দেশে কমতে শুরু করেছে করোনা সংক্রমণ; দৈনিক আক্রান্তের চেয়ে বেশি পুনরুদ্ধারের সংখ্যা

70
Advertisement

নিউজ ডেস্ক: করোনার সংক্রমণের কারণে দেশে পরিস্থিতি এখনও ভয়াবহ। প্রতিদিন প্রায় তিন লক্ষেরও বেশি নতুন কেস আসছে এবং প্রায় চার হাজার সংক্রামিত মানুষ মারা যাচ্ছেন। তবে, ভাল বিষয়টি হ’ল নতুন কেসের থেকে বেশি পুনরুদ্ধারের সংখ্যা। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের প্রকাশিত সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘন্টায় ৩ লাখ ২৬ হাজার ৯৮ টি নতুন করোনার কেস এসেছে এবং ৩ হাজার ৮৯০ সংক্রামিত মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। একই সময়ে, একদিনে করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন ৩ লক্ষ ৫৩ হাজার ২৯৯ জন ব্যক্তি। অর্থাৎ, ৩১ হাজার ৯১ টি সক্রিয় কেস কম হয়েছে।

Advertisement

১৫ ই মে অবধি সারা দেশে ১৮ কোটি ৪ লক্ষ ৫৭ হাজার ৫৭৯ করোনার ডোজ দেওয়া হয়েছে। আগের দিন ১১ লক্ষ ৩ হাজার ৬২৫ টি ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছিল। একই সময়ে, ৩১.৩০ কোটিরও বেশি করোনার পরীক্ষা করা হয়েছে। শুক্রবার ১৭ লক্ষ করোনা টেস্ট করা হয়েছিল, যার পজিটিভিটির হার ১৭ শতাংশের বেশি।

Advertisement
Advertisement

আজ করোনার সর্বশেষ পরিস্থিতি-

মোট করোনার কেস – ২ কোটি ৪৩ লক্ষ ৭২ হাজার ৯০৭ টি।

মোট টেস্ট – ২ কোটি ৪ লক্ষ ৩২ হাজার ৮৯৮ টাকা।

মোট অ্যাক্টিভ কেস – ৩৬ লক্ষ ৭৩ হাজার ৮০২।

মোট মৃত্যু- ২ লক্ষ ৬৬ হাজার ২০৭ জন।

দেশে করোনার মৃত্যুর হার ১.০৯ শতাংশ এবং পুনরুদ্ধারের হার ৮৩ শতাংশেরও বেশি। অ্যাক্টিভ কেসগুলি ১৬ শতাংশেরও কম হয়েছে। করোনার অ্যাক্টিভ কেসের দিক থেকে ভারত বিশ্বের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। সংক্রামিত মোট সংখ্যার দিক থেকেও ভারত দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। আমেরিকা ও ব্রাজিলের পরে ভারতে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত ২০ হাজার ৮৪৬ জন এবং মৃত ১৩৬ জন। আশঙ্কার মাঝে অবশ্য স্বস্তির খবরও রয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন ১৯ হাজার ১৩১ জন, যার ফলে এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা মুক্তির হার পৌঁছে গেল ৮৬.৭৮ শতাংশে। স্বাস্থ্য দপ্তরের বুলেটিন অনুযায়ী, সব মিলিয়ে রাজ্যে করোনা থেকে মুক্ত হয়েছেন ৯,৫০,০১৭ জন।

রাজ্যে করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ দুই জেলা উত্তর ২৪ পরগনায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজারের ৯১৭ জন মানুষ এবং কলকাতায় ৩ হাজার ৯৫৫ জন। কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনায় মৃত্যু হয়েছে ৪২ ও ৩৪ জনের।