হুগলিতে একের পর এক সভা বাতিল নাড্ডার, ভিড় না হওয়ার জল্পনায় অস্বস্তিতে বিজেপি

402
হুগলিতে একের পর এক সভা বাতিল নাড্ডার, ভিড় না হওয়ার জল্পনায় অস্বস্তিতে বিজেপি 1

নিউজ ডেস্ক: বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির জেপি নাড্ডার  শ্রীরামপুর, চণ্ডীতলা, চাঁপদানি ও উত্তরপাড়ার বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে সভা করার কথা ছিল সোমবার। মঞ্চে জাঙ্গিপাড়ার বিজেপি প্রার্থীর ছবিও লাগানো ছিল। প্রথমে বিজেপির তরফে সকাল সাড়ে ১১টায় সভা শুরুর কথা জানানো হয়। কিন্তু ঘণ্টা দেড়েক পরেও ভিড় না হওয়ায় বিজেপির শ্রীরামপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি শ্যামল বসু ঘোষণা করেন, নাড্ডার ভিডিও অথবা অডিও বার্তা প্রচার করা হবে। এরপরই সভাস্থল ছেড়ে ফিরে যেতে শুরু করেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

এদিন শ্রীরামপুর স্টেডিয়ামে ছিল নাড্ডার সভা। কিন্তু লোক না হওয়ায় সেই সভা কার্যত বাতিল করে দিতে বাধ্য হন বিজেপি নেতৃত্ব। যদিও তাঁরা সামনে এনেছেন ভিন্ন তত্ত্বকে। এদিনের সভামঞ্চ থেকে বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু জানান, দিল্লিতে বিশেষ কাজ পড়ে যাওয়ায় নাড্ডাজি আসতে পারছেন না। তিনি ভিডিও বার্তায় ভাষণ দেবেন।

হুগলিতে একের পর এক সভা বাতিল নাড্ডার, ভিড় না হওয়ার জল্পনায় অস্বস্তিতে বিজেপি 2

সায়ন্তনের এই বক্তব্যের পরে পরেই সভায় যাও বা কয়েকজন ছিলেন, তাঁরাও একে একে চলে যেতে শুরু করেন। সায়ন্তন যাই ঘোষণা করুন না কেন, বিজেপির নেতারাই জানাচ্ছেন দিল্লি থেকেই ভিডিও কল করে ভিড় না হওয়ার ঘটনা নজরে পড়েছিল নাড্ডার। আর তার জেরেই সভা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা।  কার্যত লোকাভাবে সভা বাতিল বলেই বিজেপি নেতৃত্ব ঘোষণা করে দিলেন। সভাতে লোক না হওয়ার জন্য সভাস্থলে এলেনই না নাড্ডা।

তবে ,নাড্ডার সভায় লোক না হওয়ার ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। এর আগেও একাধিকবার নাড্ডার সভায় লোক না হওয়ার ঘটনা ঘটেছে এই পশ্চিমবঙ্গে। বিশেষ করে বাংলায় ঘন ঘন আসা শুরু করার পর থেকেই এই ধরনের ঘটনা বারে বারে ঘটে চলেছে। অবশ্য শুধু নাড্ডা নয়, অমিত শাহ আর যোগী আদিত্যনাথের সভাতেও লোক না হওয়ার ছবি বারংবার ধরা পড়ছে এই বাংলার বুকে।

এমনকি খোদ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাতেও লোক হয়নি বলে একাধিক সভা বাতিল করতে হয়েছিল বিজেপিকে।  এছাড়াও  প্রথম দফা নির্বাচনে আগে লোক না হওয়ার জন্য ঝাড়গ্রাম ও বাঁকুড়ায় একাধিক কর্মসূচি বাতিল করেছেন নাড্ডা ও অমিত শাহ।