শহর ছেড়ে গ্রামের পথে করোনা! খড়গপুর মেদিনীপুর শহর ছেড়ে ফের ঘাটালেই সংক্রমনের বাড়বাড়ন্ত, আক্রান্ত পুলিশ আধিকারিকও

1246
শহর ছেড়ে গ্রামের পথে করোনা! খড়গপুর মেদিনীপুর শহর ছেড়ে ফের ঘাটালেই সংক্রমনের বাড়বাড়ন্ত, আক্রান্ত পুলিশ আধিকারিকও 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: ২৭শে অক্টোবর একটু হলেও সংক্রমন কমেছে খড়গপুর ও মেদিনীপুর শহরে তুলনায় সংক্রমন বেড়েছে ঘাটাল মহকুমা এলাকায়। এমনকি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ঘাটাল মহকুমার এক পুলিশ আধিকারিকও। জেলায় প্রথম করোনা সংক্রমন ঘটেছিল এই ঘাটাল মহকুমাতেই। তারপর প্রায় মাস তিনেক এই মহকুমাতেই ঝড়ো ব্যাটিং করে করোনা। বিশেষ দাসপুর থানা এলাকায় সংক্রমন ভয়াবহ রূপ নেয়। তারপর একে একে চন্দ্রকোনা ও ঘাটাল থানা এলাকাতেও সংক্রমন ছড়িয়ে পড়েছিল। জুন জুলাই মাসে সংক্রমনের ঝাঁপি খুলেছিল খড়গপুর শহর আর আগষ্ট সেপ্টেম্বরে মেদিনীপুর শহর। বর্তমানে প্রায় সর্বত্রই একই রূপ। কম বেশি সব জায়গাই আক্রান্ত। পুজোর দিনগুলো করোনা পরীক্ষার হার কিছুটা কম। দিনে গড়পড়তা প্রায় ৫০০টি পরীক্ষা হচ্ছে কিন্তু সেই তুলনায় সংক্রমন কমেনি বরং বেড়েছে।

শহর ছেড়ে গ্রামের পথে করোনা! খড়গপুর মেদিনীপুর শহর ছেড়ে ফের ঘাটালেই সংক্রমনের বাড়বাড়ন্ত, আক্রান্ত পুলিশ আধিকারিকও 2

তারই মধ্যে সামান্য স্বস্তি মঙ্গলবারের আরটি/পিসিআর রিপোর্টে খড়গপুর ও মেদিনীপুর। খড়গপুরে মাত্র ৯জন আক্রান্ত হয়েছেন। শহরের খরিদায় ৩৪বছরের যুবক এবং ঝাপেটাপুরে ৪৩ বছরের পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন। শহরের ইন্দা এলাকায় ৬৩, পাঁচবেড়িয়ায় ৮০ ও লিটিল সিস্টার সংলগ্ন এলাকায় ৬৫ বছরের তিন বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন। রেল এলাকায় আক্রান্ত ৫৫ বছরের প্রৌঢ়। নিমপুরার সুষমাপল্লীতে একই পরিবারের ৫০বছরের পুরুষ, ৩৮বছরের মহিলা এবং ১৮ বছরের তরুণী আক্রান্ত হয়েছেন।

শহর ছেড়ে গ্রামের পথে করোনা! খড়গপুর মেদিনীপুর শহর ছেড়ে ফের ঘাটালেই সংক্রমনের বাড়বাড়ন্ত, আক্রান্ত পুলিশ আধিকারিকও 3

আরটি/পিসিআর রিপোর্ট মোতাবেক মেদিনীপুরে আক্রান্ত ১৮ জন। এরমধ্যে কুইকোটাতে আক্রান্ত ৩৭, ৩৫ ও ৪২ বছরের তিন পৃথক পরিবারের এক মহিলা ও ২ পুরুষ। মানিকপুরে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪ ও ৩০ বছরের পুরুষ। মহাতাপ পুরে ৪২ ও মধুসূদন নগরে ৩৫ বছরের দুজন পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া বার্জটাউনে ৪৪বছরের পুরুষ ও তাঁতিগেড়িয়াতে ৩৩বছরের মহিলা আক্রান্ত হয়েছেন। শহরের বিভিন্ন বয়সে আক্রান্ত ৭জনের সুনির্দিষ্ট নাম ঠিকানা উল্লেখ হয়নি। জেলার অতিরিক্ত জেলা শাসক প্রণব সরকার এখনো সংক্রমনে রয়েছেন। তাঁর স্ত্রীও করোনা আক্রান্ত।

গড়বেতার পিয়াশালায় ৫০ ও ২৪ বছরের দুই পুরুষ আক্রান্ত। গরঙ্গ ও পানি কোটরে ৬৫ ও ৬২ বছরের দুই বৃদ্ধ আক্রান্ত। গড়বেতার ঠিকানায় আক্রান্ত ৩০ বছরের গৃহবধু, ৩২ বছরের যুবক, ৭২ বছরের বৃদ্ধ, ৬৩ বছরের বৃদ্ধা ও ৫১ বছরের পুরুষ ব্যক্তি।
ডেবরার চকমানুতে ৩৮ বছরের গৃহবধূ, পিংলাতে ৭৩বছরের বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন। দাঁতনের চাউলিয়াতে ৪৫বছরের পুরুষ ব্যক্তি, সবংয়ের ডাঙাবাড়িতে ১৮বছরের যুবতী ও হিঁতালজোড়ে ২০বছরের যুবক আক্রান্ত হয়েছেন।

এবার আসা যাক ঘাটাল মহকুমায়। আরটি/পিটিসিআর রিপোর্ট মোতাবেক ২৭ শে অক্টোবর আক্রান্ত ২১জন। আক্রান্ত হয়েছেন ঘাটাল পুলিশের সার্কেল ইন্সপেক্টর দেবাশিস ঘোষ। ক্ষীরপাইতে আক্রান্ত ৫২ বছরের পুরুষ। চন্দ্রকোনায় আক্রান্ত ২৮বছরের গৃহবধূ। ঘাটালের জোত কানুরামঘরে ৫৬ ও ৭০ বছরের দুই পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত। কোন্নগরে আক্রান্ত ৩৪ বছরের যুবক এবং ১৮বছরের তরুন। গম্ভীরনগরেও এক ৩৪বছরের যুবক আক্রান্ত হয়েছেন। আড়গোড়া এবং নিমতলায় ৪৬ ও ৫৯ বছরের দুই পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত। এছাড়াও খড়ারে ৬১ ও দলপতিপুরে ৬২ বছরের দুই বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন। শ্যমচকে আক্রান্ত ৩৫ বছরের যুবক।

দাসপুর গ্রামীন হাসপাতালে নমুনা দিয়েছিলেন এমন ৭জনের ঠিকানা আলাদা করে দেওয়া হয়নি রিপোর্টে। সেই আক্রান্তদের বয়স লিঙ্গ অনুযায়ী ২৯, ৩৩ ও ৫৮ বছরের তিন মহিলা এবং ৭২, ৬৫, ৪৭বছরের তিন পুরুষ ছাড়াও ৪বছরের এক শিশুপুত্র রয়েছে। চক কিশোর এলাকায় ৮০ বছরের বৃদ্ধা এবং জোতকেশবে ৬০ বছরের বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন।

Previous articleবিপদমুক্ত নন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, রাখা হয়েছে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে
Next articleসঙ্গে রুকস্যাক ।। পার্থ দে