বাংলার মুকুটে নয়া পালক, বাংলার ৩ হাসপাতালে শুরু হচ্ছে রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল

681
বাংলার মুকুটে নয়া পালক, বাংলার ৩ হাসপাতালে শুরু হচ্ছে রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল 1

ওয়েব ডেস্ক : দীর্ঘ অপেক্ষার পর অবশেষে রাজ্যের মাথায় জুড়তে চলেছে চিকিৎসা বিজ্ঞানের নয়া পালক। ইতিমধ্যেই রাশিয়ায় তৈরি হয়ে গিয়েছে করোনা প্রতিষেধক স্পুটনিক ভি। ফলে ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে তার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে৷ এবার সেই ট্রায়ালে জুড়তে চলেছে এই রাজ্যের নাম। জানা গিয়েছে, শীঘ্রই এ রাজ্যের তিনটি হাসপাতালে মানব শরীরে রাশিয়ার তৈরি করোনা প্রতিষেধক স্পুটনিক ভি-এর ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হবে।

কিছুদিন আগেই স্পুটনিক -ভি নামক সর্বপ্রথম করোনার ভ্যাকসিন সামনে এনেছে রাশিয়া। এবার ইপিভ্যাক করোনা নামে দ্বিতীয় ভ্যাকসিনের ছাড়পত্র দিয়েছে রাশিয়া। এমনটাই জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। পাশাপাশি এদেশে রাশিয়ার দ্বিতীয় প্রতিষেধক ইপিভ্যাক এর বিষয়ে প্রখ্যাত ওষুধ সংস্থা ড. রেড্ডিজ ল্যাবরেটরির সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে রাশিয়ান ডাইরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড। সেকারণে রাজ্যে এই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য ড. রেড্ডিজের তরফে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ক্লিনিমেড লাইফসায়েন্সেস প্রাইভেট লিমিটেডকে। প্রতিষেধকটির জেনেরিক নাম, গ্যাম-কোভিড ভ্যাক।

এদিকে ড. রেড্ডিজের তরফে DCGI-কে মানব শরীরে এই প্রতিষেধকের তৃতীয় পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের বিষয়ে অনুমতি চাওয়া হয়। জানা গিয়েছে, এই পরীক্ষা এ রাজ্যের দুটি বেসরকারি হাসপাতাল এবং সরকারি হাসপাতাল সাগর দত্ততে করা হবে। তবে এই প্রথম এই রাজ্যে করোনা ভ্যাকসিনের পরীক্ষা হতে চলেছে।
তবে এ রাজ্যে ট্রায়াল শুরু হলেও ইতিমধ্যেই গোটা বিশ্বে রাশিয়ার তৈরি এই প্রতিষেধকের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে। জানা গিয়েছে, এই ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০০ জনের শরীরে প্রতিষেধকের পরীক্ষা হলেও, তৃতীয় পর্যায়ে ১৫০০ জন স্বেচ্ছাসেবকের শরীরে এই পরীক্ষা চালানো হবে। তবে এই পরীক্ষা শুধুমাত্র করোনা নেই এমন ব্যক্তির শরীরেই করা হবে। কোনও করোনা রোগীর ওপর এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে না।

আরও পড়ুন -  ১২ঘন্টার মধ্যে ফের দুর্ঘটনা, এবার পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরায় পথ দুর্ঘটনায় মৃত ২ আহত একাধিক

পাশাপাশি আরও জানানো হয়েছে। করোনা ভ্যাকসিন শরীরে প্রয়োগের ক্ষেত্রে স্বেচ্ছাসেবকের বয়স হতে হবে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে। তবে এক্ষেত্রে বেশ কিছু বিধিনিষেধ রয়েছে৷ প্রতিষেধক নেওয়ার দু’‌মাস আগে যদি তিনি প্লাজমা বা রক্তদান করে থাকেন, তবে তাঁকে কোনোভাবেই স্বেচ্ছাসেবক করা যাবে না।

বাংলার মুকুটে নয়া পালক, বাংলার ৩ হাসপাতালে শুরু হচ্ছে রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল 2