পশ্চিম মেদিনীপুর ৬০০ ছুঁয়ে , দৈনিক সংক্রমনে খড়গপুর-মেদিনীপুরের ডবল সেঞ্চুরি! দাসপুর-ঘাটাল ১০০ছাড়ালো, রেকর্ড ভাঙল ডেবরা-গড়বেতা

West Midnapore reported 578 new case last 24 hours where in the city of Kharagpur alone reported more than 100 affected, including more than one third of railway workers or their families. Railway workers have been seen attacking their families somewhere. There are 35 of them on Monday. On this day, there is less infection in IIT Kharagpur campus. According to IIT sources, 5 victims were found. On this day, the news of the highest attack in the city came from Inda area. Anandnagar, Bamunpara and 6 others were affected in Inda area. Three people were found from Talbagicha, Sanjowal, Subhash Palli and Barbetia, Nimpura and Malch. Apart from various residential areas of the railway, there have been reports of multiple attacks in South Side, Bhabanipur, Chhota Ayma, Kaushalya and Hijli areas. Also affected are Srikrishnapur, Golbazar, Jhapetapur, Chhota Ayma, Nimpura, New Settlement, Old Development, Kharida, Chandmari, South Side, Mirpur. Apart from 3 persons from Salua EFR Battalion of Kharagpur sub-division Grameen Kharagpur, the victims were found in Gokulpur, Kuchlachati, Gopali, Benapur, From Balrampur, Hiradihi, Benachali, North Ghagra and Ambigeria.

205
পশ্চিম মেদিনীপুর ৬০০ ছুঁয়ে , দৈনিক সংক্রমনে খড়গপুর-মেদিনীপুরের ডবল সেঞ্চুরি! দাসপুর-ঘাটাল ১০০ছাড়ালো, রেকর্ড ভাঙল ডেবরা-গড়বেতা 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: করোনা কালের যাবতীয় রেকর্ড ভেঙে ফেলে দৈনিক সংক্রমনে ৬০০ কাছাকাছি চলে গেল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা। মাত্র একদিন আগে যা ছিল ৩২৪, ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে তা দাঁড়ালো ৫৭৮ জনে। ২৬ শে এপ্রিল জেলায় আরটি/পিসিআর পরীক্ষায় ৩৬২, আ্যন্টিজেন পরীক্ষায় ১৯০ এবং ট্রুনাট পরীক্ষায় ২৬ জন পজিটিভ বলে চিহ্নিত হয়েছে। এ অবধি জেলার দৈনিক সংক্রমনের সর্বোচ্চ রেকর্ত ছিল ২৩ এপ্রিল, ৩৩১জন। তার সাথে আরও ২৪৭ যোগ তিন দিনের মাথায় নতুন রেকর্ড হল ৫৭৮জন।
সোমবারের এই হিসাব অনুযায়ী জেলার খড়গপুর ও মেদিনীপুর দুই শহরই ১০০ করে ছুঁয়ে ডবল সেঞ্চুরি করেছে। তারপরেই রয়েছে দাসপুর ও ঘাটাল।দুই থানা মিলে আক্রান্ত ১১৫জন ছড়িয়ে। উল্লেখ যোগ্যভাবে সংক্রমন বেড়েছে গড়বেতা এবং ডেবরা থানা এলাকায়। ওই দুই থানায় আক্রান্ত ২৬ এবং ২২ জন।

পশ্চিম মেদিনীপুর ৬০০ ছুঁয়ে , দৈনিক সংক্রমনে খড়গপুর-মেদিনীপুরের ডবল সেঞ্চুরি! দাসপুর-ঘাটাল ১০০ছাড়ালো, রেকর্ড ভাঙল ডেবরা-গড়বেতা 2

