মুখ্যমন্ত্রী শহরে থাকাকালীনই উদ্ধার বোমা-পিস্তল-কার্তুজ! গ্রেপ্তার ৭ দুষ্কৃতি

182
মুখ্যমন্ত্রী শহরে থাকাকালীনই উদ্ধার বোমা-পিস্তল-কার্তুজ! গ্রেপ্তার ৭ দুষ্কৃতি 1

নিউজ ডেস্ক: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিলিগুড়ির সফরকালেই শিলিগুড়ি ইস্টার্ন বাইপাসের কানকাটা মোড় এলাকার একটি মুদিখানা দোকান থেকে উদ্ধার হল দুটি বোমা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ওই এলাকায়। ঘটনায় ইতিমধ্যে ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। ঘটনা তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পাশাপাশি শহরের আরেক প্রান্ত থেকে আগ্নেয়াস্ত্র এবং কার্তুজ সহ দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, উত্তরবঙ্গ সফরে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার কোচবিহারে জনসভা করে শিলিগুড়িতে ফিরেছেন, রাতে ছিলেন শিলিগুড়ি একটি বেসরকারি হোটেলে। তবে এরই মাঝে শিলিগুড়ি ইস্টার্ন বাইপাস এলাকার কানকাটা মোড়ের একটি মুদি দোকান থেকে উদ্ধার হল দুটি বোমা। জানা গেছে গোপন সূত্রের খবরের ভিত্তিতে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ ওই মুদি দোকানে হানা দিয়ে এই বোমা দুটি উদ্ধার করে। একই সাথে ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে ৫ জনকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা বিভাগ। ধৃতরা হল সুজিত সরকার, বাবু গুরুং, গোপাল বিশ্বাস, শঙ্কর দাস ও গনেশ মন্ডল। ধৃতদের এদিন রাতেই শিলিগুড়ি ভক্তিনগর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। ধৃতদের মঙ্গলবার জলপাইগুড়ি আদালতে তোলা হবে। পুলিশ সূত্রে জানতে পারা গেছে যে, ধৃতদের রিমান্ডে নিয়ে পুলিশ সমস্ত ঘটনা তদন্ত করবে। তবে কি করে ওই এলাকায় এই বোমা দুটি এল তা তদন্ত করে দেখছে গোয়েন্দা বিভাগ।

মুখ্যমন্ত্রী শহরে থাকাকালীনই উদ্ধার বোমা-পিস্তল-কার্তুজ! গ্রেপ্তার ৭ দুষ্কৃতি 2

অপরদিকে সোমবার রাতে শহরের দুটি জায়গা থেকে আগ্নেয়াস্ত্র এবং কার্তুজ সহ দুজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। এনজেপি থানা সংলগ্ন রেল হাসপাতালের সামনে থেকে আগ্নেয়াস্ত্র সহ এক যুবককে গ্রেফতার করে এনজেপি থানার সাদা পোশাকের পুলিশ। ধৃতের নাম বিভাস দত্ত, বাড়ি সূর্যসেন কলোনির ‘এ’ ব্লকে। ধৃতের কাছ থেকে একটি দেশি পিস্তল ও এক রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার হয়েছে।

অন্যদিকে এদিন রাতেই হায়দারপাড়া মার্কেট কমপ্লেক্স সংলগ্ন এলাকা থেকে আগ্নেয়াস্ত্র সহ এক যুবককে গ্রেফতার করে ভক্তিনগর থানার পুলিশ। ধৃতের নাম কালু দে ওরফে সঞ্জয়। পুলিশ সূত্রে খবর, সাদা রঙের একটি স্কুটিতে করে হায়দারপাড়া মার্কেট সংলগ্ন এলাকায় ঘোরাঘুরি করছিল ধৃত।তার কোমরে গোঁজা ছিল একটি আগ্নেয়াস্ত্র এবং তার কাছেই ছিল তিন রাউন্ড কার্তুজ। মঙ্গলবার তাকে জলপাইগুড়ি আদালতে তোলা হয়।