নির্বাচনের মুখে বাংলায় বিজনেস সামিট এর ঘোষণা বঙ্গবিজেপি, নির্বাচনী চমক বললেন সৌগত রায়

177
Advertisement

ওয়েব ডেস্ক: এরাজ্যে এখনও পর্যন্ত ক্ষমতায় আসেনি বিজেপি। কিন্তু সামনেই বিধানসভা নির্বাচন, ফলে নির্বাচনের আগে বাংলায় শিল্প সম্মেলন করতে চায় বিজেপি। জানা গিয়েছে, রাজ্যে লগ্নি টেনে আনতেই এই শিল্প সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি। তবে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই এই রাজ্যে প্রতিবছর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের নেতৃত্বে শিল্প সম্মেলন দেখেছে বাংলা। এবছরও তার অন্যথা হবে না বলেই মনে করছেন রাজ্যবাসী। এদিকে বছর ঘুরলেই রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন, তার আগে আগামী বছর জানুয়ারিতেই বাংলায় শিল্প সম্মেলন করতে চান বিজেপি। ইতিমধ্যেই শিল্প সম্মেলনের কথা ঘোষণা করেছে গেরুয়া শিবির।

Advertisement

এদিকে প্রতিবছরের মতো এবছরও ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনের নেতৃত্বে রাজ্যে বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট রয়েছে। তবে সেই ঘোষণা করোনা পরিস্থিতির অনেক আগে করা হলেও করোনা আবহে এবিষয়ে নতুন করে কোনও ভাবনা রয়েছে, নাকি আগের ঘোষণা অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়েই বাংলায় বিজনেস সামিট আয়োজিত হবে সে বিষয়ে অবশ্য এখনও পর্যন্ত খোলসা করে কিছুই বলা হয়নি। তবে যেহেতু সামনেই বিধানসভা নির্বাচন, ফলে নির্বাচনের ঠিক আগেই আচমকা বাংলায় বিজনেস ইন্টারন্যাশনাল সামিটের আয়োজন করে নির্বাচনের আগে বঙ্গবাসীর মনে গেরুয়া শিবির জায়গা করে নিতে চাইছে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

Advertisement
Advertisement

এবিষয়ে বিজেপি’র রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত বলেন, “‌আমরা চাইছি একটা গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করতে লগ্নিকারী, শিল্পপতি, উদ্যোগপতি এবং ব্যবসা শুরু করেছেন এরকম ব্যক্তিত্বদের নিয়ে। তাঁরা কী চান সেটা একটা ধারণা করতে পারব। আশা করছি ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে এই উদ্যোগ সম্পন্ন করতে পারব।” যদিও স্বপন দাশগুপ্ত আরও জানান, “এখানে জমির সমস্যা আছে। আমরা সেই সমস্যার সমাধান করার জন্য রাজ্য এবং আইন মেনে কাজ করব। বাংলায় ইতিবাচক রাজনীতিতে আগ্রহী বিজেপি। এখানে যুবকদের কর্মসংস্থান প্রয়োজন।”

‌তবে স্বভাবতই গেরুয়া শিবিরের এই উদ্যোগের বিষয়ে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, “এটা নির্বাচনী চমক ছাড়া কিছু নয়। একটা শিল্প সম্মেলন তখনই সফল হয় যখন রাজ্য বা কেন্দ্রীয় সরকার তার আয়োজন করে। কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার লগ্নি নিয়ে আসতে পারেনি, বরং দেশের সম্পদ বিক্রি করে দিয়েছে।” এদিকে বিজেপি নেতা শিশির বাজোরিয়া বলেন, “রাজ্যে শিল্পের পরিকাঠামো ও আইনশৃঙ্খলা নেই। কাকে কত খাওয়ালেন, কোন হোটেলে রাখলেন ও কত দামি গাড়ি চড়ালেন, সে সব করে শিল্প আসে না।” তবে নির্বাচনের আগের মূহুর্তে আচমকা গেরুয়া শিবিরের এই বিজনেস সামিট নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজনৈতিক মহলে চাপানোতরের সৃষ্টি হয়েছে। নির্বাচনের আগে লগ্নির প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসলে নির্বাচনের আগে বঙ্গবাসীর মনে গেরুয়া শিবির জায়গা করে নিতে চাইছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।