এবার বর্ধমানে নাড্ডা! বিধানসভা মাথায় রেখে একগুচ্ছ কর্মসূচি

190
এবার বর্ধমানে নাড্ডা! বিধানসভা মাথায় রেখে একগুচ্ছ কর্মসূচি 1

অশ্লেষা চৌধুরী:গতবারের তিক্ত স্মৃতির রেশ এখনও কাটেনি। এরই মধ্যে ফের বঙ্গ সফরে এলেন জেপি নাড্ডা। রাজ্যের ধানের গোলা বলে পরিচিত, বর্ধমানে শনিবার একগুচ্ছ কর্মসূচি রয়েছে জেপি নাড্ডার। মধ্যাহ্ন ভোজন সারবেন সেই কৃশঝোক পরিবারেই।

নাড্ডার সফর ঘিরে শুক্রবার থেকেই বর্ধমান জেলা জুড়ে সাজো সাজো রব। বিজেপির ফ্ল্যাগ ফেস্টুনে মুড়ে ফেলা হয়েছে শহর। কার্যত গেরুয়া রঙে সেজে উঠেছে গোটা শহর। পৌঁছে গিয়েছেন রাজ্যের নেতারা। যে রাস্তা দিয়ে কেন্দ্রীয় নেতা রোড শো করবেন, তার ব্যবস্থাপনা খতিয়ে দেখেন পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির সহকারী পর্যবেক্ষক অরবিন্দ মেনন।

এবার বর্ধমানে নাড্ডা! বিধানসভা মাথায় রেখে একগুচ্ছ কর্মসূচি 2

বিজেপি সূত্রে খবর, শনিবার সকাল ১১ টা নাগাদ অন্ডাল বিমানবন্দরে পৌঁছবেন জেপি নাড্ডা। সেখান থেকে সোজা যাবেন কাটোয়ায়। পুজো দেবেন রাধাগোবিন্দ মন্দিরে। এরপর ১১টা ৫০ নাগাদ কাটোয়ার জগদানন্দপুরে ‘কৃষক সুরক্ষা অভিযান’ কর্মসূচির সূচনা করবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

দুপুর একটায় কৃষক পরিবারে খাওয়া দাওয়া সারবেন। শনিবার সকাল থেকেই যার তোড়জোর শুরু হয়ে গিয়েছে। আর এইবারে শুধু খাওয়াই নয়, গ্রামের পাঁচ কৃষকের বাড়ী থেকে এক মুঠো করে শস্য সংগ্রহ করবেন নাড্ডা। খাওয়া সেরে ৩টে নাগাদ সেখান থেকে সোজা চলে আসবেন বর্ধমান শহরে। পুজো দেবেন সর্বমঙ্গলা মন্দিরে। এরপরই বীরহাটা থেকে কার্জন গেট পর্যন্ত রোড শো। সেখান থেকে হোটেলে ফিরে রাজ্য কোর কমিটির সঙ্গে বৈঠক করবেন জেপি নাড্ডা। এরপর করবেন সাংবাদিক সম্মেলন। সাড়ে ৭ টা নাগাদ ফের অন্ডাল বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত বছর ডিসেম্বরে ডায়মন্ডহারবারের সভায় যাওয়ার পথে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডার কনভয়ে হামলা হয়। দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়ের মতো বিজেপি নেতাদের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। ইটের আঘাতে আহত হন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। এই ঘটনার পরই কেন্দ্র এবং রাজ্যের চাপানউতোর তুঙ্গে ওঠে। নাড্ডার কনভয়ের নিরাপত্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত তিন IPS অফিসার- রাজীব মিশ্র, প্রবীণ ত্রিপাঠী এবং ভোলানাথ পাণ্ডেকে দিল্লীতে ডেপুটেশনে ডাকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। কেন্দ্রের তলবে অসম্মতি জানিয়ে পাল্টা চিঠি দেয় রাজ্য সরকারও! নবান্নের আপত্তি অগ্রাহ্য করেই তিন আইপিএসকে অবিলম্বে কেন্দ্রীয় ডেপুটেশনে পাঠানোর নির্দেশ দল নয়াদিল্লী।

এই চাপানোতর পরিস্থিতিতেই বঙ্গ সফরে আজ বর্ধমানে আসছেন জেপি নাড্ডা। তাঁর নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই যথেষ্ট ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে এবার। প্রশাসনের পক্ষ থেকেও কড়া নজরদারি রাখা হচ্ছে বলেই বিজেপি নেতারা জানিয়েছেন। তবে দিল্লির হাড় কাঁপানো ঠাণ্ডায় দেড় মাস ধরে দিল্লীর সীমান্তে অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন পাঞ্জাব-হরিয়ানার কৃষকরা! অষ্টম বৈঠকেও যেখানে কেন্দ্র জট কাটাতে সক্ষম হয়নি, সেখানে বঙ্গে কৃষক সুরক্ষা কর্মসূচির সূচনা করতে আসছেন জেপি নাড্ডা। এখন তাঁর এই সফর কতটা ফলপ্রসূ হয়, সেটাই দেখার।