ফের শ্যুট আউট বারাকপুর এলাকায়, গুলিতে মৃত্যু কলেজ ছাত্রর

166
Advertisement

বিশেষ সংবাদদাতা: অশান্তি থামার কোনো লক্ষণ নেই উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বারাকপুর এলাকায় । বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং-এর গড় বলে চিহ্নিত এই এলাকায় প্রায় প্রতিদিনই কোনও না কোনও রকম অশান্তি চলছে। চলছে গুলিও। দিন কয়েক আগে হালিশহর এলাকায় হামলা হয় অর্জুন সিং এর উপর । তার জেরে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের সঙ্গে গন্ডগোল বেঁধে যায় বিজেপি কর্মীদের। এই অশান্তির মাঝেই ইছাপুর এলাকায় বারাকপুরের এক কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয় । এই নিয়ে এখনো উত্তেজনা আছে বারাকপুর এলাকায় । এবার তারই মাঝে টিটাগড়ের উড়ানপাড়াতে প্রকাশ্যে চলল গুলি । এই শ্যুট আউটে মৃত্যু হয়েছে এক কলেজ ছাত্রর । মৃত ছাত্রর নাম তৌফিক আলি। বছর কুড়ির তৌফিক বারাকপুরের সুরেন্দ্র নাথ কলেজের কলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ।

Advertisement

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে যে শুক্রবার রাতে স্থানীয় কয়েকজন দুষ্কৃতীর সঙ্গে তৌফিকদের বাড়ির সামনে বাইক রাখা নিয়ে বচসা হয় । সেই সময়ে তৌফিককে লক্ষ্য করে পর পর গুলি চালাতে শুরু করে ওই দুষ্কৃতীরা। বাড়ির সামনেই গুলিবিদ্ধ হয়ে লুটিয়ে পড়ে তৌফিক । হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে মৃত বলে ঘোষণা করা হয় ।

Advertisement
Advertisement

এই ঘটনার পর শনিবারেও রীতিমতো থমথমে ওই এলাকা।

বারাকপুর পুলিশের জয়েন্ট কমিশনার অজয় ঠাকুর জানিয়েছেন যে এই ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে । মূল অভিযুক্ত আরিফ ইকবাল ওরফে ছোটু পলাতক । তার খোঁজ করা হচ্ছে ।

শুধুমাত্র গাড়ি রাখা নিয়ে বচসার জেরে এই ঘটনা না কী এর পেছনে অন্য কোনও রহস্য আছে তারও খোঁজ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে টিটাগড় এলাকার পুলিশ ।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, যে ছোটুর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠেছে সেই ছোটুর বিরুদ্ধে আগেও নানা ধরনের অভিযোগ উঠেছে । এমনকি তোলাবাজির অভিযোগও রয়েছে । বেশ কয়েক বার জেলেও গিয়েছে সে।

জানা গিয়েছে যে এলাকায় ভালো ছেলে হিসেবে পরিচিত ছিল তৌফিক । শুক্রবার রাতে সে দাঁড়িয়ে ছিল তার বাড়ির সামনে । সেই সময়ে সেখানে বাইক নিয়ে আসে কয়েক জন । সেখানে বাইক রাখতে বারণ করে তৌফিক । এই নিয়ে শুরু হয়ে যায় বচসা । এর আগেও এই বিষয়টি নিয়ে বচসা হয় বলে জানা গিয়েছে । শুক্রবার রাতে বচসা চলার সময় ওই দুষ্কৃতীরা আগ্নেয়াস্ত্র বার করে তৌফিক কে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে শুরু করে । পর পর পাঁচ টি গুলি চালানো হয় বলে জানা গিয়েছে ।

গত লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকেই রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত বারাকপুর এলাকা। তৃণমূল কংগ্রেসে ছেড়ে অর্জুন সিং বিজেপি তে আসার পর থেকেই লাগাতার অশান্তি, গুলি, সংঘর্ষ চলছে বারাকপুর এলাকায় ।
দিন চারেক আগেও হালিশহরে বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়ায় । অর্জুন সিং র ওপর হামলা হয় ও তার গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ বিজেপি র । তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে অভিযোগ । এই অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি হামলা চালায় বিজেপি । তাদের দলীয় একটি অফিস ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয় বিজেপি । এই ঘটনার পর ইছাপুর এলাকায় চম্পা দাস নামে এক কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয় বলে অভিযোগ ।