শুধু খড়গপুর শহরে আক্রান্ত ১০০ ছুঁয়ে গেছে যার মধ্যে এক তৃতীয়াংশের বেশি রেল কর্মচারী অথবা তাঁদের পরিবার। কোথাও কোথাও সপরিবারেও আক্রান্ত হতে দেখা গেছে রেলকর্মীদের। সোমবার বার এঁদের সংখ্যা ৩৫ জন। এদিন কিছুটা কম সংক্রমন আইআইটি খড়গপুর ক্যাম্পাসে। ৫ জন আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে আইআইটি সূত্রে। এদিন শহরের সর্বোচ্চ আক্রান্তের খবর এসেছে ইন্দা এলাকা থেকে। আনন্দনগর, বামুনপাড়া মিলিয়ে ইন্দা এলাকায় আক্রান্ত ৮জন।
তালবাগিচা, সাঁজোয়াল, সুভাষপল্লী ও বারবেটিয়া, নিমপুরা ও মালঞ্চ থেকে ৩ জন করে আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে।
রেলের বিভিন্ন আবাসন এলাকা ছাড়া সাউথ সাইড,ভবানীপুর, ছোট আয়মা, কৌশল্যা ও হিজলী এলাকায় একাধিক আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। এছাড়াও আক্রান্ত মিলেছে শ্রীকৃষ্ণপুর, গোলবাজার, ঝাপেটাপুর, ছোট আয়মা, নিমপুরা, নিউ সেটেলমেন্ট, ওল্ড ডেভলপমেন্ট, খরিদা, চাঁদমারি, সাউথ সাইড, মিরপুর থেকে।  খড়গপুর মহকুমার গ্রামীন খড়গপুরের সালুয়া ইএফআর ব্যাটেলিয়ান থেকে ৩ জন ছাড়াও আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে গোকুলপুর, কুচলাচটি, গোপালী, বেনাপুর,
বলরামপুর, হিরাডিহি, বেনাচালি, উত্তর ঘাগরা ও আম্বিগেড়িয়া থেকে।

পশ্চিম মেদিনীপুর ৬০০ ছুঁয়ে , দৈনিক সংক্রমনে খড়গপুর-মেদিনীপুরের ডবল সেঞ্চুরি! দাসপুর-ঘাটাল ১০০ছাড়ালো, রেকর্ড ভাঙল ডেবরা-গড়বেতা 3

এদিন মেদিনীপুর শহরও ১০০ ছুঁয়ে গেছে। দুটি পারিবারিক সংক্রমন নিয়ে শহরে সর্বাধিক ১২ জন আক্রান্ত রাঙামাটি এলাকা। মির্জাবাজারে ৭ ও নিয়ে এগিয়ে কুইকোটা এলাকায় ৬ জন আক্রান্ত। নজরগঞ্জ, মহাতাপপুর ও ভোলাময়রার চকে(একই পরিবার) ৪জন করে আক্রান্ত। নতুনবাজারেও একই পরিবারের ৩জন আক্রান্ত। হাতারমাঠ, শরৎপল্লী, অরবিন্দনগর, তাঁতিগেড়িয়া, পুলিশ লাইনে নূন্যতম ২জন করে আক্রান্ত। এছাড়াও আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে বাড়মানিকপুর, বিধাননগর, আবাস, সিপাহীবাজার, বড়বাজার, পাটনাবাজার, ছোটবাজার, রাজকৃষ্ণনগর, বৈশালীপল্লী, তোড়াপাড়া, বল্লভপুর, মাইকেল মধুসূদন নগর ও মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ থেকে। ৫ জন পুলিশ কর্মী সহ শহরে সুনির্দিষ্ট ঠিকানা উল্লেখ করা হয়নি এমন ২২ জন আক্রান্ত। মেদিনীপুর সদরে খয়েরউল্লাচক, শঙ্খডাঙ্গা,কঙ্কাবতী, ধেড়ুয়া, চাঁদাবিলা, গোহালডাঙ্গা ও ডুমুরখোলায় একজন করে আক্রান্ত।

ডেবরা থানায় দুই পরিবারে চারজন সহ পসঙ এলাকায় আক্রান্ত ৫জন। পাইকার বীরভূমে আক্রান্ত একই পরিবারের ৩জন। বাকি আক্রান্তরা আলিসাগর, ডেবরা, বাকলসা রামনারায়ন বারাতি, বলরামপুর আত্মরাম, বুড়িগেড়িয়া অর্জুনি, হরিহরপুর বালিচক, চককানু, ভোগপুর, বলভপুর, লছিপুর ও রঘুনাথপুর বালিচক এলাকার।
পিংলা থানায় নতুন সংক্রমনের খোঁজ মিলেছে নারাঙাদীঘি, বেলরিয়া, পিংলা ও গোবর্ধনপুর থেকে। সবঙয়ের কোলন্দা, রামপুরা, তেমাথানি ও ভিসিন্ডিপুরে ১জন করে আক্রান্ত।

দাঁতনের সরাইবাজার, সিজুয়া চকইসমাইল, জয়পুরা উত্তররায়বাড়, জাতিখরকাই ও কৃষ্ণপুরে নতুন সংক্রমনের সন্ধান মিলেছে। মোহনপুরের মোহনপুর, গড়োরা, শালিখাই, চাতাবেলিতে ১জন করে আক্রান্ত। বেলদা থানার পানিয়াড়া পোরলদা, সাইকপাটনা, বুধারুই, কূটকি রানিসরাই, শ্যামপুরা, বেলদা ছাড়াও রবীন্দ্রনগরে একই পরিবারের চার আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে। নারায়নগড় সদরে দুজন ছাড়াও মকরামপুরে ২জন ও বাড়ধেনু কুনারপুরে আক্রান্ত পাওয়া গেছে। কেশিয়াড়ীর চকবিলা বেনাডিহাতে একই পরিবারে আক্রান্ত ৪ জন।

