পাহাড়ে পুড়ে ছাই বিমল গুরুংয়ের তৈরি গেষ্ট হাউস! উঁকি দিচ্ছে নাশকতার জল্পনা

226
পাহাড়ে পুড়ে ছাই বিমল গুরুংয়ের তৈরি গেষ্ট হাউস! উঁকি দিচ্ছে নাশকতার জল্পনা 1
পাহাড়ে পুড়ে ছাই বিমল গুরুংয়ের তৈরি গেষ্ট হাউস! উঁকি দিচ্ছে নাশকতার জল্পনা 2

নিউজ ডেস্ক: রাতের আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেলে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা বিমল গুরুংয়ের আমলে তৈরি করা গোর্খা টেরিটোরিয়াল আ্যডমিন্সট্রেশন বা জিটিএ(GTA)য়ের বিলাসবহুল গেষ্ট হাউসটি।শনিবার রাতের এই বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই জিটিএর গেস্ট হাউসটির সমস্ত আসবাবপত্র। কুটোটিও বাঁচানো সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে GTA কর্তৃপক্ষ। ঘটনা টি ঘটেছে দার্জিলিং থানার অন্তর্গত জামুনেতে।

বিমল গুরুং জিটিএ-র প্রধান থাকাকালীন পর্যটন দপ্তরের তৈরি করা এই গেস্ট হাউসটিতে রবিবার ভোরে আগুন দেখতে পান স্থানীয়রা। গেস্ট হাউসটি গুরুং য়ের অত্যন্ত প্রিয় ছিল। তাঁর সরকারি বা বেসরকারি অতিথিরা এলে গুরুং তাঁদের এখানেই আপ্যায়ন করতেন। ফলে এই গেষ্ট হাউসটি  বিমল গুরুং য়ের গেষ্ট হাউস বলেও পরিচিতি লাভ করেছিল। আর সে কারণেই এই ঘটনার পেছনে গুরুং বিরোধী বিনয় তামাং শিবিরের যোগ খুঁজছেন অনেকেই। জল্পনা চলছে অগ্নিসংযোগ ঘটিয়েছে তামাং শিবিরের কেউ।

পাহাড়ে পুড়ে ছাই বিমল গুরুংয়ের তৈরি গেষ্ট হাউস! উঁকি দিচ্ছে নাশকতার জল্পনা 3

পাহাড়বাসীর মনে এই সন্দেহ উঁকি দেওয়ার কারন বিমল-বিনয় সম্পর্ক কেমন তা সকলের জানা।পাহাড়ের আধিপত্য ছাড়তে রাজী নন বিনয় তামাং।অন্যদিকে পাহাড়বাসীর আবেগ বিমল গুরুং। পাহাড়ে নিজের রাজত্ব কায়েম রাখতে বিমল তার পুত্রকে ভোটের টিকিট পাইয়ে দেবার ব্যবস্থা করতে পারেন এরকমই জোর গুঞ্জন পাহাড়ে।২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের সঙ্গে একজোট হয়ে লড়াই করার বার্তা দিয়েছেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং।

অন্যদিকে ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের আইন দপ্তর থেকে জেলা পুলিশকে এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়ে ৭০টিরও বেশি মামলা প্রত্যাহারের কাজ শুরু হয়েছে।এর মধ্যে কিছুটা ব্যাকফুটে বিনয়রা।রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে বিনয় শিবির গেস্ট হাউস পুড়িয়ে দেবার ঘটনা গটাতে পারে বলে অনুমান ওয়াকিবহাল মহলের। রাজ্য সরকার বিনয় তামাংদের দুরে সরিয়ে ফের কাছে টেনে নিয়েছে বিমল গুরুংকে। তাই বিনয় গোষ্ঠীর সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব বাড়ছে  তৃনমূলের।

জানা গেছে মধ্যরাতে আগুন দেখে মুহুর্তের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ায় এলাকায়।এরপর দার্জিলিং থানা ও দমকল বিভাগকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে দমকলের দুটি ইঞ্জিন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কীভাবে এই আগুন লাগল ও এই ঘটনার পিছনে কোনও ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।দার্জিলিংয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অভিষেক গুপ্তা ঘটনাস্থল ঘুরে দেখার পর জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে অনুমান বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে। তবে পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।