ফের রাজনৈতিক মহলে করোনার দাপট, করোনায় সংক্রমিত হয়ে প্রয়াত পানহাটি পুর প্রশাসক স্বপন ঘোষ

202

ওয়েব ডেস্ক : মারণ ভাইরাসের সংক্রমিত হয়ে গত কয়েকদিনে একের পর এক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব চলে গিয়েছেন না ফেরার দেশে। বিধাননগরের তৃণমূল কাউন্সিলর সুভাষ বসুর পর এবার করোনার বলি হলেন পানিহাটির বিদায়ী পুরপ্রধান ও প্রশাসক স্বপন ঘোষ। জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিন যাবৎ অসুস্থ ছিলেন স্বপনবাবু। জ্বর কাশি সহ শরীরে একাধিক করোনা উপসর্গ থাকায় করোনা পরীক্ষা করান স্বপণবাবু। এরপর বুধবার তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এলে বাইপাসের এক বেসরকারি হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন।

আরও পড়ুন -  দোকান তৈরি নিয়ে তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষ, উত্তপ্ত ডোমকল

এরপর বৃহস্পতিবার গভীর রাতে আচমকা তাঁর শারীরিক অসুস্থতা বাড়তে থাকে। একসময় চিকিৎসায় সাড়া দেওয়া বন্ধ করেন স্বপনবাবু। শেষেমেশ ভোর ৪টে নাগাদ পরপর দু’‌বার স্ট্রোক হওয়ার পর মৃত্যু হয় তাঁর। জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে কিডনি সংক্রান্ত সমস্যায় ভুগছিলেন বর্ষীয়ান রাজনীতিক স্বপন ঘোষ। ৩ বছর আগে তাঁর কিডনি প্রতিস্থাপনও করা হয়। তবে শুধুমাত্র স্বপনবাবু নয়, কিছুদিন আগেই মারণ ভাইরাসের কবলে পড়েছিলেন স্বপনবাবুর দাদা বিধানসভার মুখ্য সচেতক ও বিধায়ক নির্মলকান্তি ঘোষ ও তাঁর ছোট ছেলে৷ তবে তাঁরা দুজনের এই মূহুর্তে সঙ্কটমুক্ত।

১০ বারের কাউন্সিলর স্বপনবাবু ২০১৫ সালে পানিহাটি পুরসভার পুরপ্রধান হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালের অক্টোবর পানিহাটি পুরসভার বোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়। এরপর সম্প্রতি পুর প্রশাসকের দায়িত্বে আনা হয় বছর ৭৫ এর বয়সি স্বপন ঘোষকে। করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হওয়ার কারণে করোনা বিধি মেনেই তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, হাসপাতাল থেকে পানিহাটি পুরসভার সামনে গাড়িতে করে তাঁর মৃতদেহ আনা হবে। তারপর খড়দহে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হবে। বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবেই শোকের ছায়া রাজনৈতিক মহলে।

ফের রাজনৈতিক মহলে করোনার দাপট, করোনায় সংক্রমিত হয়ে প্রয়াত পানহাটি পুর প্রশাসক স্বপন ঘোষ 1