আজই ঘোষণা হতে পারে ভোটের নির্ঘণ্ট! করোনা আবহে বাংলায় বুথের সংখ্যা ছড়ালো ১লাখ

221
আজই ঘোষণা হতে পারে ভোটের নির্ঘণ্ট! করোনা আবহে বাংলায় বুথের সংখ্যা ছড়ালো ১লাখ 1

অশ্লেষা চৌধুরী: মার্চ নয়, সম্ভবত আজ শুক্রবারেই ঘোষণা হবে ভোটের নির্ঘণ্ট। জানা গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সহ মোট চারটি রাজ্যে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করতে চলেছে কমিশন, যার মধ্যে রয়েছে আসাম, কেরালা ও তামিলনাড়ু। এমনকি সূত্রের খবর, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পুদুচেরিতে ভোট হতে পারে বলে। যদিও কমিশনের তরফে সরকারিভাবে কিছু জানানো হয়নি, তবে শুক্রবার সকালে জানানো হয়েছে, বিকেল সাড়ে চারটের সময় সাংবাদিক বৈঠক করবে কমিশন। আর সাংবাদিক বৈঠক করার ঘোষণার ফলেই স্বাভাবিকভাবে জল্পনা ছড়িয়েছে যে, আজই ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে যাবে।

সূত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গে ছয় থেকে আট দফায় ভোটগ্রহণ হতে পারে। যেখানে গত লোকসভা নির্বাচনে সাত দফায় ভোট হয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে এবার বুথের সংখ্যা ৭৬,০০০ থেকে বেড়ে একলাফে এক লাখ ছাড়িয়ে গিয়েছে। সেক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গে বেশি দফায় ভোটগ্রহণ হতে পারে।

আজই ঘোষণা হতে পারে ভোটের নির্ঘণ্ট! করোনা আবহে বাংলায় বুথের সংখ্যা ছড়ালো ১লাখ 2

এর আগে, ৭ মার্চ বিধানসভা ভোটের দিন ঘোষণা হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গত ২২ তারিখ অসমে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, আমরা যতটা মনে পড়তে আগের বার নির্বাচন ঘোষণা হয়েছিল সেটা সম্ভবত ৪ মার্চ ছিল। এ বারও আমি যে সম্ভাবনা দেখছি তাতে মার্চের প্রথম সপ্তহে যে কোনও দিন নির্বাচন ঘোষণা হয়ে যাবে। ওটা নির্বাচন কমিশনের কাজ। কিন্তু আমার চেষ্টা থাকবে নির্বাচন ঘোষণার আগে যতবার অসম আসতে পারি, পশ্চিমবঙ্গে যেতে পারি,আমি ধরছি ৭ মার্চ নির্বাচন ঘোষণা হবে।

এদিকে বুধবার চার রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বিধানসভা ভোটের প্রস্তুতি মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরার নেতৃত্বে বৈঠকে বসে কমিশনের ফুলবেঞ্চ। সেখানে মূলত করোনাভাইরাস পরিস্থিতি এবং আইন-শৃঙ্খল পরিস্থিতির উপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে। হিংসা এড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হয়। কমিশন সূত্রে খবর, রাজ্যের সব স্পর্শকাতর বুথে চিহ্নিত করা, কোথায় কত আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হবে, সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। সূত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গে ১,০০০ কোম্পানি বাহিনী পাঠানো হবে। চলতি মাসের মধ্যেই রাজ্যে ১২৫ কোম্পানি বাহিনী চলে আসবে। এমনকি ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে আসাও শুরু হয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর। তারইমধ্যে বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের জেলা প্রশাসনের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। সেখানে কড়া বার্তা দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, শুক্রবার বিকেলে দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের বৈঠক। বিকেল সাড়ে চারটের সময়ে নির্বাচন কমিশনের সাংবাদিক বৈঠক হবে বিজ্ঞানভবনে। হাজির থাকবেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। প্রসঙ্গত, ২০১১ ও ২০১৬-য় মার্চে ভোটের দিন ঘোষিত হয়েছিল। এবার ফেব্রুয়ারিতে ভোট ঘোষণার সম্ভাবনা, বলেই সূত্রের খবর ।