Homeএখন খবরপূর্ব মেদিনীপুরের গির্জায় হামলা বোমাবাজি, ভাঙচুর। অভিযুক্ত বিজেপি আরএসএস, গ্রেপ্তার ৩

পূর্ব মেদিনীপুরের গির্জায় হামলা বোমাবাজি, ভাঙচুর। অভিযুক্ত বিজেপি আরএসএস, গ্রেপ্তার ৩

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: পুর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর থানা এলাকায় একটি গির্জায় হামলা চালানোর অভিযোগ উঠল বিজেপি ও আরএসএস মদতপুষ্ট দুষ্কৃতিদের বিরুদ্ধে। হামলার সময় ব্যপক বোমাবাজির পাশাপাশি  ভাঙচুর চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ। নজির বিহীন এই ঘটনায় হতবাক হয়ে গেছেন এলাকার মানুষ। এই ঘটনার পিছনে বিজেপি এবং আরএসএস’র হাত রয়েছে বলে ভগবানপুর থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন চার্চের যাজক অনুপ ঘোষ। ঘটনায় এখনও অবধি   তিনজন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে বড়দিন উপলক্ষ্যে  নবনির্মিত এই গীর্জায় একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে শনিবার দুপুরে ভগবানপুরের উত্তর শিবরামপুর গ্রামে একটি গির্জায় প্রার্থনায় যোগ দিতে সমবেত হয়েছিলেন এলাকার ৭০০ জন খ্রীষ্ট ধর্মাবলম্বী মানুষজন। হঠাৎই দুপুর দু’টো নাগাদ প্রার্থনা চলাকালীন আচমকা চার্চের বাইরে বোমাবাজি শুরু হয়। গির্জা লক্ষ্য করে পরপর দু’টি বোমা নিক্ষেপ করে দুষ্কৃতীরা।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
১২টি বাইকে আসা প্রায় ৩০জন আততায়ী এই হামলা চালায় । আতঙ্কে প্রার্থনা ছেড়ে ছোটাছুটি শুরু করে দেন সবাই। দুষ্কৃতীরা গির্জার  ভিতরে ঢুকে তাণ্ডব শুরু করে। চেয়ার, টেবিল, পাখা, জানালার কাচ, মাইক সহ যাবতীয় আসবাবপত্র তছনছ করে দেয়। ২`জন নাবালক সমেত ৪জন আহত হন । মিনিট পনেরো ধরে এই তাণ্ডব চালানোর পর দুষ্কৃতীরা অনুপ ঘোষের একটি গাড়িতেও ভাঙচুর চালায়। এই ঘটনায় স্থানীয়রা দুষ্কৃতিদের শনাক্ত করতে পেরেছেন এবং তাঁরা বিজেপি এবং আরএসএস আশ্রিত বলে অভিযোগ করেছেন অনুপ ঘোষ।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
শনিবার রাতেই স্থানীয় মোবারকপুরের কানাইলাল দাস, লক্ষ্মীকান্ত দাস, অসিত বাগ, শ্রীকান্ত দলুই, সুজিত বাগ এবং মহম্মদপুরের স্বপন বর্মণ সহ মোট আটজনের নামে লিখিত অভিযোগও ভগবানপুর থানায় দায়ের করেন তিনি। বিজেপি ও আরএসএস’র ঝান্ডা হাতে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিতে দিতেই বোমাবাজি-ভাঙচুর চলে বলে তাঁর অভিযোগ।

হামলার পর লাগিয়ে দেওয়া হয় এই পতাকা 

রবিবার সন্ধ্যায় পুলিশ অভিযুক্ত স্বপন বর্মণ সহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে এবং বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে। যদিও গির্জায় বোমাবাজি ও ভাঙচুরের ঘটনা তাঁর ‘‘জানা নেই’’ বলে দাবি করেছেন বিজেপির কাঁথি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
উল্লেখ্য ২০০২ সালে নদিয়ার মালিয়াপোতা এবং ২০১৫ তে ওই জেলারই তাহেরপুরে চার্চে দুষ্কৃতি হামলার ঘটনার পর নতুন করে আবার এই হামলার ঘটনা ভাবিয়েছে রাজ্য প্রশাসনকে। মধ্যপ্রদেশ, ওড়িশায় এধরনের কিছু ঘটনা ঘটলেও বাংলায় এর  পুনরাবৃত্তি রুখতে বদ্ধ পরিকর পুলিশ।

Advertisement

Advertisement

RELATED ARTICLES

Most Popular