা ১লিটার জ্বালানি খরচে প্রায় ৬৬ কিলোমিটার চলবে বলে উদ্যোক্তাদের দাবি।

Advertisement

কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, ইতিমধ্যে ভারতের সিমলাতে ট্রায়াল রানে অভাবনীয় সফলতা দেখিয়েছে এই MSX125. ভারতীয় উপমহাদেশের উঁচু নিচু রাস্তায় কেমন চলতে পারে এই নতুন আগন্তুক তার জন্যই বেছে নেওয়া হয়েছিল এই পাহাড়ি শহরটিকে যেখানে কয়েকশ কিমি অনায়াসে পাড়ি দিয়েছে MSX125. ভারতীয় বাজারে একে বারে নতুন আসছে এই বাইক এবং চলতি অর্থবর্ষেই সেটি বাজারে আনতে চলেছে HONDA. যদিও এর আগে ইউরোপ ও মধ্যএশিয়ায় তার পরিচিতি ঘটেছে।

Advertisement
Advertisement

এক্কেবারে নতুন বডিওয়ার্ক রয়েছে এই নতুন বাইকে যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ১২টি বোল্ট শরীর থেকে বাইরের দিকে বেরিয়ে থাকবে ডিজাইন হিসাবে যা একটা নতুন আবেদন রাখবে। এটা যেমন একদিকে দৃষ্টি নন্দন অন্যদিকে বাইকটি কোনও কারণে মাটিতে পড়ে গেলে ওই বেরিয়ে থাকা বোল্টের জন্য চট করে এর শরীরে আঁচড় কাটবেনা। এর নিউলুক হেডল্যাম্প পুরোটাই এল.ই.ডি এবং এই মুহূর্তে আপনি কোন গিয়ারে চালাচ্ছেন তা বোঝানোর জন্য একটা গিয়ার পজিশন ইন্ডিকেটর থাকছে এল.সি.ডি কম্পজিশনে। তিনটি রঙে বাইকটি বাজারে আসছে। ফোর্স সিলভার মেটালিক, ম্যাট গান পাউডার ব্ল্যাক মেটালিক আর গেয়টি রেড।

এর ১২৫ সি.সির এয়ারকুল ইঞ্জিনে জ্বালানি সংযুক্ত হলে এটি লম্বা স্ট্রোকে চলতে থাকবে যা ৯.৭৮ পিস প্রতি ৭২৫০আরপিএম এবং ১০.৫এন.এম প্রতি ৫৫০০আরপিএম ঘূর্ণন তৈরি করতে সক্ষম হবে। উল্লেখ্য এক্ষেত্রে আরপিএম বলতে বোঝাচ্ছে প্রতিমিনিট রোটেশন। যার অর্থ প্রতি মিনিটে গিয়ারের সঙ্গে সংযুক্ত ক্র্যাংকটি কতবার ঘুরছে। এখানে ৫টি গতির গিয়ারবক্স থাকছে যা গাড়ির সর্বোচ্চ গতিবেগে আরও স্বাচ্ছন্দ্য এনে দেবে। সর্বোচ্চ ৯৪ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় এই বাইক দৌড়াতে সক্ষম হবে এবং তখন এর প্রতি লিটার জ্বালানি খরচে ৬৫.৭কিমি পথ অতিক্রম করবে MSX125.

পেছনের অংশে কঠিন ইস্পাতের ৩১মিলিমিটার আপসাইড ডাউন ফ্রক থাকছে মনোশকের সঙ্গে যা যাত্রা পথের সমস্ত ঝাঁকুনি থেকে আপনার শরীরকে অবলীলায় রক্ষা করবে এবং আরামদায়ক যাত্রা দেবে। ১২ইঞ্চির আ্যলয় ইস্পাতের চাকাটি সামনের অংশে ২২০মিলিমিটার ডিস্ক এবং পেছনের অংশে ১৯০মিলিমিটার রেয়ার ডিস্কে সংযুক্ত থাকছে। এর সিট মাত্র ৭৬১মিলিমিটার উচ্চতায় থাকছে। বাইকটির ওজন দাঁড়াচ্ছে ১০৩কেজি। আর এর দাম মোটামুটি ভারতীয় মুদ্রায় ৮০ হাজার টাকা হতে চলেছে অন রোড।