বাড়িতে ঢুকে গুলি বিজেপি মহিলা মোর্চার দলনেত্রীকে, আশঙ্কা জনক অবস্থায় চিকিৎসাধিন হাসপাতালে, অভিযোগের তির শাসকদলের দিকে, অভিযোগ অস্বীকার

241

ওয়েব ডেস্ক :লকডাউনের দিনেই বাড়িতে ঢুকে বিজেপির মহিলা মোর্চার দলনেত্রীকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর অভিযোগ উঠল শাসকদলের বিরুদ্ধে। সোমবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুর থানার রঘুদেবপুর গ্রামে। ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে এই মূহুর্তে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিজেপি-র স্থানীয় বুথ কমিটি সহ সভাপতি এবং মহিলা মোর্চার কোষাধ্যক্ষ রাধারানী নস্কর। ঘটনায় অভিযোগের তির শাসকদলের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, বিজেপি করার কারণে বেশকিছুদিন যাবৎ রাধারানী নস্কর ও তাঁর স্বামী বিজেপির বুথ কমিটির সভাপতি অরুণ নস্কর একাধিকবার শাসকদলের হুমকির মুখে পড়েন। ঘটনায় বিজেপির অভিযোগ, বিজেপি করার কারণেই এদিন দম্পতিকে খুন করার চেষ্টা করা হয়েছে। ঘটনায় তৃণমূলকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন -  করনা আবহে পঙ্গপালের দাপট, খাদ্য সঙ্কটের আশঙ্কার মধ্যে বিমান দুর্ঘটনার সতর্কতা কেন্দ্রের

জানা গিয়েছে, সোমবার সকাল ১১টা নাগাদ আচমকা একদল লোক রাধারাণী দেবীর স্বামী অরুণ নস্করের খোঁজ করতে এসে আচমকা বাড়ির ভিতর ঢুকে পড়ে। কিন্তু সেসময় অরুণবাবু বাড়িতে না থাকায় আচমকক প্রায় ১৫ জন দুষ্কৃতি মিলে বাড়িতে ভাঙচুর করতে শুরু করে। সেসময় বিজেপি নেত্রী ঘটনার প্রতিবাদ করলে তাকেও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এর মধ্যেই দুস্কৃতিদের মধ্যে একজন তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালালে গুলি লাগে মাথার পিছনে বাঁদিকে। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন রাধারানী। এদিকে গুলির শব্দ পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা ছুটে এলেই দুস্কৃতিরা পালিয়ে যায়। ঘটনার পর স্থানীয় বাসিন্দাদের তরফে দ্রুত রাধারাণীকে স্থানীয় নেপালগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তাঁর শারীরিক অবস্থা ক্রমশ অবনতি হতে শুরু করায় চিকিৎসকদের তরফে তাকে কলকাতায় স্থানান্তরিত করা হয়৷ বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনি এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এদিকে একেই লকডাউন তার ওপর ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে জেলার পুলিশ সুপারের অফিস, সুতরাং লকডাউন চলাকালীন কিভাবে এই ঘটনা ঘটলো তার প্রতিবাদে, ঘটনাস্থলে পুলিশ এলে তাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন স্থানীয় বাসিন্দারা স্থানীয় বাসিন্দারা। এবিষয়ে বিষ্ণুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক মৈনাক বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে থানার স্পেশ্যাল টিম। ঘটনাস্থলে পরিদর্শনে এসেছেন ডিএসপি জীবনেশ রায়।
এদিকে এদিনের ঘটনায় বিজেপির ডায়মন্ড হারবার সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি সুফল ঘাঁটুর অভিযোগ, শাসকদল আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই তাঁদের মহিলা মোর্চার নেত্রীকে গুলি চালিয়ে খুনের চেষ্টা করে।

আরও পড়ুন -  আজকের রাশিফল । ১৫ সেপ্টেম্বর , কেমন যাবে আজকের দিন !

যদিও একথা একেবারেই অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক দিলীপ মণ্ডল। তিনি জানান, সোমবারের ঘটনার রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। বিজেপি তৃণমূলকে কালিমালিপ্ত করতে ইচ্ছে করে এই ঘটনায় রাজনৈতিক রঙ লাগাচ্ছে৷ এই ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

বাড়িতে ঢুকে গুলি বিজেপি মহিলা মোর্চার দলনেত্রীকে, আশঙ্কা জনক অবস্থায় চিকিৎসাধিন হাসপাতালে, অভিযোগের তির শাসকদলের দিকে, অভিযোগ অস্বীকার 1