প্রচারে বেরিয়ে টাকা বিলি; সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও ঘিরে বিতর্কের মুখে বিজেপি প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারী

338
প্রচারে বেরিয়ে টাকা বিলি; সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও ঘিরে বিতর্কের মুখে বিজেপি প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারী 1

নিউজ ডেস্ক: ভোট প্রচারে বেরিয়ে টাকা বিলি; সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও ঘিরে বিতর্কের মুখে রানাঘাট দক্ষিণের বিজেপি প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারী। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে বিজেপি প্রার্থী কর্মী, সমর্থকদের নিয়ে প্রচারে বেরিয়ে বাড়ি বাড়ি টাকা বিলি করছেন। জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব এ নিয়ে সরব হয়েছেন। বিজেপি প্রার্থী ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে, এই অভিযোগে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হতে চলেছে তৃণমূলের নেতারা।

ভাইরাল হওয়া এই ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, এক প্রার্থী বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা কোনও একজনের বাড়িতে গিয়ে তাঁদের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন। কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে কেউ একজন বলছেন, ”স্যার যখন বলেছেন, আপনার চিন্তা নেই। আপনার চোখ খারাপ? চেষ্টা করব চিকিৎসা করিয়ে দিতে।

প্রচারে বেরিয়ে টাকা বিলি; সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও ঘিরে বিতর্কের মুখে বিজেপি প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারী 2

শুধু তাই নয়, ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বিজেপির কোনও একজন কর্মী একজন মহিলার হাতে ৫০০ টাকার নোট ধরিয়ে দিলেন। এই ভিডিওটি ভাইরাল হতে বেশি সময় লাগেনি। আর ইতিমধ্যেই তা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়ে গিয়েছে জেলার রাজনীতির অন্দরে। তৃণমূল শিবিরের দাবী, ভিডিওতে প্রার্থী হিসেবে যাঁকে দেখা যাচ্ছে, তিনি আর কেউ নন, রানাঘাট দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারী।

বিজেপি প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারী বিষয়টি যে আংশিক সত্য, তা মেনে নিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, ”আমরা আমাদের দলীয় কর্মসূচি গৃহ-সংকল্প অভিযানে গিয়েছিলাম, এটা সত্যি কথা। প্রায় ৩০০ জন কর্মী নিয়ে পদযাত্রা করেছিলাম। পার্টি কর্মী, সাধারণ নাগরিক মিলিয়ে কয়েক হাজার লোক হয়েছিল মিছিলে। বিজেপির একজন কর্মকর্তার অসুস্থ মেয়েকে দেখতে গিয়েছিলাম। তার চোখের কিছু সমস্যা হয়েছিল।”

প্রসঙ্গত, একই অভিযোগ উঠেছিল ঝাড়গ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের  বিজেপি প্রার্থী সুখময় শতপথীর বিরুদ্ধেও। ঝাড়গ্রামের দলীয় কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ঝাড়গ্রামের জুবলি মার্কেটে প্রচারে বেরোন ঝাড়গ্রামের বিজেপি প্রার্থী সুখময় শতপথী। সেখানে সকলের সঙ্গে জনসংযোগ করেন তিনি। সেইসময় প্রচার চলাকালীন ভেসে আসে কয়েকটি শব্দ-“ভোটের আগের দিন আসিস, খরচা দিয়ে দেব।” আর এমন ভিডিও ভাইরাল হতেই সরগরম হয়ে ওঠে রাজ্য-রাজনীতি। নির্বাচন কমিশনের কাছে এনিয়ে নালিশও ঠোকেন তৃণমূল প্রার্থী বীরবাহা হাসদাঁ। তবে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপি প্রার্থী  সুখময় শতপথী জানান, তিনি নিজের মতন বাজারে প্রচার কর্মসূচি সারছিলেন। ভিড়ের মধ্যে কে কি বলে উঠল সেটার দায় তাঁর নয়।