‘অভিভাবক’ হয়ে পাহাড় প্রবেশ বিমলের, পাল্টা সভার ডাক বিনয়ের! ধর্ম সঙ্কটে তৃনমূল

224
'অভিভাবক' হয়ে পাহাড় প্রবেশ বিমলের, পাল্টা সভার ডাক বিনয়ের! ধর্ম সঙ্কটে তৃনমূল 1

নিউজ ডেস্ক; দার্জিলিং: ‘একই খাপে দু’টো কুকরি রাখবেননা!’ সেবকের জনসভা থেকে মূখ্যমন্ত্রীকে এমনই হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন বিনয় তামাং আর অনিত থাপা। বিমল গুরুংয়ের অনুপস্থিতিতে এই বিনয় আর অনিতকেই পাহাড়ে তৃনমূলের হয়ে গান গাওয়ার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু রাজনীতির বিচিত্র গতি! ফের বিমল গুরুংকে পাহাড়ে ফেরার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। প্রকাশ্যে এসেই ফের বাঘ সাজার চেষ্টা করছেন বিমল। এবার দুই শিবিরের তরজায় পারদ চড়ছে পাহাড়ের রাজনীতির।পাহাড়ে আধিপত্য কার বেশি এই নিয়েই সরগরম হতে চলেছে দার্জিলিং আর তারই মাঝে রবিবার দার্জিলিং-এ জনসভা করলেন বিমল গুরুং।
অন্যদিকে পাহাড়ের রাশ ধরে রাখতে মরিয়া বিনয় তামাং।এমতাবস্থায় আগামী ২৬ শে ডিসেম্বর পরিবর্তন যাত্রার ডাক দিয়েছেন বিনয় তামাং।পাহাড়ে ফের শক্তি প্রদর্শনে তৎপর দুই নেতা।

বিমল গুরুংয়ের পুরনো জমি দার্জিলিংয়ের মোটরষ্টান্ডে সভা করলেন মোর্চা নেতা বিমল গুরুং। এদিনের এই সভা থেকে নাম না করে বিনয় অনিতকে হুংকার দেওয়ার পাশাপাশি পাহাড়বাসীর সাথে ও পাশে থাকার বার্তা দেন বিমল গুরুং।বলেন পাহাড় আবার অভিভাবক ফিরে পেল।

'অভিভাবক' হয়ে পাহাড় প্রবেশ বিমলের, পাল্টা সভার ডাক বিনয়ের! ধর্ম সঙ্কটে তৃনমূল 2

গত ২০১৭ সালের জুন ভাসে পাহাড়ে হিংসাত্মক আন্দোলন শুরু করেছিল বিমল গুরুং নেতৃত্বাধীন মোর্চা।জুলাই মাসের শেষের দিকে দেশদ্রোহিতার মামলা রুজু হতেই গা ঢাকা দেন বিমল গুরুং,রোশন গিরিরা।সেপটেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে বিনয়,অনীত বিমলের সঙ্গ ছেড়ে বেরিয়ে এসে রাজ্য সরকারের সঙ্গে হাত মিলিয়ে পাহাড়কে শান্ত করেন। বিমলের সব সম্পত্তি ক্রোক করে সরকার। বিমলের অনুপস্থিতিতে চলেছে পাহাড়ে তার রাজ।ফলস্বরূপ ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী রাজু বিষ্টের জয়ী হওয়া।

এদিন মোটরষ্ট্যান্ডে জনসভা থেকে বিমল গুরুং বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি,অমিত শাহ গোর্খাল্যান্ড নিয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়ে তা রাখেননি।রাজু বিষ্টকে তিনি জিতিয়েছেন পাহাড় থেকে।কিন্তু তিনিও গোর্খাল্যান্ডের দাবিকে মান্যতা দেননি।এবার তৃণমুলের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তিনি বিজেপিকে যোগ্য জবাব দেবেন। উল্লেখ্য,বিমলের পাতলেবাসের বাড়ি ও সব ক্রোক করা সম্পত্তি ফেরত দিয়েছে রাজ্য সরকার।

চলতি মাসের ৬ ডিসেম্বর শিলিগুড়ি শিলিগুড়ি ইন্দিরা গান্ধী ময়দানের প্রথভ সভা করলেও দার্জিলিঙে এখনো ওঠেনি বিমল গুরুং। শেষমেষ রবিবার বিমল গুরুংয়ের পুরনো জমি দার্জিলিংয়ের চকবাজারে সভা করলেন মোর্চা সভাপতি বিমল গুরুং।

বিনয়,অনীতদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন পাহাড়ে দুর্নীতি হয়েছে প্রচুর।এবারে গোর্খা ভাইবোনেরা তাদের ন্যায্য পাওনা পাবেন।তিনি তাদের অধিকার ফিরিয়ে দেবেন।বিনয়,অনীতদের ডুপ্লিকেট বলেও দাবি করেন বিমল। সমস্যা হল নির্বাচনের মুখে যে কোনও একটি শক্তিকেই বেছে নিতে হবে তৃণমূলকে আর অপর শক্তি আপনা আপনি চলে যাবে বিজেপির পক্ষে এমনটাই মনে করছেন অভিজ্ঞ মহল।