মৎস্যজীবীদের জালে উঠছে কুমিরছানা, মা কুমিরের খোঁজ শুরু, আতঙ্ক খেজুরিতে

305
মৎস্যজীবীদের জালে উঠছে কুমিরছানা, মা কুমিরের খোঁজ শুরু, আতঙ্ক খেজুরিতে 1

ভীষ্মদেব দাশ, খেজুরিঃ মৎস্যজীবীদের জালে উঠল কুমির ছানা যারফলে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন মৎস্যজীবী পরিবারগুলি। এক মাসের মধ্যে পরপর দুটি কুমির ছানা ধরা পড়ল মৎস্যজীবীদের জালে। গত ১২ই সেপ্টেম্বর খেজুরি-২ ব্লকের নিজকসবাতে মৎস্য খটিতে জালে উঠেছিল কুমির ছানা। মৎস্যজীবীদের থেকে কুমির ছানাটিকে উদ্ধার করেছিল বনদপ্তর। বনদপ্তর সুত্রে জানাগিয়েছে কুমিরছানাটিকে সংরক্ষনে পাঠানো হয়েছে। আতঙ্ক কাটিয়ে মৎস্যজীবীরা আপনমনে পুণরায় মৎস্য আহরনে নেমেছে সমুদ্রে। কিন্তু আজ নতুন করে পাঁচুড়িয়াতে শ্যামল মন্ডল, বাসুদেব প্রধান, অজয় প্রামানিক, নিতাই প্রামানিকদের জালে পাঁচুড়িয়া সমুদ্র তীরবর্তী প্রধান খটি এলাকায় উঠল কুমির ছানা। যারফলে ভীত মৎস্যজীবীরা। ১৫কিলোমিটারেরও বেশি এলাকাজুড়ে ম্যানগ্রোভ অরন্য রুপায়ন হয়েছে খেজুরিতে।

আরও পড়ুন -  বাড়িতে বসেই ক্লাশ চালু করে দিল রাজ্য, নবম থেকে দ্বাদশ স্কুল খুললেই দেখাতে হবে টাস্ক

বিশেষজ্ঞদের মতে নিরিবিলি ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল কুমিরের ডিম পাড়ার আদর্শ স্থান। পরপর ২কিলোমিটার এলাকার মধ্যে কুমির ছানা উদ্ধার হওয়ায় চিন্তিত বনদপ্তরের আধিকারিকরা। উদ্ধার হওয়া কুমির ছানার বয়স আনুমানিক ২মাস। একটি কুমির ৮৫-১০০টি ডিম পাড়তে পারে। ফলে আরও কুমির ছানা রয়েছে। মা কুমিরের সন্ধানেও নজরদারি চালাচ্ছেন তাঁরা। নিজকসবা পঞ্চায়েতের উপপ্রধান ও শিক্ষক সমুদ্ভব দাস জানান, মৎস্যজীবীদের জালে কুমির ছানা উঠেছে। যারফলে আতঙ্কিত উপকূলবর্তী খেজুরির মৎস্যজীবীরা। ম্যানগ্রোভ অরন্য রুপায়ন হয়েছে খেজুরির সমুদ্রতটে। যারফলে কুমিরের বসবাস করার জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি হয়েছে। কুমির ছানা জালে উঠে আসছে, তাই মা কুমির থাকাটা স্বাভাবিক। মৎস্যজীবীদের সাবধান করা হয়েছে। খটি গুলিতে নজরদারি রাখা দরকার। মৎস্যজীবী শ্যামল মন্ডল বলেন, নিজকসবাতে জালে কুমির ছানা উঠেছে শুনে ভয় পেয়েছিলাম। ভেবেছিলাম তেমন ভয়ের কিছু নেই। তবে আজ আমাদের জালে ওঠায় খুব ভয় পেলাম। সমুদ্রের ধারে যেতেই ভয় করছে। কিন্তু মৎস্য আহরন করেই আমাদের সংসার চলে যদি সমুদ্রে যেতে না পারি তাহলে অনাহারে দিন কাটাতে হবে। প্রশাসনের তরফে কোনও ব্যাবস্থা গ্রহন করলে আমরা ভয় কাটিয়ে সমুদ্রে যেতে পারবো। নিজকসবা বনদপ্তরের বিট অফিসার বাপ্পা নাথ বলেন, আমরা পাঁচুড়িয়া থেকে কুমির ছানাটিকে উদ্ধার করেছি। কুমিরছানাটিকে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। চিকিৎসাও হবে। তারপর সংরক্ষণে পাঠানো হবে। বড় কুমির থাকার সম্বাবনা রয়েছে। সকলকে সচেতন থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

মৎস্যজীবীদের জালে উঠছে কুমিরছানা, মা কুমিরের খোঁজ শুরু, আতঙ্ক খেজুরিতে 2