মেদিনীপুর সদর মহকুমার গড়বেতায় সংক্রমন এক লাফে বেড়ে ২২জন। সংক্রমনের খবর এসেছে দুর্লভগঞ্জে ৩জন,নোহারিতে ৩জন, সাতবাঁকুড়া, রাউতারা, নবকোলা ও লাপুরিয়ায় ২জন করে। এছাড়া ঠাকুরানীতলা, গনকবাঁধি, লেদাগামার, ডাঙধরা, মোহনপুর উত্তরবিল,
রাধানগর, পানিকোটর, ওরগাঁজা, ডিগরি, করসা পানিকোটর, করমাশোল, নয়াবসত ও শিয়রতলা থেকে। গোয়ালতোড়ের এড়াইমারা, গোয়ালতোড়, ধামচা, কিয়ামাচা ছাড়াও জগারডাঙার একই পরিবারে ৩ আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে। শালবনীর ট‍্যাঁকশাল কলোনিতে গতকালের পর সোমবারও নতুন করে ৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া মানশোল, রাউতারা, ভাউদি, চকতারিনি, কোরাডানা, ভাতমোড়ে ১জন করে আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে। সিয়ারপিএফ ব্যাটেলিয়ানের জওয়ান ও ওসিএল কর্মী সহ থানা এলাকায় মোট আক্রান্ত ১৩ জন।

ঘাটাল মহকুমার দাসপুরে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৭৫ জন। সর্বাধিক আক্রান্ত পাঁচঘরিয়াতে। ৩টি পারিবারিক সংক্রমনে ৭ আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে এখান থেকেই।এছাড়া পারিবারিক সংক্রমনের খবর এসেছে পাঁচবেড়িয়া,সীতাপুর, ভূতা, জোত ঘনশ্যাম, হরেকৃষ্টপুর, বেনাই, গোছাতি, গৌরাচক, কমলপুর, শ্রীবড়া থেকে। নতুন আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে হরিরামপুর, চকসুলতান, খেপুত, নিশ্চিন্তিপুর, বড়মুদিয়া, দাসপুর, পলাশপাই, শ্রীরামপুর হাদোল, গমকপোতা, হেমতপুর, ভনতা, কেলেগোদা, জটাধরপুর, রামকৃষ্ণপুর, চাইপাট, কইগেড়িয়া, বড়সিমলা, রাধাবলভচক, কাজিপুর, সাহাচক, কাশিয়াড়া, নাড়াজল, চককৃষ্ণপাট, পদমপুর, জোটদুনতি, খঞ্জরপুর, রানিচক এলাকায়।

ঘাটাল থানা এলাকার কুশপাতা ও গম্ভীরনগর থেকে ৬ জন করে আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে। কুরান, ঘোলসাই, নতুক থেকে মিলেছে ২জন করে আক্রান্ত। এছাড়া সিংহপুর, নিমতলা গোবিন্দনগর, দৌলতচক, দেওয়ানচক, বেতগ্রাম, জোতকুন্ডু, দলপতিপুর, কামারগেড়িয়া, দিঘা আনন্দপুর, ঘাটাল, বেউরগ্রাম, কোন্নগর, শ্যামসুন্দরপুর,লছিপুর, ঘাগরা
কিসমৎদীর্ঘগ্রাম,শীতলপুর থেকে আক্রান্ত পাওয়া গেছে।
চন্দ্রকোনার ক্ষীরপাই পৌর এলাকা থেকে মিলেছে ৬ আক্রান্তের সন্ধান। টুকুরিয়াতে আক্রান্ত ২ জন। বাকি আক্রান্তরা কামারডাঙ্গা, জগন্নাথপুর বারোমুদিয়া, হেমতপুর, বকছড়ি, রানীগঞ্জ মাধবপুর, বালা, গোপসাই এলাকার বাসিন্দা।

Previous articleভারতে অক্সিজেন ঘাটতি অব্যাহত!এবার ৩৮ লাখ টাকা অনুদান দিলেন KKR তারকা
Next articleলোকসভার মতই ফের নিজের গড়ে নজর বন্দি অনুব্রত! পরওয়া নেই কেষ্টর