গনতন্ত্রের উৎসবে ঠুঁটো জগন্নাথ কেন্দ্রীয় বাহিনী! কেশপুরে নির্বিচার ভাঙচুর বিজেপি প্রার্থী ও মিডিয়ার গাড়ি, চন্ডীপুরে আক্রান্ত তৃণমূল প্রার্থী

712
গনতন্ত্রের উৎসবে ঠুঁটো জগন্নাথ কেন্দ্রীয় বাহিনী! কেশপুরে নির্বিচার ভাঙচুর বিজেপি প্রার্থী ও মিডিয়ার গাড়ি, চন্ডীপুরে আক্রান্ত তৃণমূল প্রার্থী 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: কেশপুর রয়ে গেল কেশপুরেই! তৃণমূল বাহিনীর হাতে নির্বিচারে ভাঙচুর হল বিজেপি প্রার্থী এবং মিডিয়ায় গাড়ি। প্রাণ ভয়ে ছুটে পালালেন বিজেপি প্রার্থী। হাত জড়ো করে প্রাণ ভিক্ষা করতে দেখা গেল মিডিয়া কর্মীদের। অন্যদিকে পূর্ব মেদিনীপুরের চণ্ডীপুরে নিজের কেন্দ্রে বিজেপি কর্মীদের হাতে আক্রান্ত হয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী সোহম। ভাঙচুর করা হয়েছে তাঁর গাড়িও। আর সর্বত্রই দেখা গেছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর অনুপস্থিতি। ঘটনার ঘটার পর গিয়ে পৌঁছাতে দেখা গিয়েছে তাদের। ততক্ষনে যা করার তা করে দিয়েছে দুষ্কৃতিরা।

জানা যায়, সকাল থেকে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কেশপুর বিধানসভা কেন্দ্র এলাকা থেকে একাধিক উত্তেজনাকর পরিস্থিতির খবর আসতে থাকে। বিজেপির প্রার্থীর গাড়ি ভাংচুর করা হয়। বুথে ঘোরার সময় বিজেপি প্রার্থী প্রীতিশরঞ্জনের গাড়িতে হামলা চালানোর অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। একের পর এক গাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়। বুথ জ্যাম করা হচ্ছে, এই অভিযোগ পেয়ে কেশপুরের গুণহারা গ্রামে যান বিজেপি প্রার্থী। এই অভিযোগ পেয়ে বিজেপি প্রার্থী গ্রামে যান। সেই সময়ই তাঁর গাড়ি ঘিরে ধরে ধারাল অস্ত্র, বাঁশ, ইট, লোহার রড দিয়ে হামলা চালানো হয়। গাড়িতে এলোপাথাড়ি আঘাত করা হয়। সেইখবর সংগ্রহ করতে গিয়ে আক্রান্ত হয় সংবাদমাধ্যম।

গনতন্ত্রের উৎসবে ঠুঁটো জগন্নাথ কেন্দ্রীয় বাহিনী! কেশপুরে নির্বিচার ভাঙচুর বিজেপি প্রার্থী ও মিডিয়ার গাড়ি, চন্ডীপুরে আক্রান্ত তৃণমূল প্রার্থী 2

গাড়িতে ইট মেরে ভেঙে দেওয়া হয় গাড়ির কাঁচ। গাড়ির ভেতর ভয়ে কুঁকড়ে থাকতে দেখা যায় একজন মহিলা সংবাদমাধ্যম প্রতিনিধিকে। পরিস্থিতি রীতিমতো অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। এই ঘটনায় বিজেপি প্রার্থী পালিয়ে বাঁচলেও এখনও তাঁর সন্ধান পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশ সুপার সহ বিশাল পুলিশবাহিনী। গ্রেফতার করা হয়েছে ১৭ জনকে।

অপরদিকে, কাদুয়া ৪৯ নং বুথ এলাকায় তৃণমূল প্রার্থী সোহম চক্রবর্তীকে ধাক্কাধাক্কির অভিযোগ। ছবি তুলতে গেলে ক্যামেরা কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা হয় বলেও জানা গেছে। অভিযোগের তীর বিজেপির দিকে। অভিযোগ, সাংবাদিকদের এলাকায় ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। ঘটনাস্থলে মোতায়েন রয়েছে বিশাল কেন্দ্রীয় বাহিনী। তৃণমূল প্রার্থী সোহমের বুথ এজেন্ট সেখ আজিমুল হোসেনের গাড়ি ভাঙচুর করা হয় বলেও অভিযোগ। পাশাপাশি অনান্য তৃণমূল কর্মীদের মারধর করা হয়েছে বলেও অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে।

তৃণমূলের অভিনেতা প্রার্থী সোহমের দাবী, ২৪ এবং ৩০ নম্বর বুথে বিজেপি কর্মীরা অশান্তি করছে। ২৪ নম্বর বুথে ঢুকতে গেলে তাকে বাধা দেওয়া হয়, তিনি কেন ঢুকছেন এই প্রশ্ন করা হয়। ৩০ নম্বর বুথে তাকে দেখে জয়শ্রী রাম স্লোগান দেওয়া হয়। সাংবাদিকদেরও ক্যামেরা কেড়ে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি। তাঁর অভিযোগ পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকা ঘিরেও। একইসঙ্গে তার গাড়ি আটকে বিজেপি কর্মীরা বিক্ষোভ করে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। পাশাপাশি বুথের ১০০ মিটারের মধ্যে বিজেপি পতাকা লাগিয়েছে ও কর্মীরা ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ তুললেন সোহম চক্রবর্তী।