সুশান্ত মামলায় নয়া মোড়! দিদি প্রিয়াঙ্কা ও মীতুর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল বান্দ্রা পুলিশ, এফআইআর অবৈধ বলে দাবি সুশান্তের পারিবারিক আইনজীবীর

73

ওয়েব ডেস্ক : সুশান্ত মৃত্যু মামলায় মাদকচক্রের যোগ থাকার সন্দেহে শনিবার থেকে টানা তিনদিন রিয়া চক্রবর্তীকে লাগাতার জেরা করছে এনসিবি। সোমবারের পর মঙ্গলবারও ফের এনসিবি দফতরে ডাক পড়েছে রিয়ার। এর মধ্যেই সুশান্ত মামলার নতুন মোড়। সুশান্তকে ভুয়ো প্রেস্ক্রিপশনের মাধ্যমে ওষুধের পরামর্শ দেওয়ার অভিযোগে সোমবার রাতে বান্দ্রা থানায় সুশান্তের দুই দিদি, প্রিয়াঙ্কা সিং এবং মীতু সিং এবং দিল্লির রামমোনহর লোহিয়া হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ডঃ তরুণ কুমারের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করলেন সুশান্ত মামলার আপাতত মূল অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী।

জানা গিয়েছে, সুশান্তের দুই দিদি ও দিল্লি হাসপাতালের চিকিৎসকের বিরুদ্ধে সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া,প্রতারণা,জালিয়াতি এবং অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র সহ একাধিক অভিযোগ আনলেন সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী। রিয়ার অভিযোগ অনুযায়ী, এই তিনজনের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৬৪, ৪৬৫, ৪৬৬, ৪৬৮, ৪৭৪, ৩০৬, ১২০ (বি), ৩৪ ধারা এবং এনডিপিএস আইন, ১৯৮৫ এর আওতায় ৮(সি), ২১,২২, এবং ২৯ এর আওতায় এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। এ বিষয়ে এন অম্বিকা, ডিসিপি তথা মুম্বই পুলিশের মুখপাত্র জানিয়েছেন, “রিয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে বান্দ্রা থানায় একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায় মেনে এই অভিযোগের বিস্তারিত তদন্তের ইতিমধ্যেই এফআইআর কপি সিবিআইয়ের হাতে হস্তান্তর করে দেওয়া হয়েছে।”

এই মূহুর্তে সুশান্ত মৃত্যু মামলা গোটা দেশে চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে৷ সুশান্তের মৃত্যুর সাথে ওতপ্রোতভাবে রিয়া জড়িয়ে রয়েছে, এই সন্দেহে ইতিমধ্যেই সিবিআই, ইডি এবং এনসিবি তিন কেন্দ্রীয় সংস্থা মিলে রিয়াকে লাগাতার জেরা চালিয়ে যাচ্ছে। সেই রিয়াই সুশান্তকে ভুয়ো প্রেস্ক্রিপশনে নিষিদ্ধ ওষুধ প্রেস্ক্রাইব করায় সুশান্তের দুই দিদি ও এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন। ফলে স্বাভাবিকভাবেই গোটা ঘটনাটিতে একটি অন্য মাত্রা এনে দিয়েছে।
রিয়ার তরফে এনডিপিএস আইন এবং টেলিমেডিকাল প্র্যাকটিস গাইডলাইন, ২০২০ আওতায় সুশান্ত সিং রাজপুতকে নিষিদ্ধ ওষুধ প্রেসক্রাইব করার ভিত্তিতে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন -  ডেবরায় ২৫ ছাড়ালো করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ! পোস্ট মাস্টারের পরিবারে আক্রান্ত আরও ৫ ,আক্রান্ত পুলিশ কর্মী সহ আরও ২

সোমবার রিয়ার জানান, “সুশান্ত এবং তাঁর দিদি প্রিয়াঙ্কার মধ্যেকার বেশ কিছু হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট প্রকাশ্যে এসেছে ৮ জুনের যা অত্যন্ত বিরক্তিকর এবং একাধিক আইনের বিরুদ্ধে।” তিনি আরও জানান, ৮ই জুন হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে প্রিয়াঙ্কা অভিনেতাকে তার অবসাদের জন্য বেশকিছু ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু ওষুধগুলি এনডিপিএস আইনের আওতায় নিয়ন্ত্রিত। ওষুধগুলির নাম দেখে সুশান্ত তার দিদিকে জানিয়েছিল, এই ওষুধ প্রেস্ক্রিপশন ছাড়া পাওয়া অসম্ভব। এরপর সেদিনই প্রিয়াঙ্কা সুশান্তকে দিল্লির রাম মনোহর লোহিয়া হাসপাতালের চিকিৎসক তরুণ কুমারের সই করা একটি প্রেসক্রিপশন পাঠান।

আরও পড়ুন -  বেআব্রু রেলের স্বাস্থ্য পরিষেবা , দেরিতে অ্যাম্বুলেন্স আসার অভিযোগ স্টেশনেই মৃত্যু তরতাজা যুবকের, ক্ষোভ উগরে দিলেন স্ত্রী

তবে সুশান্ত মুম্বাইতে থাকার কারণে তিনি বরাবরই মুম্বাইতেই চিকিৎসক দেখাতেন। সুতরাং তিনি লকডাউনের মধ্যে আচমকা দিল্লিতে চিকিৎসক দেখাতে যাবেন? রিয়ার এফআইআরের মাধ্যমে এই প্রশ্নই তুলে ধরেছেন রিয়া চক্রবর্তী। পাশাপাশি রিয়া আরও উল্লেখ করেন, এই বিষয়টি নিয়েই ৮ই জুন সুশান্তের সাথে রিয়ার অশান্তি হন এবং রিয়া বাড়ি ছেড়ে চলে যান। এবং এর ঠিক পাঁচদিন পরই মৃত্যু হয় অভিনেতার। তবে রিয়ার করা এফ আই আর একেবারেই ভুয়ো বলে দাবি করেন সুশান্তের পারিবারিক আইনজীবী বিকাশ সিং। তাঁর দাবি, রিয়ার পরিবারকে হেনস্তা করতেই এই ধরণের মিথ্যে এফআইআর করেছেন রিয়া চক্রবর্তী।

সুশান্ত মামলায় নয়া মোড়! দিদি প্রিয়াঙ্কা ও মীতুর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল বান্দ্রা পুলিশ, এফআইআর অবৈধ বলে দাবি সুশান্তের পারিবারিক আইনজীবীর 1