অতিরক্ত খরচ থেকে মুক্তি! বাইক এবং গাড়িতে এক অন্যরকম পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দিতে চলেছে কেন্দ

490
অতিরক্ত খরচ থেকে মুক্তি! বাইক এবং গাড়িতে এক অন্যরকম পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দিতে চলেছে কেন্দ 1

নিউজ ডেস্ক: ক্রমাগত বেড়েই চলেছে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম । এই দাম বৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের মধ্যে চরম সংঘাত দেখা দিয়েছে। নিত্যযাত্রীরা পেট্রোল ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে হাঁসফাঁস করছে। তারই মাঝে এদিন স্বস্তির খবর দিল কেন্দ্রীয় সরকার।

অতিরক্ত খরচ থেকে মুক্তি! বাইক এবং গাড়িতে এক অন্যরকম পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দিতে চলেছে কেন্দ 2

কেন্দ্রীয় সরকার বাইক এবং গাড়িতে এক অন্যরকম পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দিতে চলেছে, যার নাম ইথানল পেট্রোল ( E20 )। কেন্দ্রীয় সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রকের তরফে ইতিমধ্যেই একটি বিজ্ঞপ্তি জারি এই ইথানল মিশ্রিত পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

অতিরক্ত খরচ থেকে মুক্তি! বাইক এবং গাড়িতে এক অন্যরকম পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দিতে চলেছে কেন্দ 3

,এই নতুন পেট্রোলে ২০ শতাংশ ইথানল থাকবে। মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, এটি পরিবেশের পক্ষেও ভাল, কারণ এটি সাধারণ পেট্রোলের তুলনায় কার্বন মনোক্সাইড এবং হাইড্রোকার্বন অনেক মাত্রায় কম নির্গত করে। তবে এই জ্বালানির নেওয়ার জন্য গাড়ি ও বাইক প্রস্তুতকারী সংস্থাদের গাড়িতে একটি স্টিকার লাগাতে হবে।

E20 পেট্রোলের সুবিধা:

১. ইথানল পেট্রোল ব্যবহারের ফলে পেট্রোলিয়ামের উপর ভারতের নির্ভরতা অনেকাংশে হ্রাস পাবে। বর্তমানে, ভারত তার তেলের প্রয়োজনীয় ৮৩ শতাংশ আমদানি করে।

২. কার্বন ডাই অক্সাইড হ্রাস পেলে বায়ুমণ্ডলের ক্ষতির মাত্রাও হ্রাস পাবে।

৩. ইথানলের বর্ধিত ব্যবহার কৃষকদের উপকৃত করবে, তাদের আয় বৃদ্ধি পাবে, কারণ ইথানল আখ, ভুট্টা এবং অন্যান্য অনেক ফসল থেকে তৈরি হয়।

৪. সুগার মিলগুলি আয়ের একটি নতুন উৎস পাবে যা থেকে তারা তাদের কৃষিজ বকেয়া পরিশোধ করতে সক্ষম হবে।

৫. ইথানল বেশ অর্থনৈতিক, তাই গ্রাহকরাও পেট্রোলের ক্রমবর্ধমান দাম থেকে কিছুটা স্বস্তি পাবেন।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় সরকারের জারি করা বিবৃতি তে বলা হয়েছে, “২০২৫ সালের মধ্যে ২০ শতাংশ ইথানল মিশ্রণের জন্য, ১২০০ কোটি অ্যালকোহল ,ইথানল প্রয়োজন হবে। ৭০০ মিলিয়ন লিটার ইথানল তৈরি করতে, চিনি শিল্পকে ৬ মিলিয়ন টন উদ্বৃত্ত চিনি ব্যবহার করতে হবে। আর অন্যান্য ফসল থেকে ৫০০ মিলিয়ন লিটার ইথানল তৈরি করা হবে।”

এমন সুবিধা পেয়ে অন্তত মধ্যবিত্তের পকেটে টান কিছুটা হলেও কম পড়বে।

Previous articleবালিভূমি সাহিত্য পুরস্কারে সম্মানিত খড়গপুরের কামরুজ্জামান, সম্মানিত খড়গপুরের সাহিত্য জগৎ
Next articleরেলের দপ্তরে আগুন! মৃত্যুও যখন দোষ চাপানোর খেলা