দেশ জুড়ে করোনার সুনামি; যে কোনও মূল্যে সারা দেশে ভ্যাকসিন ও অক্সিজেনের ব্যবস্থা করার কথা জানিয়ে মোদিকে চিঠি সদ্য সন্তান হারানো পিতা সীতারাম ইয়েচুরির

334
দেশ জুড়ে করোনার সুনামি; যে কোনও মূল্যে সারা দেশে ভ্যাকসিন ও অক্সিজেনের ব্যবস্থা করার কথা জানিয়ে মোদিকে চিঠি সদ্য সন্তান হারানো পিতা সীতারাম ইয়েচুরির 1

নিউজ ডেস্ক: “অসম্ভব বেদনা, কষ্ট এবং যন্ত্রণা নিয়ে আমি আপনাকে এই চিঠি লিখছি। বর্তমানে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় কার্যত সুনামির আকার নিয়ে আছড়ে পড়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের উদাসীন দৃষ্টিভঙ্গি, মনোভাবের কারণেই পরিস্থিতি এত খারাপ হয়েছে।” করোনার ছোবলে সদ্য সন্তান হারানো এক পিতার আর্তনাদ ও ক্ষোভ মিশ্রিত চিঠি প্রধানমন্ত্রীকে। সেইসঙ্গেই তার আর্জি, দেশের সব হাসপাতালগুলিতে নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহ এবং বিনামূল্যে সর্বজনীন টিকারকণের ব্যবস্থা। করোনা পরিস্থিতির শিকার হয়ে সদ্য বড় ছেলেকে হারিয়ে এই চিঠি শনিবার প্রধানমন্ত্রী মোদিকে লিখেছেন, সিপিআইএম-এর সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।

চিঠিতে সীতারাম ইয়েচুরি আবেদন জানিয়েছেন, কেন্দ্রের ভিস্তা প্রকল্প বাতিল করে পিএম কেয়ার্স ফান্ডের অর্থ অক্সিজেন এবং ভ্যাকসিনের জন্য ব্যয় করার। তিনি লিখেছেন, “সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে দুটি বিষয় নিশ্চিত করার জন্য জরুরি ভিত্তিতে এই চিঠি লিখছি, যে কোনও মূল্যে সারাদেশের সমস্ত হাসপাতাল এবং রোগীদের চিকিৎসার জন্য নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেনের ব্যবস্থা করুন। সমস্ত রাজ্য সরকারকে একত্রিত করে বিনামূল্যে সর্বজনীন টিকাদান কর্মসূচি নিন। মৃত্যু মিছিল রুখতে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ সোর্স থেকে অবিলম্বে টিকা রফতানির ব্যবস্থা করুন।”

দেশ জুড়ে করোনার সুনামি; যে কোনও মূল্যে সারা দেশে ভ্যাকসিন ও অক্সিজেনের ব্যবস্থা করার কথা জানিয়ে মোদিকে চিঠি সদ্য সন্তান হারানো পিতা সীতারাম ইয়েচুরির 2

তিনি চিঠিতে আরও লিখেছেন যে, “আপনি যদি আমাদের সহযোদ্ধাদের অক্সিজেন এবং ভ্যাকসিন সরবরাহ করে মৃত্যু মিছিল রোধ করতে না পারেন, সেক্ষেত্রে আপনার সরকার ক্ষমতায় থাকার নৈতিকতা হারাবে। এই মুহূর্তে বিপর্যয় মোকাবিলাই একমাত্র লক্ষ্য এবং এখনও পর্যন্ত আপনার সরকার এই প্রাথমিক দায়িত্বই পালন করতে ব্যর্থ হয়েছে।”

প্রসঙ্গত, মাত্র ৩৪ বছরে মারণ ভাইরাসের থাবায় প্রাণ হারিয়েছেন, সিপিএইএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির বড় ছেলে আশিস ইয়েচুরি। আশিস সামনের জুনেই ৩৫ বছর বয়সে পা দিতেন। প্রায় দুই সপ্তাহ তিনি করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। প্রথমে তাঁকে গুরুগ্রামের একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল, সেখানে থেকে তাঁকে স্থানান্তরিত করে মেদান্ত হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে সাড়ে ৫ টা নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন আশিস। ট্যুইট করে ছেলের মৃত্যুর খবর দিয়েছিলেন বাম নেতাই।

ট্যুইটে তিনি লিখেছিলেন, “গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি কোভিডে আক্রান্ত হয়ে আমার বড় ছেলে আশিস ইয়েচুরির আজ সকালে মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানাই তাঁর চিকিৎসা করার জন্য। যেসকল চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, নার্স এবং অন্যান্যরা আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন, তাঁদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।” আশিস চেন্নাইয়ে এশিয়ান কলেজ থেকে জার্নালিসম পড়েছেন, বিভিন্ন বেসরকারি প্রকাশনায় কর্মরত ছিলেন তিনি। এমনকি পুনে যাওয়ার আগে টাইমস অফ ইন্ডিয়া, দিল্লীতেও কর্মরত ছিলেন।

ছেলের এই অকাল প্রয়াণে অবিচল থেকেও চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, নার্স সকলকে ধন্যবাদই জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দেশ জুড়ে করোনার ভয়ানক পরিস্থিতি এবং সেইসঙ্গেই অক্সিজেনের জন্য হাহাকারে এই পিতাই বিচলিত হয়ে পড়েছেন, যেন অন্য কোনও পিতাকেও এইভাবে সন্তান হারানোর যন্ত্রণা সহ্য করতে না হয়। আর তাইতো কাতর আবেদন এবং ক্ষোভ মিশ্রিত ভাষাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে পর্যাপ্ত অক্সিজেন ও ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা তিনি করতে বলেছেন।

Previous articleহুঁশ ফিরেছেনা খড়গপুরের! শহরের সংক্রমিত তালবাগিচা ও মালঞ্চয় একই দিনে মৃত্যু করোনা আক্রান্ত ব্যবসায়ী ও প্রাক্তন শিক্ষকের
Next articleমাস্ক পরুন, বার বার হাত ধুতে থাকুন! ভয়াবহ সংক্রমিত খড়গপুর শহরের রাস্তায় নামল আমরা বামপন্থী