বাংলায় ভোট ৮ দফায়! শুরু ২৭শে মার্চ, শেষ দফা ২৯ শে এপ্রিল, ফল ঘোষণা ২রা মে! করোনা বিধি সহ নির্ঘন্ট ঘোষণা কমিশনের

435
বাংলায় ভোট ৮ দফায়! শুরু ২৭শে মার্চ, শেষ দফা ২৯ শে এপ্রিল, ফল ঘোষণা ২রা মে! করোনা বিধি সহ নির্ঘন্ট ঘোষণা কমিশনের 1

 

অশ্লেষা চৌধুরী: অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে করোনা আবহে অবশেষে একগুচ্ছ নির্দেশিকা সহ পশ্চিমবঙ্গ সহ পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা ভোটের নির্ঘন্ট ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন। শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটের সময় মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা ঘোষণা করলেন পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ। নয়াদিল্লির বিজ্ঞান ভবনে সাংবাদিক বৈঠক করে মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা জানিয়েছেন, বাংলায় এবার নির্বাচন হবে ৮ দফায়। ভোট গ্রহণ হবে ২৭ মার্চ, ১ এপ্রিল, ৬ এপ্রিল, ১০ এপ্রিল, ১৭ এপ্রিল, ২২ এপ্রিল, ২৬ এপ্রিল ও ২৯ এপ্রিল। তার পর ফল ঘোষণা হবে ২ মে।

বাংলায় ভোট ৮ দফায়! শুরু ২৭শে মার্চ, শেষ দফা ২৯ শে এপ্রিল, ফল ঘোষণা ২রা মে! করোনা বিধি সহ নির্ঘন্ট ঘোষণা কমিশনের 2

 

এবারে করোনা আবহে সম্পূর্ণ নিরাপত্তা যোগে ভোট সফল করাই নির্বাচন কমিশনের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। একথা সাংবাদিক বৈঠকেও জানান সুনীল আরোরা। এই প্রসঙ্গে বিহারের কথা তুলে ধরেন তিনি। কারণ করোনা আবহে বিহারেই প্রথম ভোট হয়েছিল। সেইসময় করোনাই ছিল মূল প্রতিপক্ষ। তাই এবারেও করোনা পরিস্থিতির দিকে বিশেষ নজর রেখে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

 

মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানিয়েছেন, প্রচারের জন্য কোন মাঠ ফাঁকা রাখা হবে, তার তালিকা তৈরি করা হবে। এক ঘন্টা বাড়ানো হয়েছে ভোটদানের সময়, যাতে অতিরিক্ত ভিড় এড়ানো যেতে পারে। ভোট দানের লাইনে থাকবে সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলার পদ্ধতি।

 

প্রচার করার ক্ষেত্রেও একাধিক নিয়ম জারি করেছে কমিশন। রোড শোতে একসঙ্গে ৫টি গাড়ির কনভয় থাকতে পারে। সব ভোটকর্মীদের করোনা টিকা দেওয়া হবে বাধ্যতামূলকভাবে। মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময় প্রার্থীর সঙ্গে থাকতে পারবেন সর্বোচ্চ দুজন। কমিশন জানিয়েছে, অনলাইনে মনোনয়ন জমা দিতে পারবেন প্রার্থীরা। বাড়ী গিয়ে প্রচারে প্রার্থীর সঙ্গে ৫ জনের বেশি থাকতে পারবেন না। ভোটারদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার দিকে নজর রাখার দিকটির গুরুত্বপূর্ণ বলে মন্তব্য করেন তিনি।

 

করোনা সংক্রমণ এড়াতে এবার পশ্চিমবঙ্গে বুথের সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে। বাংলায় বুথ বেড়েছে ৩১.৬৫ শতাংশ। পশ্চিমবঙ্গে বুথের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ১ হাজার ৯১৬টি। প্রথম দফায় ৩০ আসনে ভোট হবে। এছাড়াও রাজ্যের বিশেষ পর্যবেক্ষক করা হয়েছে অজয় নায়েককে। মৃণালকান্তি দাস ও বিবেক দুবেকে বাংলার বিশেষ পুলিশ অবজার্ভর করা হয়েছে৷

 

ভোটের দিনক্ষণের বিস্তারিত-

পশ্চিমবঙ্গে ২৭ মার্চ প্রথম দফার ভোট গ্রহণ হবে ৩০ টি আসনে। পাঁচটি জেলাতে ভোট গ্রহণ হবে এই দফায়। পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর পার্ট ১ এবং পূর্ব মেদিনীপুর পার্ট-১।

বাংলায় দ্বিতীয় দফায় ভোট গ্রহণ হবে ১ এপ্রিল। এই দফায় ৪ জেলার ৩০ টি আসনে ভোট গ্রহণ করা হবে। ওই জেলাগুলি হল, বাঁকুড়া পার্ট-২, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর পার্ট-২ এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা পার্ট-১।

রাজ্যে তৃতীয় দফায় ভোট গ্রহণ হবে ৬ এপ্রিল। এই দফায় ৩১ টি বিধানসভা আসনে ভোট গ্রহণ হবে। হাওড়া ও হুগলির পার্ট-১ এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনায় পার্ট-২ তথা এই জেলায় দ্বিতীয় দফার ভোট হবে।

চতুর্থ দফায় ভোট গ্রহণ হবে ১০ এপ্রিল। এই দফায় ৪৪ টি আসনে ভোট নেওয়া হবে। হাওড়া, হুগলি পার্ট, দক্ষিণ ২৪ পরগনা পার্ট -৩, আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারে ভোট হবে এই দফায়।

পঞ্চম দফায় ভোট গ্রহণ হবে ১৭ এপ্রিল। এই দফায় ৬ টি জেলায় ৪৫ টি আসনে ভোট নেওয়া হবে। ওই জেলাগুলি হল, উত্তর চবিশ পরগনা (পার্ট-১), নদিয়া (পার্ট-১), পূর্ব বর্ধমান (পার্ট-১), কালিম্পং, দার্জিলিং ও জলপাইগুড়ি জেলায়।

ষষ্ঠ দফায় ২২ এপ্রিল ভোট গ্রহণ হবে ৪ টি জেলার ৪৩ আসনে। উত্তর দিনাজপুর, নদিয়া (পার্ট-২), পূর্ব বর্ধমান (পার্ট-২) এবং উত্তর ২৪ পরগনায় (পার্ট-২) এই দফায় ভোট হবে।

সপ্তম দফায় ভোট গ্রহণ হবে ২৬ এপ্রিল। এই দফায় ৫ জেলার ৩৬ টি আসনে ভোট হবে। ওই জেলা গুলি হল—মালদা (পার্ট-১), মুর্শিদাবাদ (পার্ট-১), পশ্চিম বর্ধমান, কলকাতা দক্ষিণ ও দক্ষিণ দিনাজপুরে।

অষ্টম তথা শেষ দফায় ভোট গ্রহণ করা হবে ২৯ এপ্রিল। এই দফায় ৪ জেলার ৩৫ টি আসনে ভোট গ্রহণ করা হবে। কলকাতা উত্তর, মালদা (পার্ট ২), মুর্শিদাবাদ (পার্ট ২) এবং বীরভূমে শেষ দফায় ভোট হবে।