কাশ্মীরে জঙ্গিদের গুলিতে খুন বাবা ও ভাই সহ বিজেপি নেতা, ১০ নিরাপত্তা রক্ষীর ভূমিকায় প্রশ্ন

123
কাশ্মীরে জঙ্গিদের গুলিতে খুন বাবা ও ভাই সহ বিজেপি নেতা, ১০ নিরাপত্তা রক্ষীর ভূমিকায় প্রশ্ন 1

বিশেষ সংবাদদাতা: ফের রক্তাক্ত হল কাশ্মীরের বান্দিপোরা। বুধবার রাতে, বান্দিপোরা থানার কাছেই জঙ্গিদের এলোপাথাড়ি গুলিতে মৃত্যু হয়েছে এলাকার বিজেপি নেতা ওয়াসিম বারির। তার সঙ্গেই মৃত্যু হয়েছে ওয়াসিম বারির বাবা বসির আহমেদ ও ভাই ওমর বসিরের। ঘটনায় ১ সন্দেহ ভাজন যুবক ছাড়াও গ্রেফতার করা হয়েছে বসিরের ১০ নিরাপত্তা রক্ষীকে যারা ঘটনার সময় বাসিরের সঙ্গে ছিলেননা।

কাশ্মীর উপত্যকায় প্রতিদিনই জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে সেনা বাহিনী । গত এক মাসে সেনার হাতে মৃত্যু হয়েছে অন্তত পঞ্চাশ জন জঙ্গির। এই বছরে এই সংখ্যা একশোর বেশি । এছাড়াও জইশ ই মহম্মদ সংগঠনকে সাহায্য করার অভিযোগে পুলিশ সম্প্রতি গ্রেফতার করে বিলাল আহমেদ কুচেই নামের এক যুবককে । এই গ্রেফতারি ও একের পর এক জঙ্গির মৃত্যুর বদলা নিতেই বুধবার রাতে এই হামলা বলে মনে করছে কাশ্মীরের পুলিশ ও রাজনৈতিক মহল ।

কাশ্মীরে জঙ্গিদের গুলিতে খুন বাবা ও ভাই সহ বিজেপি নেতা, ১০ নিরাপত্তা রক্ষীর ভূমিকায় প্রশ্ন 2

কাশ্মীর পুলিশ একটি ট্যুইট করে জানিয়েছে, বুধবার রাত নটা নাগাদ বাড়ির কাছে একটি দোকানে বসে ছিলেন ওয়াসিম বারি, তার বাবা ও ভাই। সেই সময়ে অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীরা তাদের ওপর হামলা চালায় । এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে । তাদের তিন জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় । সেখানেই মৃত বলে ঘোষণা করা হয় তিনজনকে। একই কথা জানিয়েছেন কাশ্মীরের ডিজিপি দিলবাগ সিং । জঙ্গিদের খোঁজ করতে রাতেই পুরো এলাকা জুড়ে চিরুনি তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি ।

বান্দিপোরা থানার কাছেই বাড়ি ওয়াসিম বারির। তিনি ওই এলাকার বিজেপি নেতা ও প্রাক্তন জেলা সভাপতি । ২০১৪সালের নির্বাচনে নির্দল হিসেবে লড়াই করেন। পরে যোগ দেন বিজেপিতে।

ঘটনায় বসিরের নিরাপত্তা রক্ষীদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কারন তাঁর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য কাশ্মীর পুলিশের ১০ জন জওয়ানকে নিয়োগ করা হলেও বুধবার রাতে তার ওপরে যখন জঙ্গি হামলা হয় তখন ওই নিরাপত্তা কর্মীদের কেউ ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন না । ওই ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কাশ্মীরের আই জি বিজয় কুমার। প্রশ্ন উঠেছে তা’হলে কি পুলিশের সঙ্গে জওয়ানদের কোনও যোগসূত্র ছিল। উত্তরে পুলিশ জানিয়েছে, গ্রেফতার হওয়া জওয়ানদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

যেভাবে এই হামলা চালানো হয়েছে তাতে হতচকিত কাশ্মীরের পুলিশ ও রাজনৈতিক মহল । বিজেপি নেতা , তার বাবা ও ভাইয়ের ওপরে এই হামলার তীব্র নিন্দা করে শোক প্রকাশ করেছেন বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডা ও জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা । আবদুল্লা লিখেছেন, এই হামলার তীব্র নিন্দা করছি। দুঃখের বিষয় হলো মূলধারার রাজনৈতিক কর্মীদের ওপর এমন নৃশংসতা ও হিংস্র মনোভাব বেড়েই চলেছে ।’ উল্লেখ্য এর আগেও কাশ্মীরে বিজেপি সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীরা জঙ্গি হামলার শিকার হয়েছেন।